• আইসিসি টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০১৬
  • " />

     

    টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ভবিষ্যত দেখছেন না গেইল

    এ বছর ভারতের টি২০ বিশ্বকাপে শিরোপা জিতেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, স্বল্পদৈর্ঘ্যের এই বিশ্ব আসরে দুবার শিরোপা জিতে সফলতম দলও ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জের ক্রিকেট প্রতিনিধিরা। কিন্তু গত কয়েক বছর ধরেই টেস্ট ক্রিকেটে দারুণ খরার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে দলটি। দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেটে নিজেদের স্বর্ণালী দিন ফিরিয়ে আনাটা বড্ড কঠিন হবে এমনটাই ভাবছেন ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় তারকা ক্রিস গেইল। 

    শেষ দুই টেস্ট সিরিজে নিজেদের মাটিতে ভারতের কাছে আর আবুধাবিতে পাকিস্তানের সাথে হেরেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। চলমান দশকে মাত্র ১২ বার জয়ের মুখ দেখেছে ক্যারিবিয়ানরা, মোট ৫৭ টেস্টে পরাজয় ২৯টি, বাকি ১৬ ম্যাচ হয়েছে ড্র।গেইল নিজেই যে ১০৩টি টেস্ট খেলেছেন, তার মধ্যে জিতেছেন মাত্র ২৫টিতে। গলদটা ঠিক কোথায় হচ্ছে? 

     

     

    নিকট ভবিষ্যতে এই অবস্থা থেকে উত্তরণের পথ দেখছেন না দুটি ট্রিপল সেঞ্চুরিসহ ১০৩ টেস্টে ৭২১৪ রান করা এই ওপেনার, "ওয়েস্ট ইন্ডিজের টেস্টে আগের সেই গৌরব ফিরিয়ে আনা কঠিন  আধুনিক ক্রিকেটের কাঠামোটাই এমন, সংক্ষিপ্ত সংস্করণে তরুণরা আরও বেশি উৎসাহিত হবেই। বড় সংস্করণে আপনাকে আরও বেশি মনযোগ দিতে হবে। ধারাবাহিকতার জন্য আরও বেশি সুশৃঙ্খল হতে হবে।" 

    তবে বাস্তবতাও মেনে নিচ্ছেন তিনি। দিনশেষে ক্রিকেট কেবল একটা বিনোদনের মাধ্যম, টি২০ ক্রিকেট টিভি কভারেজ আর বিনোদনের জন্য দারুণ মানানসই, তাই বেশিরভাগ ক্রিকেটারই এদিকে ঝুঁকবে, এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু প্রত্যেক খেলোয়াড়-কর্মকর্তা সবারই দায়িত্ব ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার। সবাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে খেলতে চায়, কিন্তু সেজন্য শক্ত ক্রিকেট কাঠামো নির্মাণ করা জরুরী।

    শেষবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের জার্সি চাপিয়েছেন মার্চের টি২০ বিশ্বকাপে। তবে দেশের পক্ষে খেলতে আশাবাদী গেইল শুধু টি২০ নয়, একদিনের ক্রিকেটেও ফেরার জন্য তৈরি করছেন নিজেকে। আর পাখির চোখ বানিয়েছেন ২০১৯ বিশ্বকাপকে। ঐ টুর্নামেন্ট খেলেই অবসরে যাবার ইচ্ছে আধুনিক ক্রিকেটের এই মহাতারকার।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন