• পাকিস্তান-শ্রীলংকা সিরিজ
  • " />

     

    পাকিস্তানে সেরা দলই পাঠাতে চায় শ্রীলংকা

     

    ২০০৯ সালের সন্ত্রাসী হামলার সেই দুঃস্মৃতি হয়ত এখনো ভুলতে পারেননি শ্রীলংকার ক্রিকেটাররা। পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টি লাহোরে খেলতে হবে, বোর্ডের এরকম সিদ্ধান্তের সাথে তাই কিছুতেই একমত হতে পারছেন না থারাঙ্গা-চান্দিমালরা। গতকাল ৪০ জন লংকান ক্রিকেটার পাকিস্তানে খেলতে না যাওয়ার ব্যাপারে শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ডকে চিঠিও দিয়েছেন। এবার বোর্ড প্রধান থিলাঙ্গা সুমাথিপালা বলছেন, পাকিস্তানের সেরা দলই পাঠাবে শ্রীলংকা।

    সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রথম দুই ম্যাচের পর ২৯ অক্টোবর লাহোরে শেষ টি-টোয়েন্টি আয়োজিত হবে। এতদিন পর্যন্ত এই ব্যাপারে কোনো মন্তব্য না করলেও শেষ মুহূর্তে এসে বেঁকে বসেছেন লংকান ক্রিকেটাররা। সুমাথিপালা অবশ্য শঙ্কার কোনো কারণ দেখছেন না, “দলের ক্রিকেটাররা ভেন্যু পরিবর্তনের ব্যাপারে বোর্ডের কাছে চিঠি দিয়েছেন। আমরা এটা নিয়ে সোমবার বোর্ড সভায় আলোচনা করব। আমি তাদের দুশ্চিন্তাটা বুঝি। এটা আমাদের দায়িত্ব পরিস্থিতি বুঝে পদক্ষেপ নেওয়া। আইসিসিও তাদের প্রতিনিধি দল পাঠিয়েছে পাকিস্তানে, তারাও সবকিছু নিয়ে সন্তুষ্ট। পিসিবিও সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেওয়ার ব্যাপারে আশ্বস্ত করেছে। তবুও আমরা আরেক দফায় প্রতিনিধি দল পাঠাবো।”

    পাকিস্তানে হতে যাওয়া শেষ টি-টোয়েন্টির জন্য সেরা দলই পাঠানোর কথা জানালেন সুমাথিপালা, “যদি সবকিছু ঠিকঠাক থাকে তাহলে আমরা সেরা দলই পাঠাবো। তিন ম্যাচের জন্য দল ঘোষণা করা হবে। আরব আমিরাতে এক দল খেলবে আর পাকিস্তানে আরেক দল, এটা হতে পারে না। ক্রিকেটাররা ভেন্যু নির্ধারণ করতে পারেন না। আমি সংসদ সদস্য হলেও তাদের সাথে আরব আমিরাত ও পাকিস্তানে যাবো সফরের সময়।”

    নিরাপত্তার কোনো কমতি হবে না, এই ব্যাপারে লংকান ক্রিকেটারদের আশ্বস্ত করছেন সুমাথিপালা, “ওই হামলা অবশ্যই আমাদের ক্রিকেটারদের জন্য ভয়াবহ একটা স্মৃতি। কিন্তু ক্রিকেটারদেরও এটা বুঝতে হবে যে আমরা তাদের বিপদের মাঝে ফেলব না। পিসিবি তাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে। পাকিস্তানের পাশে ক্রিকেট বিশ্বের দাঁড়ানোর সময় এসেছে। আশা করি সব ভালোভাবেই এগোবে।”

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন