• উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ
  • " />

     

    • উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ

    স্বপ্নের ফাইনালে খেলতে চান কেইন

    গত মাসের কোয়ার্টার ফাইনালের পর থেকেই মাঠের বাইরে আছেন তিনি। ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে প্রথম লেগের ম্যাচে পাওয়া গোড়ালির ইনজুরির কারণে এই মৌসুমে আর নাও খেলতে পারেন টটেনহাম অধিনায়ক হ্যারি কেইন, ধারণা করা হচ্ছিল এমনটাই। গতকাল আয়াক্সকে অবিশ্বাস্যভাবে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে স্পার্স। মাদ্রিদের ফাইনালের আগে কেইন বলছেন, তিনিও খেলতে চান সেই স্বপ্নের ফাইনালে।

    গোড়ালির ইনজুরির কারণে প্রায় দেড় মাসের মতো মাঠে নামতে পারেননি কেইন। চোটের পরপরই কোচ মাউরিসিও পচেত্তিনো জানিয়েছিলেন, মৌসুমটা হয়ত শেষ হয়ে গেছে তাঁর। টটেনহামের খেলাগুলো গ্যালারিতে বসেই দেখতে হচ্ছে তাকে। গতকাল সতীর্থদের সমর্থন জানাতে আয়াক্সের মাঠে উপস্থিত ছিলেন কেইন। লুকাস মউরার জয়সূচক গোলের পর উদযাপন করেছেন তিনিও।

    স্বপ্নের ফাইনালে পৌঁছে গেছে টটেনহাম। সেখানে মাঠে ভূমিকা রাখতে চান কেইনও, ‘সুস্থ হওয়ার জন্য যা করা দরকার, সবই করছি। গত সপ্তাহে কিছুটা দৌড়াতে পেরেছি। আমাকে ছাড়াই দল ফাইনালে পৌঁছে গেছে সিটি ও আয়াক্সকে হারিয়ে। দলে ফিরতে হলে তাই নিজের ফিটনেসের পরীক্ষায় পাশ করতেই হবে। ফাইনালে মাঠে নামার জনন আমিও মুখিয়ে আছি।’

     

     

    প্রথমার্ধে দুই গোলে পিছিয়ে ছিল টটেনহাম। ড্রেসিংরুমে অন্যদের সাথে ছিলেন কেইনও। দ্বিতীয়ার্ধেই বদলে গেছে সবকিছু। মউরার হ্যাটট্রিকেই আয়াক্স বাধা পার করেছে তারা। দলের পারফরম্যান্সে মুগ্ধ কেইন, ‘প্রথমার্ধে আমরা ভালো খেলিনি। বিরতির সময় ড্রেসিংরুমে ছিলাম, সবাই বুঝতে পারছিল ম্যাচে ফিরতে হলে দারুণ কিছু করতে হবে। শেষ ৪৫ মিনিটে আমরা সবটুকু উজাড় করে খেলেছি। এরকম ফলাফলে আমি হতবাক, আনন্দ প্রকাশের ভাষাও হারিয়ে ফেলেছি। একজন সমর্থক হিসেবে জয়টা উপভোগ করেছি শুধু। এটা ক্লাবের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ, সেটা আমরা সবাই বুঝতে পারছি।’