• ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ
  • " />

     

    কার্তিক-পান্ডিয়াতে ভারতের স্বস্তির জয়

     

    স্কোর

    ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২০ ওভারে ১০৯ ( অ্যালেন ২৭, কূলদীপ ৩/১৩)

    ভারত ১৭.৫ ওভারে ১১০/৫ (কার্তিক ৩১*, পান্ডিয়া ২১, ব্রাথওয়েট ২/১১)

    ভারত ৫ উইকেটে জয়ী

     

    ওয়ানডে সিরিজের প্রথম কয়েক ম্যাচে ভারতীয় বোলারদের ওপর ছড়ি ঘুরিয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটসম্যানরা। সেই সিরিজের শেষ ম্যাচ অবশ্য ভারতের বোলাররাই দাপট দেখিয়েছিল। সেদিনের মতো টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচেও কূলদীপ-উমেশদের সামনে দাঁড়াতে পারল না ক্যারিবিয়ানরা। তাড়া করতে নেমে খানিকটা অস্বস্তিতে পড়লেও দিনেশ কার্তিকের ধৈর্যশীল এক ইনিংসে জয় পেয়েছে ভারত। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৫ উইকেটে হারিয়ে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেল রোহিত শর্মার দল। অধিনায়ক হিসেবে নিজের প্রথম ১০ টি-টোয়েন্টি ম্যাচের ৯টিতেই জিতলেন রোহিত।

    টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নামা ওয়েস্ট ইন্ডিজ নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারিয়েছে। থিতু হতে পারেননি কেউই। তৃতীয় ওভারের শুরুতেই ১৬ রানের মাথায় পড়ে প্রথম উইকেট, উমেশ যাদব ফেরান দিনেশ রামদিনকে। ১২ রানের ব্যবধানে আরও দুই উইকেট হারায় তারা।

    কাইরন পোলার্ড একটু স্রোতের বিপরীতে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছিলেন। ১৪ রান করে ক্রুনাল পান্ডিয়ার বলে ফিরতে হয় তাকেও। এরপর কূলদীপ যাদব নিজের তিন ওভারে নেন তিন উইকেট, ফেরান ড্যারেন ব্রাভো, রোভম্যান পাওয়েল ও কার্লোস ব্রাথওয়েটকে। ৬৩ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ তখন ১০০ রানের আগেই অলআউটের শঙ্কায়।

    ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১০০ পেরিয়েছে ফ্যাবিয়ান অ্যালেন ও কেমো পলের সুবাদে। চারটি চারে ২০ বলে ২৭ রান করেন অ্যালেন। অ্যালেনকে ফিরিয়েছেন খলিল আহমেদ। পল অপরাজিত থাকেন ১৫ রানে।

    ১১০ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি ভারতেরও। প্রথম ওভারেই ৬ রান করে ফেরেন রোহিত। তৃতীয় ওভারে আউট হন শিখর ধাওয়ানও। ৪৫ রানের মাঝে আরও দুই উইকেট হারিয়ে রীতিমত ধুঁকছিল। অল্প রানের পুঁজি নিয়ে তখন অবিশ্বাস্য এক জয়ের স্বপ্নে বিভোর ক্যারিবিয়ানরা।

    ব্রাথওয়েটদের সেই স্বপ্ন পূরণ হতে দেননি দিনেশ কার্তিক ও ক্রুনাল পান্ডিয়া। দুজন দারুণ ধৈর্যের সাথে ব্যাট করেছেন ১৮তম ওভার পর্যন্ত। তিন চার ও এক ছয়ে ৩৪ বলে ৩১ রান করেন কার্তিক। অভিষেক হওয়া পান্ডিয়া করেছেন ৯ বলে ২১ রান, তাঁর ইনিংসে এসেছে ৩ রান। কার্তিক ও  পান্ডিয়া দুজনেই শেষ পর্যন্ত ক্রিজে ছিলেন। জয়সূচক রান আসে পান্ডিয়ার ব্যাট থেকেই।