• ক্রিকেট

'ভারতই বেশি চাপে আছে '

চন্ডিকা হাথুরুসিংহে আগের দিন এসে বলে গিয়েছিলেন, ভারতের সঙ্গে সেমিফাইনাল তাঁর কাছে আর দশটা ম্যাচের মতোই। আলাদা করে প্রস্তুতি নেওয়ার কিছু দেখছেন না। বাংলাদেশ দলে যে ওই আবহটাই ছড়িয়ে আছে সেটা এবার আরেকটু খোলাসা করলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। এই ম্যাচটা নকআউট হিসেবে না ভেবে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হিসেবে দেখছে, জানিয়ে দিলেন সেটাও।

নিউজিল্যান্ড ম্যাচের আগেই মাশরাফি বলেছিলেন, চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে সেমিফাইনালে খেলার কথা খুব কম লোকই ভেবেছিলেন। শেষ চারে ওঠার পর মনে করিয়ে দিলেন, বাংলাদেশে দলের সবাই বেশ রোমাঞ্চিত। তবে বাড়তি কোনো স্নায়ুচাপ নেই কারোরই, ‘আমরা শুরু থেকেই ম্যাচ ধরে এগুনোর পরিকল্পনা করছিলাম। প্রতিটা ম্যাচ তো আমরা অবশ্যই জয়ের জন্য খেলছি। তবে আমাদের প্রথম কাজ হচ্ছে নির্ভার থাকা।’

কিন্তু চাপ শব্দটা কালকের ম্যাচের আগে ঘুরেফিরে আসছেই। প্রথমবারের মতো সেমিফাইনালে বাংলাদেশ, সেটা কি বাড়তি কোনো চাপ নয়? মাশরাফি বরং মনে করিয়ে দিলেন, ‘আমার তো মনে হয় আমাদের চেয়ে ভারতই অনেক বেশি চাপে আছে। ওদের সমর্থক অনেক বেশি। আমরা তো কেবল প্রথম সেমিফাইনাল খেলছি।’ কিন্তু ভারতের সঙ্গে দুই বছর আগে বিশ্বকাপের ওই ম্যাচের পর কালকের ম্যাচটা কি আগুনে বাড়তি ঘি ঢেলে দিচ্ছে? মাশরাফি বরং পানি ঢেলে সেই আগুন নিভিয়েই দিলেন, ‘দেখুন এ ধরনের টুর্নামেন্টে যত আপনি ওপরের দিকে যাবেন ততই এ ধরনের ম্যাচ বেশি আসবে। ভারতের মতো প্রতিপক্ষের মুখোমুখিও আপনি তত বেশি হবেন। এখানে আপনার কাউকে বেছে নেওয়ার সুযোগ নেই। আর আমি আগেও বলেছি, এই ম্যাচটা নকআউট ম্যাচ হিসেবে দেখছি না। বরং দ্বিপাক্ষিক সিরিজ মনে করে খেলতে হবে। দিন শেষে এটা শুধু একটা খেলাই।’

কিন্তু মাঠের বাইরে যে আলাদা একটা উত্তাপ ছড়াচ্ছে সে ব্যাপারে কী মনে করেন মাশরাফি? বাংলাদেশ অধিনায়ক ওসব নিয়ে মাথাই ঘামাতে চাইলেন না, ‘প্রথমত এসব তো খেলোয়াড়দের নিয়ন্ত্রণের বাইরে থাকে, এটা আমাদের কারোরই কাম্য না। দিন শেষে শুধু এটা একটা খেলা। আর আমি এখান থেকে বললে কাজ হবে না। সব থেকে ভালো বাইরে কী হচ্ছে সেদিকে একেবারেই মন না দেওয়া, নিজের কাজটা ভালোমতো করা। এর বাইরে আসলে কিছু করারও নেই।