• ফুটবল

ক্লাদিও এছেভেরি- নিউ স্টারবয় অফ আর্জেন্টাইন মিডফিল্ড

পোস্টটি ৪৯৪ বার পঠিত হয়েছে
'আউটফিল্ড’ একটি কমিউনিটি ব্লগ। এখানে প্রকাশিত সব লেখা-মন্তব্য-ছবি-ভিডিও প্যাভিলিয়ন পাঠকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিজ উদ্যোগে করে থাকেন; তাই এসবের সম্পূর্ণ স্বত্ব এবং দায়দায়িত্ব লেখক ও মন্তব্য প্রকাশকারীর নিজের। কোনো ব্যবহারকারীর মতামত বা ছবি-ভিডিওর কপিরাইট লঙ্ঘনের জন্য প্যাভিলিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গ হলেই কেবল সেই অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।

ক্লাদিও এছেভেরি, তাকে আর্জেন্টিনায় ‘ডিয়াব্লিটো’ নামে ডাকা হয়। দক্ষিণ আমেরিকার সবচেয়ে প্রতিভাবান অনূর্ধ্ব-১৭ খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন হিসেবে ধরা হয় তাকে। এছেভেরি আর্জেন্টিনার বিখ্যাত রিভার প্লেট একাডেমির ইয়ুথ প্রোডাক্ট, যা আর্জেন্টিনার সেরা ইয়ুথ সিস্টেমগুলোর মধ্যে একটি। তিনি ২০০৬ সালে জন্মগ্রহণকারী আর্জেন্টিনার আকর্ষণীয় প্রজন্মের খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন। এই সময়েই জিয়ানলুকা প্রেস্টিয়ান্নি, অগাস্টিন রুবার্তো, ক্যামিলো রে ডোমেনেছ, সান্তিয়াগো লোপেজ, চিরো আরমোয়া, কেভিন গুটিয়েরেজ, ফাকুন্দো গনজালেজ, টোবিয়াস প্যালাসিও এবং হুয়ান ভিয়ালবার মতো ইয়ং ব্লাডরা জন্ম নিয়েছেন। 

ক্লাদিও জারমিয়াস এছেভেরি ২০০৬ সালের ২রা জানুয়ারি আর্জেন্টিনার চাকো প্রদেশের রেসিস্টেন্সিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। ইতালির ভেনিস উইথ রিভারে শিশুদের টুর্নামেন্টে অসাধারণ পারফরম্যান্সের পর সর্বপ্রথম বিশ্ব ফুটবলের নজরে আসেন এছেভেরি। টুর্নামেন্টে তার দল তৃতীয় হওয়া সত্ত্বেও তিনি ছয় খেলায় নয় গোল করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, “আমরা আমাদের পারফরম্যান্সে খুশি নই কারণ আমরা চ্যাম্পিয়ন হতে চেয়েছিলাম"। দেপোর্তিভো লুজানে এছেভেরি তার ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন। ২০১৬ সালের শেষদিকে রিভারপ্লেটে ট্রায়াল দিতে যান তিনি। রিভারপ্লেট স্কাউটরা তার খেলায় মুগ্ধ হয়ে তাকে যুব দলে চুক্তিবদ্ধ করেন। ২০২২ সালের ৮ই অক্টোবর রিভারপ্লেট রিসার্ভ টিমের হয়ে পেট্রোনাটোর বিপক্ষে অভিষেক হয় ক্লাদিও এছেভেরির। আর অভিষেকেই গোল করেন এই তরুণ তুর্কি। একই বছরের ডিসেম্বরে তিনি রিভারপ্লেটে তার প্রথম প্রফেশনাল কনট্রাক্ট সাইন করেন। 

এছেভেরি সাধারণত একজন রাইট ফুটেড অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার বা উইঙ্গার হিসেবে খেলে থাকেন। তার খেলার ধরণ অনেকটা  পাবলো আইমারের খেলার ধরণের সাথে মিলে যায়। তার পেস, পাসিং, ভিশন, ক্রিয়েটিভিটি, টেকনিক, বল কন্ট্রোলিং, ড্রিবলিং, ফ্লেইর, অ্যাগিলিটি জাস্ট দুর্দান্ত। এছাড়াও তার ফুটবল আই-কিউ, অফ দ্য বল মুভমেন্ট, ফার্স্ট টাচ, সেটপিসগুলো দারুণ। তবে তার বেশ কিছু জায়গায় উন্নতির প্রয়োজন রয়েছে। যেমন- ফিজিক্যাল ডেভেলপমেন্ট, এরিয়েল ডুয়েলস, লেফট উইক ফুট ব্যবহার করে অপারেট, অপোনেন্টকে ডিসপোজ, দলকে ডিফেন্সিভলি সাহায্য করা। আশা করছি সময়ের সাথে সাথে তিনি এই দুর্বলতাগুলোকে কাটিয়ে উঠতে পারবেন।

এছেভেরি সাধারণত অ্যাডভান্সড প্লেমেকার বা এনগাঞ্চে রোলে খেলতে ভালোবাসেন। অনেকটা ছোট গড়নের হওয়ায় ডাইরেক্ট কনটাক্ট সিচুয়েশনে তিনি এখনো আনকমফর্টেবল। তবে তার অসাধারণ টেকনিক্যাল অ্যাবিলিটি, ১vs১ শর্ট-ড্রিবলিং স্কিলস, ক্লোজ বল কন্ট্রোল এবং দ্রুত পিজশন শিফট এককথায় দুর্দান্ত। মাঠে তিনি অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার বা ফ্রি রোলে থাকতে বেশি পছন্দ করেন, যাতে তিনি ক্রিয়েটিভ ফ্রিডম পান এবং সতীর্থদের জন্য স্পেস তৈরি করতে পারেন।  তিনি এমন একজন মিডফিল্ডার যে তার ক্রিয়েটিভ দিক থেকে সময়ের সাথে খেলাকে ভিন্নভাবে চিন্তা করেন। তার অফ-দ্য-বল মুভমেন্টে চতুরতা, দুর্দান্ত ভিশন এবং পাসিং ক্ষমতা দলের মিডফিল্ড এবং আক্রমণকে সহজ এবং কার্যকারিতার সাথে যুক্ত করে। সে অনেকটা ফাস্ট, এনার্জেটিক এবং ডায়নামিক খেলোয়াড়। সে একজন ভার্টিক্যাল খেলোয়াড় হওয়ায়  বল বেশি পায়ে রাখতে পছন্দ করেন এবং প্রোগ্রেসিভ রান ও পাস দিয়ে খেলার গতি বাড়ানোর চেষ্টা করেন। তার ড্রিবলিং অ্যাকুরেসিও ভালো। তিনি সাধারণত লেফট উইং বা হাফ স্পেস দিয়ে আক্রমণ করতে পছন্দ করেন। তিনি তার “কুইক ফিট” ব্যবহার করে দ্রুততার সাথে মুভমেন্ট এবং বল ক্লোজ কন্ট্রোল করতে বেশ দক্ষ। এছাড়াও তিনি কম্বিনেশন গেমপ্লেতে দুর্দান্ত। সে এমন একজন খেলোয়াড় যে তার দর্শনীয় পাস বা সলো রান দিয়ে খেলার যেকোনো সময়ে পার্থক্য করে দিতে সক্ষম। তার ফুটবল আই-কিউ এতটাই হাই লেভেলের যে তিনি প্রায়শই এমন বিকল্প বেছে নেন যা প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়দের  জন্য সত্যিই অপ্রত্যাশিত। ফাইনাল থার্ডে ভালো থ্রু বল/ কিলার পাস দেওয়ার মতো যথেষ্ট অ্যাবিলিটি, ভিশন এবং আত্মবিশ্বাস তার মধ্যে রয়েছে। তিনি তার দুর্দান্ত ফুটওয়ার্ক দিয়ে প্রতিপক্ষের প্রেস বিট করতে পারেন। তিনি আঁটসাঁট জায়গায় ড্রিবল করতে এবং দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে বেশ পটু। তার ফার্স্ট টাচ/ হাইস্পিডের সাথে ওয়ান-টু খেলার চমৎকার ক্ষমতা রয়েছে। গতি এবং মুভমেন্টের জন্য কাউন্টার অ্যাটাকে তিনি অনেক বিপজ্জনক। তিনি সাধারণত তার উইক লেফট ফুট ব্যবহার করেন না। তিনি তার চতুরতার কারণে প্রায়শই ফাউলের শিকার হন। ইন্ডাইরেক্ট ও ডাইরেক্ট সেটপিসে বিশেষজ্ঞ তিনি। এছাড়াও তিনি ভালো পেনাল্টি টেকার।

এছেভেরির প্লেয়িং স্টাইল সাধারণত ৪-২-৩-১ ফর্মেশনের সাথে বেশি মানানসই। এই ফর্মেশনে তাকে নাম্বার টেন হিসেবে ব্যবহার করলে তার থেকে বেস্ট আউটপুট পাওয়া সম্ভব। আগামী সামার ট্রান্সফারে তার বড় ক্লাবে মুভ করার ভালোই গুঞ্জন রয়েছে। তবে তিনি যে ক্লাবেই খেলুক না কেন আশা করছি আর্জেন্টিনা জাতীয় দলে একটা লম্বা সময় ধরে সার্ভিস দিবেন তিনি। আপনার জন্য শুভকামনা রইল “লিটল পাবলো আইমার”।