• পাকিস্তান-নিউজিল্যান্ড সিরিজ
  • " />

     

    পাকিস্তান দলে ফিরলেন আমির

     

    ফর্মটা খারাপ যাচ্ছিল বছরের শুরু থেকেই। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে বাদ পড়ার পর পাকিস্তান পেসার মোহাম্মদ আমির জায়গা হারিয়েছিলেন নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও। ঘরোয়া ক্রিকেটে দারুণ পারফর্ম করে অবশেষে দলে ফিরলেন আমির। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের টেস্ট দলে জায়গা করে নিয়েছেন তিনি।

    এশিয়া কাপে মাত্র তিন উইকেট নেওয়ার সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল আমিরকে। এরপর ইংল্যান্ড সিরিজে হতাশাজনক বোলিংয়ের পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট দল থেকে বাদ পড়েছিলেন। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের কোনো ফরম্যাটেই দলে জায়গা হয়নি আমিরের। নির্বাচকরা বলেছিলেন, ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো করলেই কেবল দলে ফিরতে পারেন আমির।

    আমির করে দেখিয়েছেন সেটাই। কায়েদ-এ-আজম ট্রফিতে চারটি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলে ১৩.৬১ গড়ে নিয়েছেন ২৩ উইকেট। এর মাঝে দুইবার পাঁচ উইকেটও আছে। ঘরোয়া ক্রিকেটের এই পারফরম্যান্সের সুবাদেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে স্কোয়াডে ডাকা হয়েছে আমিরকে।

    দলের প্রধান নির্বাচক ইনজামাম-উল-হক বলছেন, আমিরের তার ভালোর জন্যই তাঁকে বাদ দেয়া হয়েছিল, ‘আমি দুর্দান্ত একজন বোলার। সে কতটা প্রতিভাবান এটা আমরা সবাই জানি। কিন্তু নিষেধাজ্ঞা থেকে ফেরার পর থেকে সে টানা ক্রিকেট খেলেছে, বিশ্রামের সময়ই পায়নি। এজন্য হয়ত তার পারফরম্যান্স ভালো হচ্ছিল না। তাঁকে তার ভালোর জন্যই বাদ দেওয়া হয়েছিল। এখন সে ফর্মে ফিরেছে, তাই আমিরকে ফেরত আনা হয়েছে। সে সবসময়ই আমাদের পরিকল্পনায় ছিল। তার ফেরায় পাকিস্তানের বোলিং লাইনআপ শক্তিশালী হবে।’

    আমিরের মতো দলে ফিরেছেন লেগস্পিনার শাদাব খান, ওপেনার ফখর জামান ও উইকেটকিপার মোহাম্মদ রিজওয়ান। শাদাবও আমিরের মতো অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট দল থেকে বাদ পড়েছিলেন। ফখর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ছিলেন না ইনজুরির কারণে। রিজওয়ান ২০১৬ নিজের একমাত্র টেস্টটি খেলেছিলেন কিউইদের বিপক্ষে। অবসর নেওয়ার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে থাকছেন না মোহাম্মদ হাফিজ। ১৬ জনের স্কোয়াড থেকে বাদ পড়েছেন নিউজিল্যান্ড সিরিজে দলে থাকা বিলাল আসিফ, মির হামজা ও সাদ আলি।

    ২৬ ডিসেম্বর সেঞ্চুরিয়নে শুরু হবে সিরিজের প্রথম টেস্ট।