• ক্রিকেট

রুটের স্বরূপে ফেরার দিনে অসহায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ

স্কোর

তৃতীয় দিন শেষে

ইংল্যান্ড ২৭৭ ও ১০০ ওভারে ৩২৫/৪ ( রুট ১১১*, ডেনলি ৬৯; পল ১/১১, রোচ ১/৩১)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৫৪

ইংল্যান্ড ৪৪৮ রানে এগিয়ে

 

এই সিরিজের পাঁচ ইনিংসে তার রান মাত্র ৫৫। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চিরচেনা সেই জো রুটকে যেন খুঁজেই পাওয়া যাচ্ছিল না। শেষ টেস্টে দল যখন হোয়াইটওয়াশ থেকে বাঁচতে লড়ছে, তখনই জ্বলে উঠল ইংলিশ অধিনায়কের ব্যাট। রুটের দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরিতেই সেন্ট লুসিয়া টেস্ট ক্যারিবিয়ানদের ধরাছোঁয়ার বাইরে নিয়ে গেছে ইংল্যান্ড।

তৃতীয় দিনের প্রথম বলেই ফেরেন রয় বার্নস। কিমো পলের বলে স্কয়ার লেগে আলজারি জোসেফের বলে ক্যাচ দেন বার্নস। কেটন জেনিংসও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি ক্রিজে, ২৩ রানে বোল্ড হয়েছে জোসেফের বলে।

 

 

এরপর জো ডেনলিকে নিয়ে জুটি বাঁধেন রুট। দুজনে যোগ করেন ৭৪ রান। রুট-ডেনলি দুজনেই পেয়েছেন ফিফটি, ক্যারিয়ারের প্রথম ফিফটি পান ডেনলি। এগারো চারে সাজানো ইনিংসে সেঞ্চুরির দিকেই এগুচ্ছিলেন তিনি। তবে ভাগ্য সহায় হয়নি ডেনলির, ৬৯ রান করে শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের বলে ডাওরিচের হাত ক্যাচ দিয়ে ফিরতে হয় তাকে। 

ডেনলি সেঞ্চুরিবঞ্চিত হলেও তিন অংক ছুঁয়েছেন রুট। জস বাটলারের সাথে ১০৭ রানের জুটি গড়ার সময় সেঞ্চুরির অনেকটাই কাছে পৌঁছে যান তিনি। অন্য প্রান্তে বাটলার ছিলেন বেশ আক্রমণাত্মক, প্রথম ইনিংসের মতো এবারো পেয়েছেন ফিফটি। হাফ সেঞ্চুরির পরপরই অবশ্য কিমার রোচের বলে বোল্ড হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় বাটলারকে। ততক্ষণে ইংল্যান্ডের লিড ৩৫০ পেরিয়েছে।

দিনের খেলা শেষ হওয়ার সাত ওভার আগে ক্যারিয়ারের ১৬তম টেস্ট সেঞ্চুরি তুলে নেন রুট। ২০৯ বল খেলে মেরেছেন ৯টি চার। দিন শেষে রুট অপরাজিত আছেন ১১১ রানে, বেন স্টোকস তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন ২৯ রান করে। ইংল্যান্ড এগিয়ে আছে ৪৪৮ রানে, হোয়াইটয়াশের শঙ্কা দূর হয়েছে অনেকটাই। ম্যাচ বাঁচাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে দারুণ কিছুই করে দেখাতে হবে শেষ দুই দিনে।