• ক্রিকেট

স্টার্ক-খাওয়াজার 'প্রত্যাবর্তনের' দিনে ধুঁকছে শ্রীলঙ্কা

ক্যানবেরা টেস্ট
তৃতীয় দিনশেষে 
অস্ট্রেলিয়া ১ম ইনিংস ৫৩৪/৫ ডিক্লে. (বার্নস ১৮০, হেড ১৬১, প্যাটারসন  ১১৪*; ফার্নান্ডো ৩/১২৬, রাজিথা ১/১০৩) ও ১৯৬/৩ ডিক্লে. (খাওয়াজা ১০১*, হেড ৫৯*, রাজিথা ২/৬৪) 
শ্রীলংকা ১ম ইনিংস ২১৫ অল-আউট (করুনারত্নে ৫৯, থিরিমানে ৪১, স্টার্ক ৫/৫৪, লায়ন ২/৭০) ও ২য় ইনিংস ১৭/০* 
শ্রীলঙ্কার জয়ের জন্য ১০ উইকেটে ৪৯৯ রান প্রয়োজন 


মিচেল স্টার্ক শেষ পাঁচ উইকেট পেয়েছিলেন গত বছরের মার্চে। গত দশ ইনিংসে শুধু একটি ফিফটি ছিল উসমান খাওয়াজার। দুজনই আজ ফিরলেন ‘ছন্দে’। স্টার্কের পাঁচ উইকেট ও খাওয়াজার সেঞ্চুরিতে ক্যানবেরায় শ্রীলঙ্কাকে চেপে ধরেছে অস্ট্রেলিয়া। শ্রীলঙ্কার জয়ের জন্য এখনও প্রয়োজন ৪৯৯ রান, বিপরীতে সিরিজ জিততে অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ১০ উইকেট। 

 

 

 

 

৩ উইকেটে ১২৩ রানে দিন শুরু করা শ্রীলঙ্কার দিনটা ভাল যায়নি মোটেও, ব্যাটিং বোলিং বা ইনজুরিতে। আগেরদিন বাউন্সারে আঘাত পেয়ে মাঠের বাইরে চলে গিয়েছিলেন দিমুথ করুনারত্নে, এদিন চলে যেতে হয়েছে কুশাল পেরেরাকে। জাই রিচার্ডসনের বাউন্সারে ডাক করতে গিয়েও পারেননি তিনি, হেলমেটে আছড়ে পড়েছে বল। পেরেরা অবশ্য এরপরও ক্রিজে ছিলেন, তবে খানিক বাদেই ফিজিওর সঙ্গে ছেড়েছেন মাঠ। প্রয়োজন পড়লে তিনি আবারও ব্যাটিং করতে পারবেন বলেও জানানো হয়েছে। 

 

ইনিংসজুড়ে এই বাউন্সারই ভুগিয়েছে শ্রীলঙ্কানদের। স্টার্ক তুলেছিলেন গতির ঝড়, ১৫০ কিলোমিটারে বল করে গেছেন নিয়মিত। ধনঞ্জয়া ডি সিলভা আউট হয়েছেন অদ্ভুতভাবে। স্টার্কের বলে পুল করতে গিয়ে মিস করে গিয়েছিলেন, তবে ব্যাট সে শটের গতিপথে এসে ভেঙে দিয়েছে স্টাম্প! এর আগে আগেরদিন উঠে যাওয়া করুনারত্নের সঙ্গে ২৩ রানের জুটি হয়েছে তার। 

 

 

করুনারত্নে নেমে ফিফটি পূর্ণ করেছেন, তবে টিকতে পারেননি বেশিক্ষণ। ডি সিলভার মতো একই ওভারে তিনি ফিরেছেন গালিতে ক্যাচ দিয়ে। চামিকা করুনারত্নে ও নিরোশান ডিকওয়েলা যথাক্রমে দুই স্পিনার লায়ন ও ল্যাবুশানের শিকার। দিলরুয়ান পেরেরা ও বিশ্ব ফার্নান্ডোকে এরপর এসে আউট করে শ্রীলঙ্কার লেজ ছেঁটে দিয়েছেন স্টার্ক। ফার্নান্ডোর উইকেট দিয়ে পাঁচ উইকেট হয়েছে তার। শ্রীলঙ্কাকে অবশ্য ফলো-অন করাতে পারতো অস্ট্রেলিয়া, তবে বোলারদের বিশ্রাম দিতে সেটা করেননি পেইন। 

ব্যাটিংয়ে অবশ্য শুরুতে অস্ট্রেলিয়া খেই হারিয়েছিল আবারও। প্রথম ইনিংসের মতোই দ্রুত ৩ উইকেট হারিয়েছিল তারা, এবার ৩৭ রানে ভেতর। মার্কাস হ্যারিস ও মার্নাস ল্যাবুশেন কাশুন রাজিথার শিকার, জো বার্নস ফিরেছেন ফার্নান্ডোর বলে। তবে শুরুতে নড়বড়ে হলেও শীঘ্রই ছন্দ খুঁজে পেয়েছেন উসমান খাওয়াজা। পেস ও স্পিনে করেছেন আধিপত্য। আর শুরুতে ঝলক দেখানো শ্রীলঙ্কার বোলিং আক্রমণ আবারও বিবর্ণ হয়ে পড়েছে বল পুরোনো হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে। 

খাওয়াজার সেঞ্চুরির জন্যই মূলত ইনিংস ঘোষণা দেরি করেছিলেন টিম পেইন। ১৩৪তম বলে গিয়ে সেটা পূর্ণ করেছেন তিনি। ক্যারিয়ারে এটি ৮ম সেঞ্চুরি খাওয়াজারএ ইনিংসে এই বাঁহাতি মেরেছেন ১৪টি চার। তাকে দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন ট্রাভিস হেড, ইনিংস ঘোষণার সময় হেড অপরাজিত ছিলেন ৯৫ বলে ৮ চারে ৫৯ রানে, দুজনের জুটিতে উঠেছিল ১৫৯ রান। 

শ্রীলঙ্কার দুই ওপেনার এরপর খেলেছেন ৬ ওভার, সেখানে ব্রেকথ্রু পায়নি অস্ট্রেলিয়া। করুনারত্নে ও থিরিমান্নের দুজনই অপরাজিত আছেন ৮ রানে।