• পাকিস্তান-শ্রীলংকা সিরিজ
  • " />

     

    ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় হারল শ্রীলংকা

     

    সংক্ষিপ্ত স্কোর

    শ্রীলংকা ৪৩.৪ ওভারে ১৭৩ ( থিরিমানে ৬২, হাসান আলি ৩/ ৩৭)

    পাকিস্তান ৩৯ ওভারে ১৭৭/৩ ( বাবর আজম ৬৯*,  শোয়েব মালিক ৬৯*)

    ফলাফল- পাকিস্তান ৭ উইকেটে জয়ী

    ম্যান অফ দা ম্যাচ- বাবর আজম

     

    সিরিজ হাতছাড়া হয়েছে আগের ম্যাচেই। শারজাহতে জয় তুলে নিয়ে সিরিজে ধবলধোলাইয়ের আশংকা থেকে বাঁচবার একটা সুযোগ ছিল শ্রীলংকার সামনে। তবে ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় পাকিস্তানের কাছে ৭ উইকেটে হেরেছে উপুল থারাঙ্গার দল। এই নিয়ে টানা ১১ ওয়ানডেতে পরাজয়ের মুখ দেখল লংকানরা। পরের ম্যাচে হারলেই টানা দুই সিরিজে ধবলধোলাইয়ের স্বাদ পেতে হবে তাদের।

     

    ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়েছে শ্রীলংকা। পুরো সিরিজে দারুণ ব্যাটিং করা থারাঙ্গা কাল ফেরেন কোনো রান না করেই। নিরোশান ডিকভেলা, দিনেশ চান্দিমাল, মিরিন্ডা সিরিবর্ধনে; ক্রিজে টিকে থাকতে পারেননি কেউই। জুনাইদ খান, হাসান আলিদের বোলিং তোপে কোনো জুটিই পাকিস্তানকে দুশ্চিন্তায় ফেলতে পারেনি। গতদিন ৫ উইকেট তুলে নেওয়া হাসান কাল নিয়েছেন ৩ উইকেট।

     

    স্রোতের বিপরীতে ছিলেন শুধুমাত্র একজনই। সতীর্থদের আসা যাওয়ার মিছিলে একপ্রান্ত আগলে রেখে লড়ে গেছেন লাহিরু থিরিমানে। ৯৯ রানে ৭ উইকেট হারানো লংকানদের স্কোরকে একটু ‘ভদ্রস্ত’ লেগেছে তাঁর কল্যাণেই। শেষের দিকে আকিলা দনঞ্জয়া ও সুরাঙ্গা লাকমলকে নিয়ে দারুণ দুই জুটি গরে দলের স্কোর নিয়ে গেছেন দেড়শর ওপরে। আহামরি না হলেও কিছুটা লড়াইয়ের পুঁজি পান লংকান বোলাররা।

     

    ১৭৪ রানের লক্ষ্যটা তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি পাকিস্তানেরও। আগের ম্যাচে অভিষেকেই সেঞ্চুরি পাওয়া ইমাম-উল-হক এদিন ফিরেছেন মাত্র ২ রান করেই। ৫৮ রানের মাঝেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন ফখর জামান ও মোহাম্মদ হাফিজও।

     

    টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে কিছুটা চাপে পড়া পাকিস্তানকে জয়ের দিকে নিয়ে যায় বাবর আজম- শোয়েব মালিক জুটি। লংকান বোলারদের সামলেছেন দারুণভাবেই। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা বাবর আজম তুলে নেন হাফ সেঞ্চুরি, ফিফটি করেচেন মালিকও। দুজন এরপর আর কোনো বিপদ হতে দেননি, দুজনই শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন ৬৯ রানে। তাদের ব্যাটিং দৃঢ়তায় ১১ ওভার হাতে রেখে সহজ জয় পায় সরফরাজের দল।





     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন