• ইংল্যান্ড-পাকিস্তান
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    ইংল্যান্ডের বিশ্বরেকর্ড

    দশ বছর আগে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে দলীয় সর্বোচ্চ রানের স্কোর ছিল শ্রীলঙ্কার। ওয়ানডে ক্রিকেট আরও ১৩ বার চারশ পেরুনো স্কোর দেখেছে এরপর। তবে লঙ্কানদের সেই রেকর্ডটা ছিল অক্ষত। অবশেষে সেই রেকর্ডকে হটিয়ে দিল ইংল্যান্ড। ট্রেন্টব্রিজে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডের প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ড করেছে ৩ উইকেটে ৪৪৪ রান।

    ইংল্যান্ডের ইনিংসে সবচেয়ে বড় অবদানটা রেখেছেন অ্যালেক্স হেলস। ১৯৯৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে করা রবিন স্মিথের ১৬৭ রানটে টপকে হেলসের ১৭১ রানই এখন কোনো ইংলিশ ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ স্কোর। আর ট্রেন্টব্রিজে কোনো ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ স্কোর ছিল অ্যান্ড্রু স্ট্রাউসের। ২০০৯ সালে ১৫২ রানের ওই ইনিংস ছিল বাংলাদেশের বিপক্ষে। হেলস মুছে দিলেন ওই রেকর্ডও।  

     

     

    জো রুট পেয়েছেন ওয়ানডেতে টানা পঞ্চম ফিফটি; করেছেন ৮৫। জস বাটলার করেছেন ৫১ বলে ৯০, আর অধিনায়ক এউইন মরগান করেছেন ২৭ বলে ৫৭ রান।

    ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যানদের তোপে পড়েছেন অনুমিতভাবেই পাকিস্তানের সব বোলারই। তবে সবচেয়ে দীর্ঘক্ষণ ধরে ও লম্বা ঝড়টা গেছে ওয়াহাব রিয়াজের উপর দিয়ে। অল্পের জন্য অস্ট্রেলিয়ান পেসার মিক লুইসের এক ইনিংসে সবচেয়ে বেশী রান দেয়ার রেকর্ডটা ভাঙ্গা হয়নি ওয়াহাবের। লুইস দিয়েছিলেন ১১৩ রান, দশ ওভারে। সমান ওভারে রিয়াজ দিয়েছেন ১১০ রান। 

    পরে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তানকে অসম্ভবের আশা দেখাচ্ছিলেন শারজিল খান। কিন্তু ৩০ বলে ৫৮ রান করে আউট হয়ে গেছেন এই বাঁহাতি ওপেনার। শেষ দিকে মোহাম্মদ আমির ২২ বলে ফিফটি করে একটু লড়াই করেছিলেন। কিন্তু সেটা শুধু ব্যবধানটাই কমিয়েছে, পাকিস্তান ম্যাচটা হেরেছে ১৬৯ রানে। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন