• পাকিস্তানের ইংল্যান্ড সফর ২০২০
  • " />

     

    অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টিতে ফিরলেন বাটলার, আর্চার, উড

    অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডেতে ইংল্যান্ড স্কোয়াডে ফিরেছেন জস বাটলার, জফরা আর্চার, মার্ক উড। এর আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে ‘বায়ো-সিকিউর’ বলয়ে থাকায় এরা ছিলেন না আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে ও পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজেও। এদের সঙ্গে দুই ফরম্যাটেই ডাক পেয়েছেন স্যাম কারানও। 

    ওয়ানডেতে ডাক পেলেও টি-টোয়েন্টিতে পাননি ইংল্যান্ডের টেস্ট অধিনায়ক জো রুট। গত বছরের মে মাসে শেষ আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলেছিলেন তিনি। পরের বিশ্বকাপকে সামনে রেখে এ ফরম্যাটেও ফিরতে চান, সম্প্রতি এমন জানিয়েছিলেন রুট। শুরুটা ভালও হয়েছিল তার, বেশ লম্বা বিরতির পর টি-টোয়েন্টি ব্লাস্টে ফিরে ইয়র্কশায়ারের হয়ে বড় জয়ের ম্যাচে ফিফটির সঙ্গে ২ উইকেটও নিয়েছেন তিনি রবিবার। তবে এখনই তাকে এই ফরম্যাটে বিবেচনা করা হয়নি। রুটের মতো শুধু ওয়ানডেতে ফিরেছেন ক্রিস ওকসও। 

    দুই ফরম্যাটের একটিতেও নেই জেসন রয়। চোটের কারণে পাকিস্তান সিরিজ থেকে ছিটকে গেছেন তিনি, সম্প্রতি আইপিএল থেকেও নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন এই ডানহাতি ওপেনার। তবে দলের সঙ্গেই থাকবেন তিনি বায়ো-সিকিউর বলয়ের মাঝে, ইসিবির আশা, এর মাঝে নিজের ফিটনেস প্রমাণ করতে পারবেন তিনি। 
     


    আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ধারাবাহিক পারফরম্যান্সের পর দুই স্কোয়াডেই জায়গা ধরে রেখেছেন স্যাম বিলিংস। অফফর্মে থাকা মইন আলিকেও দুই ফরম্যাটের জন্যই বিবেচনা করা হয়েছে। আছেন আলো ছড়ানো টম ব্যান্টনও। 

    পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ফিফটি করা ডাভিড মালান আছেন এই ফরম্যাটে। এ সিরিজের দুই ম্যাচের একটিতেও এখন পর্যন্ত একাদশে সুযোগ না পেলেও আছেন জো ডেনলি। তিনি ওয়ানডেতে আছেন রিজার্ভ হিসেবে। 

    তবে উড-আর্চারকে জায়গা করে দিতে সরে যেতে হয়েছে সাকিব মাহমুদকে। দুই ফরম্যাটেই রিজার্ভ হিসেবে দলের সঙ্গে থাকবেন তিনি। টি-টোয়েন্টিতে আরেকজন রিজার্ভ লিয়াম লিভিংস্টোন। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দারুণ পারফরম্যান্সের পরও জায়গা হারিয়েছেন ডেভিড উইলি। গত বিশ্বকাপে জফরা আর্চারকে জায়গা করে দিতে হয়েছিল তার, ফিরে আসার পর এবার বাদ পড়লেন আবারও। 

    সামনের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপগুলির দিকে নজর রেখে এ সিরিজের দল দেওয়া হয়েছে, জানিয়েছেন জাতীয় নির্বাচক এড স্মিথ, “গ্রীষ্মের একটা রোমাঞ্চকর শেষ হবে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এই দুই সিরিজ দিয়ে। আমরা শক্তিশালি স্কোয়াড দিয়েছি। সামনের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপগুলির প্রস্তুতির জন্য আমরা স্কোয়াডের শক্তিমত্তা বাড়ানোর কাজ করছি।” 

    ৪ থেকে ৮ সেপ্টেম্বর সাউদাম্পটনে তিনটি টি-টোয়েন্টি পর ওল্ড ট্রাফোর্ডে ১১-১৬ তারিখে তিনটি ওয়ানডে খেলবে দুই দল। সবগুলি ম্যাচই হবে দর্শকশূন্য মাঠে। 


    অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড
    অইন মরগান, মইন আলি, জফরা আর্চার, জনি বেইরস্টো, টম ব্যানটন, স্যাম বিলিংস, জস বাটলার, স্যাম কারান, টম কারান, জো ডেনলি, ক্রিস জর্ডান, ডাভিড মালান, আদিল রশিদ, মার্ক উড

    অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের ওয়ানডে স্কোয়াড 
    অইন মরগান (অধিনায়ক), মইন আলি, জফরা আর্চার, জনি বেইরস্টো, টম ব্যানটন, স্যাম বিলিংস, জস বাটলার, স্যাম কারান, টম কারান, আদিল রশিদ, জো রুট, ক্রিস ওকস, মার্ক উড

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন