• চ্যাম্পিয়নস লিগ
  • " />

     

    অল্পের জন্য কারাদণ্ড থেকে বেঁচে গেলেন তুরান

    খেলার চেয়ে মাঠের বাইরের বিতর্কের কারণে শিরোনাম হওয়াটা যেন রুটিনই বানিয়ে ফেলেছেন সাবেক তুরস্ক ফরোয়ার্ড আরদা তুরান। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ বা বার্সেলোনা- হাতাহাতি, সতীর্থ এবং ম্যানেজারদের সাথে বাগবিতণ্ডার কারণে একাধিকবার শিরোনাম হতে হয়েছে তাকে। গত বছর তুরসকের এক নাইটক্লাবে গায়ক বার্কে সাহিনের সাথে মারামারি করে তার নাক  ভেঙে দিয়েছিলেন তুরান, এরপর হাসপাতালে চালিয়েছিলেন গুলি। সেজন্য তাকে দুই বছর আট মাসের কারাদন্ড দিয়েছে তুরস্কের আদালত।

     

     

    তবে রায়ের বিপক্ষে আপিল না করায় এ যাত্রায় কিছুটা লঘু শাস্তিতেই পার পেয়ে যাচ্ছেন তুরান। তুরস্কের আদালত জানিয়েছে, হাসপাতালে গুলি ছুঁড়ে জনমনে ভীতি সৃষ্টি করা, অবৈধ অস্ত্র নিজের কাছে রাখা এবং ইচ্ছাকৃতভবে সাহিনকে আহত করা- এই তিন অপরাধের কারণে সাজা দেওয়া হয়েছে তাকে। তবে এখনই জেলে যেতে হচ্ছে না তুরানকে। তুরস্কের আদালত আরও জানিয়েছে, আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে আবারও কোনও ধরণের অপরাধ করলে কেবল তখনই কারাগারে পাঠানো হবে তাকে। ২০১৫ সাল থেকে বার্সেলোনা ছেড়ে ধারে তুরষ্কের ক্লাব বাসাকসেহিরে যোগ দিয়েছিলেন তুরান।

    আদালত কিছুটা ছাড় দিলেও তুরানের প্রতি সদয় হচ্ছে না বাসাকসেহির। আনুষ্ঠানিক এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তুরানকে চার লাখ ইউরো জরিমানা করেছে তারা। অ্যাটলেটিকোর হয়ে বার্সেলোনার বিপক্ষে কোপা ডে রে-এর এক ম্যাচে লাইনসম্যানের সিদ্ধান্ত পছন্দ না হওয়ায় তার দিকে বুট ছুঁড়ে মেরেছিলেন তুরান, তবে সেবার অবশ্য কোনও শাস্তি পাননি তিনি।

     

     

    ২০১৫ সালে ৩৪ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে অ্যাটলেটিকো ছেড়ে বার্সাতে যোগ দিয়েছিলেন তুরান। ৫৫ ম্যাচে ১৫ গোল করে কাতালানদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি, পরের বছরই তাকে স্বদেশি বাসাকসেহিরে ধারে পাঠিয়ে দেয় বার্সা। তুরস্কের হয়ে শেষ ২০১৭ সালে খেলেছিলেন তুরান, দেশের হয়ে ১০০ ম্যাচে করেছেন ১৭ গোল।