• রিও অলিম্পিক ২০১৬
  • " />

     

    অলিম্পিকেও ব্রেন্ডন স্টার্ক!

    অলিম্পিকের হাইজাম্পের কোয়ালিফাইয়িং রাউন্ড। অস্ট্রেলিয়া দলের ব্রেন্ডন স্টার্ক নামের এক প্রতিযোগী ট্র্যাকে নামলেন, এরপর থেকেই সামাজিক মাধ্যমগুলোতে তাঁকে নিয়ে টুইট, পোস্টের ছড়াছড়ি। কিন্তু কী এমন করলেন তিনি?

    ‘ব্রেন্ডন স্টার্ক’ নামটি শুনলে প্রথমেই সবার মাথায় আসবে জনপ্রিয় টিভি সিরিয়াল গেম অফ থ্রোনসের একটি চরিত্রের কথা। স্টার্ক পরিবারের একজন সদস্য সে, মূল চরিত্র জন স্নো’র সৎ ভাই। সিরিয়ালের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এই চরিত্রটির সাথে হুবহু মিলে গেছে ২২ বছর বয়সী অজি হাই জাম্পারের নাম, রাতারাতি তাঁরও নাম ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বব্যাপী।

    তাঁকে নিয়ে টুইট করেছেন অনেক অভিনেতা-অভিনেত্রীরা। তাদের সবার টুইটেই উঠে এসেছে সিরিয়ালের সাথে নামের মিল থাকার ব্যাপারটা। সিরিয়ালের চরিত্রটি বর্তমানে পঙ্গু অবস্থায় আছে, এটি নিয়ে বলেছেন গায়ক ব্রিট উইডলি, “তাঁকে আবার হাঁটতে দেখে দারুণ লাগছে!!”

    অস্ট্রেলিয়া দলের অন্য অ্যাথলেটরা তাঁর নাম ব্যবহার করার সময় ‘হাউজ অফ স্টার্ক’ হ্যাশট্যাগ দিচ্ছে, যেটি সিরিয়ালের ভক্তদের একটি বহুল ব্যবহৃত একটি শব্দ। এমনকি অ্যাথলেটিকস অস্ট্রেলিয়াও তাদের পোস্টগুলোতে এই হ্যাশট্যাগ দিচ্ছে।

     

     

    ব্রেন্ডন স্টার্কের কিন্তু আরেকটি পরিচয়ও আছে। তিনি অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের ফাস্ট বোলার মিচেল স্টার্কের ছোট ভাই। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে দারুণ পারফর্ম করা এই খেলোয়াড় নিজের ভাইয়ের অলিম্পিকে খেলার ব্যাপারে গর্বিত, “অলিম্পিকের সোনার লড়াইয়ে সুযোগ পাওয়ার জন্য অভিনন্দন। আমি গর্বিত বোধ করছি।”

    তবে শেষ পর্যন্ত পদক পাননি ব্রেন্ডন। হাই জাম্পের ফাইনাল রাউন্ডে দশম অবস্থানে থেকে প্রতিযোগিতা শেষ করেছেন স্টার্ক।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন