• ক্রিকেটে করোনাভাইরাস
  • " />

     

    নির্ধারিত সময়ে হবে মেয়েদের বিশ্বকাপ?

    ছেলেদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ স্থগিতের সিদ্ধান্ত টুর্নামেন্টের মাসদুয়েক আগে নিয়েছে আইসিসি। পরের বছর ফেব্রুয়ারি-মার্চে মেয়েদের ওয়ানডে বিশ্বকাপ নিয়ে ‘চূড়ান্ত’ সিদ্ধান্ত আসেনি এখনও। তবে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের চেয়ারম্যান গ্রেগ ব্রার্কলে বলছেন, সে সিদ্ধান্ত সপ্তাহদুয়েকের ভেতরই আসবে। তবে সে বিশ্বকাপ আয়োজন এ বছর সম্ভব বলেও মনে করেন তিনি। 

    সোমবার অস্ট্রেলিয়ায় হওয়ার কথা ছেলেদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে আইসিসি, পরের বছরের অক্টোবর-নভেম্বর পর্যন্ত পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে এ টুর্নামেন্ট। আর মেয়েদের বিশ্বকাপ নির্ধারিত সময়ে আয়োজনের পরিকল্পনা আছে এখন পর্যন্ত, এমন জানিয়েছে তারা। সূচি অনুযায়ী, ৬ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে মার্চের ৭ মার্চ হওয়ার কথা এর ফাইনাল।  

    কভিড-১৯ মহামারির সঙ্গে লড়াইয়ে নিউজিল্যান্ড এখন পর্যন্ত বেশ সফল। তবে একাধিক দলকে একত্র করা, ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞার মতো বেশ কয়েকটি চ্যালেঞ্জ থেকেই যায়। এখনও নিজেদের সীমানা আন্তর্জাতিক সফরের জন্য খুলে দেয়নি দেশটি। অবশ্য সামনের শীতে মাঠে দর্শক প্রবেশের অনুমতি দিচ্ছে তারা। 

    বার্কলে রেডিও নিউজিল্যান্ডকে বলেছেন, সপ্তাহদুয়েকের মাঝেই সিদ্ধান্ত হওয়া উচিৎ এ নিয়ে, “যদি স্থগিত হয়, তাহলে দেরি না করে দ্রুতই জানতে হবে আমাদের। এ টুর্নামেন্ট হলেও আমাদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হবে, যাতে করে ফেব্রুয়ারিতে আমরা বিশ্বমানের একটা আয়োজনের জন্য আমাদের সবকিছু নিয়ে এগিয়ে যেতে পারি। 

    “কীভাবে দলগুলি বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে আসবে, অন্যসব দেশ পেরিয়ে আসবে, এসব ভেবে দেখতে হবে। এরপর হয়তো তাদের কোয়ারান্টাইন করাতে হবে, এবং এ সবকিছুর জন্য খরচ ও বাজেটের ব্যাপার আছে। ফেব্রুয়ারিতে এসব করা সম্ভব অবশ্য।” 

    কিন্তু এ টুর্নামেন্ট আয়োজনের সিদ্ধান্ত হলেও এর আগে আইসিসিকে করতে হবে বাছাইপর্ব। জুলাইয়ে শ্রীলঙ্কায় সেটি হওয়ার কথা ছিল, তবে এরই মাঝে স্থগিত হয়ে গেছে সেটি। ক্রিকইনফো বলছে, নভেম্বরের শেষদিকে আরব আমিরাতে হতে পারে এখন সেটি। 

    বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে খেলার কথা বাংলাদেশেরও, এর আগে ওয়ানডে বিশ্বকাপে কখনোই খেলেনি বাংলাদেশের মেয়েরা। 


     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন