• ফুটবল

ফারল্যান্ড মেন্ডি- জীবনযুদ্ধে হার না মানা এক সৈনিক

পোস্টটি ১২৯৭ বার পঠিত হয়েছে
'আউটফিল্ড’ একটি কমিউনিটি ব্লগ। এখানে প্রকাশিত সব লেখা-মন্তব্য-ছবি-ভিডিও প্যাভিলিয়ন পাঠকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিজ উদ্যোগে করে থাকেন; তাই এসবের সম্পূর্ণ স্বত্ব এবং দায়দায়িত্ব লেখক ও মন্তব্য প্রকাশকারীর নিজের। কোনো ব্যবহারকারীর মতামত বা ছবি-ভিডিওর কপিরাইট লঙ্ঘনের জন্য প্যাভিলিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গ হলেই কেবল সেই অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।

ফারল্যান্ড মেন্ডি ১৯৯৫ সালের ৮ ই জুন ফ্রান্সে জন্মগ্রহণ করেন। এই ফ্রেঞ্চ লেফটব্যাক বর্তমানে আছেন স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদে। এ মৌসুমেই রিয়ালে এসে দারুণ পারফরম্যান্সে মুগ্ধ করেছেন সবাইকে। কিন্তু এক দশক আগেও মেন্ডির পৃথিবীটা এত সুন্দর ছিল না....

নয় বছর বয়সে আইডল রোনালদিনহোকে দেখে পিএসজির একাডেমিতে ভর্তি হন মেন্ডি, হতে চেয়েছিলেন রোনালদিনহোর মতই। কিন্তু রক্ষণে মেন্ডির দৃঢ়তার কারণে লেফটব্যাক হিসেবে খেলার পরামর্শ দেন পিএসজির যুবদলের এক কোচ। কিন্তু ১৪ বছর বয়সে হিপ আর্থ্রাইটিসে আক্রান্ত হন মেন্ডি। তিন মাসের জন্য পড়ে থাকতে হয় হিপ প্লাস্টার। চিকিৎসা করাতে গিয়ে এক বছরের জন্য ফুটবল থেকে বাইরে চলে যেতে হল তাকে। হাসপাতালের ডাক্তার বলেছিলেন আর কখনোই স্বাভাবিকভাবে হাঁটতে পারবেন না মেন্ডি, ফুটবল খেলা ত আরো দূরের কথা। কিন্তু মেন্ডি হাল ছাড়েন নি। সুস্থ হয়ে আবারো ফিরেছিলেন মাঠে।

কিন্তু পিএসজিতে আর জায়গা পেলেন না। চতুর্থ বিভাগের ক্লাব এফসি মাঁতোয়াতে চলে যেতে হল মেন্ডিকে, বয়স তখন কেবল ১৭। সম্ভবত সেখান থেকেই শুরু হল মেন্ডির ঘুরে দাঁড়ানোর গল্প। কয়েক বছর যোগ দিলেন দ্বিতীয় বিভাগের ক্লাব লে হাভ্রেতে। হাভ্রেতে অসাধারণ পারফরম্যান্সের সুবাদে পরের বছর ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানের ক্লাব অলিম্পিকে লিওঁ সাইন করালো মেন্ডিকে। লিওঁতে গত মৌসুমটা দুর্দান্ত কাটিয়ে নজর কাড়েন স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদের। প্রায় ৫৩ মিলিয়ন ইউরোতে মেন্ডিকে দলে ভেড়ায় গ্যালাক্টিকোরা।

রিয়ালে প্রথম মৌসুমটাও দুর্দান্ত কাটাচ্ছেন। বড় ম্যাচগুলোতে নিয়মিতই থাকছেন জিজুর একাদশে। ২০১৮ সালের নভেম্বরে ফ্রান্স জাতীয় দলে অভিষেক হয় মেন্ডির। গতি, ড্রিবলিংয়ের কারণে অনেকেই মেন্ডিকে বলা শুরু করেছেন "লেফটব্যাকদের এমবাপ্পে"।

যেই মেন্ডি কখনো স্বাভাবিকভাবে হাঁটতে পারার কথা ছিল না, সেই মেন্ডিই এখন ইউরোপের রাজা রিয়াল মাদ্রিদের লেফটব্যাক। নিজের স্বপ্ন পূরণে বাধা হয়ে দাঁড়াতে দেন নি কাউকে, হাল ছেড়ে না দিয়ে লড়ে গেছেন এবং সেই লড়াইয়ে জয়ীও হয়েছেন। জীবনের গল্পগুলো সত্যিই অসাধারণ। মেন্ডির আগামীর জন্য রইল অনেক অনেক শুভকামনা।