• পাকিস্তান-ওয়েস্ট ইন্ডিজ
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    উইন্ডিজের শেষ বিকেলের আক্ষেপ

    ইয়াসির শাহর অফ স্ট্যাম্পের বাইরে ফেলা বলটা কাভারে আলতো করে ঠেলে দিয়েই রানের জন্য ছুটলেন ক্রেইগ ব্রাফেট। কিন্তু দেবেন্দ্র বিশু ওপ্রান্তে ঠায় দাঁড়িয়ে। ভুলটা যতক্ষণে বুঝতে পেরেছেন, পিচের মাঝামাঝি চলে গেছেন ব্রাফেট। অসহায় চোখে চেয়ে দেখলেন তাঁর উইকেট উপড়ে ফেলে সরফরাজদের উল্লাস। শেষ ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ভালোই লড়াই করছিলেন ড্যারেন ব্রাভো, মারলন স্যামুয়েলসরা। কিন্তু থিতু হওয়ার পর অসময়ে তাঁদের ফিরে আসার পথ অনুসরণ করলেন ব্রাফেটও, ২ উইকেটে ১০৬ থেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করলো ৪ উইকেটে ১০৬ রান নিয়ে!

     

    এর আগে ৪ উইকেটে ৩০৪ রান নিয়ে দিনের খেলা শুরু করে পাকিস্তান। ক্যারিয়ারের একাদশ টেস্ট শতক থেকে মাত্র ৪ রান দূরে থেকে ফিরে যান অধিনায়ক মিসবাহ-উল-হক। এরপর সরফরাজের অর্ধ-শতকের (৫৬) সুবাদে অলআউট হওয়ার আগে পাকিস্তানের স্কোরবোর্ডে ওঠে ৪৫২ রান।

     

     

    শেষ সেশনে ব্যাট করতে নেমে সতর্ক শুরুই করেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জনসনকে রাহাত আলী এলডব্লুর ফাঁদে ফেলার পর ব্রাভো-ব্রাফেট সামলেই নিয়েছিলেন। ৪৩ রান করে ইয়াসির শাহর বলে এলবিডব্লু হয়ে ফেরেন ব্রাভো। এরপর দিনের শেষ ওভারের আগের ওভারে রাহাত আলীর বলে স্লিপে ক্যাচ তুলে ফিরে যান স্যামুয়েলস (৩০)। পরের ওভারেই ব্রাফেট-কান্ড। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দিনটা শেষ করলো হতাশা নিয়েই।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন