• ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ
  • " />

     

    চার সেঞ্চুরিতে সবার ওপরে রোহিত

     

    স্কোর

    ভারত ২০ ওভারে ১৯৫/২ (রোহিত ১১১*, অ্যালেন ১/৩৩)

    ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১২৪/৯ ( ব্রাভো ২৩, ভুবনেশ্বর ২/১২)

    ভারত ৭১ রানে জয়ী

     

    ৯০ এর ঘরে আটকে ছিলেন অনেকটা সময়, অবশ্য সেটা হয়েছে স্ট্রাইক না পাওয়াতেই। ইনিংসের শেষ ওভারের দ্বিতীয় বলে স্ট্রাইক পেলেন রোহিত শর্মা, বল বাকি পাঁচ, সেঞ্চুরি পেতে লাগে ৮ রান। পরপর দুই বলে দুইটি চার মেরেই সেঞ্চুরি পূর্ণ করলেন ভারতীয় অধিনায়ক, সাথে গড়লেন নতুন এক রেকর্ড। প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে চারটি সেঞ্চুরি পেলেন রোহিত। রোহিতের রেকর্ডের রাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৭১ রানে হারিয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করল ভারত।

    টসে জিতে ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠান কার্লোস ব্রাথওয়েট। রোহিত ও শিখর ধাওয়ানের ওপেনিং জুটি দারুণ সূচনা এনে দেয় ভারতকে। রোহিত-ধাওয়ানের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ১৩ ওভারের মাঝেই ওঠে ১০০ রান। চোখ ধাঁধান সব শট খেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোলারদের হতাশায় ডুবিয়েছেন রোহিত। ফ্যাবিয়ান অ্যালেনের বলে ধাওয়ান ফিরলে ভাঙ্গে ১২৩ রানের উদ্বোধনী জুটি। ৪১ বলে ৪৩ রান করে পোরানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ধাওয়ান।

    ধাওয়ানের পর ঋশাভ পান্ট​ আউট হয়েছেন ৫ রান করেন। এরপর লোকেশ রাহুলকে নিয়ে ইনিংসের বাকি সময়ে ব্যাট করেছেন রোহিত। শেষ ওভারে গিয়ে ৫৮ বলে পূর্ণ করেছেন সেঞ্চুরি। ৮ চার ও ৭ ছয়ে ৬১ বলে ১১১ রান করে অপরাজিত থাকেন রোহিত, রাহুল অপরাজিত ছিলেন ১৪ বলে ২৬ রানে।

    ১৯৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দাঁড়াতে পারেননি ওয়েস্ট ইন্ডিজের কেউই। নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারিয়েছে তারা। শিমরন হেটমেয়ার, ড্যারেন ব্রাভো কিছুটা আশা দেখাচ্ছিলেন। ক্রিজে থিতু হওয়ার আভাস দেওয়ার পড়েও অল্প রানেই ফিরেছেন দুইজন। ব্রাভোর ২৩ রানই শেষ পর্যন্ত দলের হয়ে সর্বোচ্চ ছিল।

    ৬৮ রানেই ৫ উইকেট হারানো ওয়েস্ট ইন্ডিজকে খানিকটা পথ দেখিয়েছে ব্রাথওয়েট ও কিমো পল। দুজনের কল্যাণেই ১০০ পেরোয় দল। ব্রাথওয়েটের ১৯ বলে ১৫ ও পলের ২১ বলে ২০ রানের ইনিংস শুধু হারের ব্যবধানই কমিয়েছে। ক্রুনাল পান্ডিয়া ছাড়া উইকেট পেয়েছেন ভারতের চার বোলারই। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভার খেলে ৯ উইকেট হারিয়ে ১২৪ রানেই থামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংস।

    এই জয়ে টানা ৭ সিরিজে জিতল ভারত। অন্যদিকে ২০১৮ সালে টি-টোয়েন্টিতে ৮ ম্যাচে হারল ওয়েস্ট ইন্ডিজ, যা এক বছরে তাদের সর্বোচ্চ হার।