• ক্রিকেটে করোনাভাইরাস
  • " />

     

    ১০ জুন পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আলোচনা পিছিয়ে দিল আইসিসি

    ‘গোপনীয়তা’র ইস্যু আসার পর বোর্ড মিটিংয়ের সব ধরনের আলোচনা ১০ জুন পর্যন্ত পিছিয়ে দিয়েছে আইসিসি। ফলে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসতে দেরি হবে আরও। এক বিবৃতিতে মিটিং স্থগিতের খবর জানিয়েছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা। 

    কভিড-১৯ মহামারির কারণে ঠিক সময়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হতে পারবে কিনা, সে নিয়ে আলোচনা চলছে বেশ কিছুদিন ধরেই। আইসিসির মেজর এই টুর্নামেন্ট পিছিয়ে দেওয়া হতে পারে, সম্প্রতি আসা এমন খবরকে বুধবার ‘সঠিক নয়’ বলেছিল আইসিসি। বৃহস্পতিবার পিছিয়ে দেওয়া হলো সে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আলোচনাই। 

    ২০২০ সালের অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় হওয়ার কথা ছেলেদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট ‘বেশ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যাবে’, ক্রিকইনফোকে এমন বলেছিলেন এক বোর্ড কর্মকর্তা। তাদের মতে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পিছিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশ জোরালো। 

    বৃহস্পতিবার আরেক দফা টেলিকনফারেন্সে বসেছিল আইসিসি, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা ছিল সেখানে। আইসিসির পরবর্তী চেয়ারম্যান, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সূচিও আলোচনার বিষয়বস্তু হওয়ার কথা ছিল। তবে সেখানেই আনা হয়েছে গোপনীয়তার ব্যাপারটি। বিবৃতিতে আইসিসি বলেছে, সম্প্রতি গোপনীয়তার ইস্যুটি সামনে এনেছেন কিছু বোর্ডের প্রতিনিধি। এ ব্যাপারে সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রণ যাতে থাকে, সে ব্যাপারে কথা বলেছেন তারা। 

    বিষয়টি খতিয়ে দেখতে স্বতন্ত্র একটি তদন্ত করা হবে বলে জানিয়েছে আইসিসি। ১০ জুন এ ব্যাপারে আপডেট জানবে আইসিসির প্রধান নির্বাহীর বোর্ড। 

    “কভিড-১৯ এর কারণে জনস্বাস্থ্যের ব্যপক পরিবর্তনের ফলে বিকল্প উপায় নিয়ে আলোচনা অব্যাহত রাখার জন্য আইসিসি ম্যানেজমেন্টকে অনুরোধ করা হয়েছে বোর্ডের পক্ষ থেকে”, বিবৃতিতে জানানো হয়েছে এমন।   

    এদিকে ২০২০-২১ মৌসুমে নিজেদের গ্রীষ্মের আন্তর্জাতিক সূচি প্রকাশ করেছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজক অস্ট্রেলিয়া। আগস্ট মাসেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরছে সেখানে, ভারতের ৪ টেস্ট ও সীমিত ওভারের সিরিজও আছে যেখানে। 
     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন