• ক্রিকেট

'অনেকেই ভাবেননি পাকিস্তান ভারতকে হারিয়ে দেবে!'

র‍্যাঙ্কিংয়ের আট নম্বর দল হিসেবে টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছিল দল। বিশ্লেষকরা তো বটেই, খোদ পাকিস্তান অধিনায়কও নিজেদের সাফল্য নিয়ে খুব একটা আশার বানী শোনাননি। ভারতকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শিরোপা জেতার পর সরফরাজ আহমেদ বলছেন, অনেকেই কল্পনাতেও ভাবেননি পাকিস্তান ভারতকে হারিয়ে দেবে।

 

গ্রুপ পর্বে ভারতের বিপক্ষে পরাজয়ের পর পরবর্তী ম্যাচগুলো ছিল পাকিস্তানের জন্য ‘নকআউট’। একে একে দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলংকাকে হারিয়ে সেমিতে ওঠে তাঁরা। সেমিতে ‘ফেভারিট’ ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দেয় সরফরাজের দল। সরফরাজ বলছেন, ফাইনালে তাঁদের জয়ের আশা করেননি বেশিরভাগ মানুষই, “আনন্দ প্রকাশের কোনো ভাষা আমার জানা নেই। প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে পরাজয়ের পর মানসিকভাবে অনেকটাই দুর্বল হয়ে পড়েছিল দল। টিম ম্যানেজমেন্টকে ধন্যবাদ দিতে চাই আমাদের পাশে থাকার জন্য। কেউ ভাবেনি আমরা এরকম পারফর্ম করতে পারি! বহু মানুষের ধারণা ছিল, আমরা ভারতকে হারাতেই পারব না। কিন্তু আমরা দারুণ খেলে সবাইকে ভুল প্রমাণ করেছি।”

 

জয়ের কৃতিত্বটা দলের তরুণ ক্রিকেটারদেরই দিলেন সরফরাজ, “দলের ক্রিকেটাররা যেভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে সেটা দারুণ। দ্বিতীয় ম্যাচ থেকে প্রতিটাই আমাদের জন্য একরকম নকআউট ছিল। আমরা অনেক শক্তিশালী দলকে হারিয়েই ফাইনালে উঠেছি। হাসান আলি, শাদাব খান, ফখর জামানের মতো তরুণরা প্রথমবারের মতো বড় কোন টুর্নামেন্টে খেলতে এসেছে। তাঁদের পারফরম্যান্স এক কথায় অসাধারণ ছিল।”