• " />
    X
    GO11IPL2020

     

    তৃতীয় বছরে প্যাভিলিয়ন

     

    শুরুটা হয়েছিলো নিজেদের আক্ষেপ থেকেই। খেলাপাগল জাতি হলেও নিজেদের দেশে বলার মতো কোনো স্পোর্টস সাইট ছিল না বাংলা ভাষায়, নেই নিজেদের কোনো স্পোর্টস চ্যানেল-ও! ইন্টারনেটের এই যুগে অসংখ্য ওয়েবসাইট অন্তর্জালে থাকলেও বাংলায় মানসম্পন্ন স্পোর্টস ওয়েবসাইটের অভাব বোধ করে আসছিলাম আমরা অনেকদিন থেকেই। সেই চিন্তা থেকেই পথচলা শুরু প্যাভিলিয়নের, যেনো মাশরাফি-সাকিব-মামুনুলদের সংবাদ বাংলা ভাষাভাষী মানুষের কাছে মানসম্পন্নভাবে পৌঁছে দেয়া যায়! 

     

    খেলা যারা ভালোবাসেন, সবসময় খেলার সাথেই যারা থাকতে চান আর খেলা নিয়ে যারা লিখতে চান - ''প্যাভিলিয়ন'' তাঁদের জন্য দিচ্ছে তাঁদের প্রিয় খেলা-খেলোয়াড়-দল-ক্লাব এসব নিয়ে জানার আর বাংলায় লেখালেখি করার একটি অনন্য প্ল্যাটফর্ম। বাংলা ভাষায় আন্তর্জাতিক মানের খেলাধূলার সংবাদ পরিবেশনের জন্যই প্যাভিলিয়নের যাত্রা। ২০১৪ সালের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে বেশ খানিকটা পথ পাড়ি দিয়ে এসেছে ‘টিম প্যাভিলিয়ন’। এক প্ল্যাটফর্মেই দেশের এবং বাইরের খেলাধূলার সবরকম খবর যেন পেতে পারেন, সেজন্যই নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছি আমরা। আমাদের পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট তৈরির কাজও এগিয়ে চলছে পাশাপাশি। 

     

    বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ খেলার খবর আমাদের প্রিন্ট এবং অনলাইন মিডিয়াতে তেমন গুরুত্ব দেয়া হয়না। প্যাভিলিয়নের লক্ষ্য থাকবে, দেশের ভেতরের এসব খবরের হালচাল নিয়মিতভাবে পাঠকদের কাছে পৌঁছে দেওয়া। 

     

    সীমিত লোকবল নিয়ে শুরু করায় লাইভস্কোরিং আপডেটের চেয়ে আমরা সবসময় গুরুত্ব দিয়ে আসছি ফিচার-অ্যানালাইসিসের দিকে।  নিজস্ব দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে স্রোতের বিপরীতে থেকেও দিতে চেয়েছি নিজেদের বিশ্লেষণ। বলেছি এগারোটা সবুজ-লাল জার্সির সাথে মিলেমিশে থাকা বাংলাদেশ ক্রিকেটের শঙ্কা কিংবা উল্লাসের গল্প। বলেছি ফ্লাডলাইটের আলোয় মাঠে ঘুরে বেড়ানো এক বাঘের গল্প। যাদের গল্পটা সবসময় আড়ালেই থেকে যায়, তাদের কথাও বলার চেষ্টা করেছি আমরা। একান্ত সাক্ষাৎকার নিয়েছি বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের কোচের। বলেছি ইতিহাসের কীর্তিময় ক্লাব কিংবা সেরা খেলোয়াড় - ধারাভাষ্যকারদের গল্প, সাদা-কালো আক্ষেপে নষ্ট হওয়া প্রতিভাদের হাহাকারের কথা। 

     

    ২০১৪ সালের এপ্রিল থেকে আমাদের নিজস্ব ওয়ার্কস্টেশন থেকে করছি আমাদের কাজ। দুর্দান্ত সব ইনফোগ্রাফিক্স দিয়ে পাঠকদের নজরে এসেছি শুরু থেকেই। যেসব পাঠক লিখতেও চান, তাদের জন্য নিয়মিত স্পোর্টস ফিচার লেখার প্রতিযোগিতারও আয়োজন করেছি। পরবর্তীতে এই প্রতিযোগিতার বিজয়ীরা প্যাভিলিয়নের নিয়মিত লেখকও হয়েছেন কেউ কেউ। 

     

    প্যাভিলিয়নের ওয়ার্কস্টেশন

     

     

    ব্রাজিল বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৪-র সময়ে ছিলো আমাদের বিশেষ আয়োজন। প্রকাশিত হয়েছিলো ৮৮ পৃষ্ঠার বিশ্বকাপের বিশেষ ম্যাগাজিন 'অফসাইড'। নিজস্ব প্রযোজনায় বাংলাদেশে বিশ্বকাপ ফুটবলের উন্মাদনা নিয়ে গান চিত্রায়ন করেছিলাম আমরা। অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপের পাশাপাশি আয়োজন করেছিলাম কুইজ প্রতিযোগিতার। 

     

    বিশ্বকাপ ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদ

     

     

    বিশ্বকাপ কুইজের পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান

     

    ২০১৫ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সময়ও ছিলো আমাদের বিশেষ আয়োজন। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বিশ্বকাপ যাত্রা উপলক্ষ্যে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছবি পাঠিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্যাভিলিয়নের পাঠকেরা। ভালোবাসা-মাখানো সেইসব ছবি আমরা তুলে দিয়েছি অধিনায়ক মাশরাফির হাতে। সেবারও বিশ্বকাপ কুইজের পাশাপাশি বিশেষ ম্যাগাজিন 'ইয়র্কার' প্রকাশ করেছি আমরা। 

     

    বিশ্বকাপ ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদ

     

    বাংলাদেশ দলকে শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি বিশ্বকাপ ক্রিকেটে বাংলাদেশের সম্ভাবনা আর প্রত্যাশা জানতে চেয়েছিলো প্যাভিলিয়ন। ভিডিওর মাধ্যমে ক্রিকেটার, অভিনেতা, সংগীতশিল্পী, লেখক, সাধারণ মানুষ সহ নানান বয়স-পেশা-পদমর্যাদার পরিচিত-অপরিচিত অনেকেই জানিয়েছিলেন ২২ গজের লড়াইয়ে ১১ জনকে নিয়ে ১৬ কোটি মানুষের স্বপ্নের কথা! 

     

     

    আমরা শুরু করেছি আমাদের ভিডিও এনালাইসিস সেকশন 'স্পোর্টসমর্টেম'। বিপিএল-র সময় করেছি ছয় দলকে নিয়ে বিশেষ প্রিভিউ 'এক মিনিটে'। ইচ্ছে আছে, এই দুইরকম ভিডিও সেকশন নিয়মিতভাবে করার পাশাপাশি আরো বেশকিছু নতুন আয়োজন পাঠক-দর্শকদের উপহার দেওয়ার! 

     

     

     

    গত বছর প্রায় দেড় লাখ পাঠকের আনাগোনা ছিলো প্যাভিলিয়নের ওয়েবসাইটে। সামনের দিনগুলোতে আমরা চেষ্টা করবো পাঠক-দর্শক-শুভানুধ্যায়ীদের প্রত্যাশা মিটিয়ে নতুন আরো কিছু উদ্যোগ নিতে। কিছুদিন পরেই আসবে প্যাভিলিয়ন ব্লগ, যেখানে পাঠকেরাই থাকবেন লেখক। আপনাদের জন্য নিয়মিত ভিত্তিতে আয়োজন করা হবে কুইজ, পোল কিংবা ফ্যান্টাসি লিগের। আমাদের আশা আছে, সামনের দিনগুলোতে দেশের গন্ডি পেরিয়ে আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলেও প্যাভিলিয়নকে ছড়িয়ে দেয়ার।  

     

    ক্রমশঃ বড় হচ্ছে 'টিম প্যাভিলিয়ন'-ও। চারজন নিয়ে শুরু করে এখন নিয়মিত/অনিয়মিত কন্ট্রিবিউটর, ওয়েব ডেভেলপার, গ্রাফিক্স ডিজাইনার, ভিডিও এডিটর নিয়ে আমরা এখন প্রায় ২০ জনের পরিবার। আপনারাও চাইলে 'টিম প্যাভিলিয়ন'-এর সাথে যোগ দিতে পারেন যেকোনোসময়। আপনাদের অন্য যেকোনো জিজ্ঞাসা বা মূল্যবান মতামত জানাতে আমাদের মেইল করতে পারেনঃ info@pavilion.com.bd এই ঠিকানায়।

     

    বাংলা ভাষায় আন্তর্জাতিক মানের স্পোর্টস প্ল্যাটফর্ম গড়ে তুলতে আপনাদের সর্বাত্মক সহযোগিতাই আমাদের অনুপ্রেরণা।

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন