• ওয়েস্ট ইন্ডিজ-ইংল্যান্ড সিরিজ
  • " />

     

    • ওয়েস্ট ইন্ডিজ-ইংল্যান্ড সিরিজ

    টানটান উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচেই বিশ্বকাপের প্রস্তুতি সারছে ইংল্যান্ড: বাটলার

    স্কোরবোর্ডে ৪১৮ রান তুলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজের শেষ ব্যাটসম্যান আউট না হওয়া পর্যন্ত স্বস্তিতে ছিলেন না তাঁরা। বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ইংল্যান্ডকে শেষ পর্যন্ত চ্যালেঞ্জ ছুড়েছে ক্যারিবিয়ানরা। শ্বাসরুদ্ধকর এই ম্যাচে ২৯ রানের জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে ইংলিশরা। ইংল্যান্ডের জয়ের নায়ক ও দলের সহ অধিনায়ক জস বাটলার বলছেন, এরকম টানটান উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচেই বিশ্বকাপের প্রস্তুতিটা সেরে ফেলছেন তাঁরা।

    বাটলার-মরগানের জোড়া সেঞ্চুরিতে গ্রেনাডায় ৪১৮ রানের বিশাল স্কোর দাড় করিয়েছিল ইংল্যান্ড। কম যায়নি ওয়েস্ট ইন্ডিজও। ক্রিস গেইলের ১৬২ রানে ইংল্যান্ডের এই বিশাল লক্ষ্য টপকেও যেতে পারতেন তাঁরা! গেইলের পর আর কেউ দাঁড়াতে না পারলে শেষ পর্যন্ত জেতে ইংল্যান্ডই। সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৩৬১ রানের লক্ষ্য তাড়া করে জিতেছিল ইংল্যান্ড।

    বিশাল লক্ষ্য তাড়া করে জেতা কিংবা বড় লক্ষ্য শেষ পর্যন্ত ডিফেন্ড করা; এরকম জয় বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের কাজে লাগবে বলেই বিশ্বাস বাটলারের, ‘আমার তো নিঃশ্বাসই বন্ধ হয়ে আসছিল মাঝে মাঝে! অবিশ্বাস্য একটা ম্যাচ দেখলাম সবাই। এরকম ম্যাচে সবাই খুব চাপে থাকে, চাপ কাটিয়েই আমরা জিতেছি। এই চাপটা বিশ্বকাপে কাজে দেবে। ফেবারিট যেই হোক না কেন, যে কেউ ম্যাচ জিতে পারে যেকোনো লক্ষ্য তাড়া করতে নেমেই। বিশ্বকাপে এরকম ম্যাচ অনেক আসবে।’

    ৭৭ বলে ১৫০ রানের ইনিংসের সুবাদে ম্যাচসেরা হয়েছে বাটলার। এই ইনিংসটিকে নিজের সেরা ইনিংসের তালিকায় ওপরের দিকেই রাখবেন তিনি, ‘এটা বিশেষ একটি ইনিংস ছিল। পুরো সময়টাই আমি উপভোগ করেছি। ক্রিজে নামার পর রুট আমাকে বলেছিল, যেভাবেই হোক ৩৫০ পার করতে হবে! এজন্যই শুরু থেকেই হাত খুলে খেলেছি।’

    এরকম জয় বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের কতটুক কাজে লাগে, সেটা দেখা যাবে আগামী জুনেই।