• রাশিয়া বিশ্বকাপ ২০১৮
  • " />

     

    মহিলা বিশ্বচ্যাম্পিয়নদেরও সমান বোনাস দেবে অ্যাডিডাস

    আন্তর্জাতিক নারী দিবসেই নিজেদের ফেডারেশনের বিরুদ্ধে বৈষম্যের মামলা করেছিল যুক্তরাষ্ট্রের প্রমীলা ফুটবল দল। ২৪ ঘণ্টা না পেরুতেই মেয়েদের ফুটবলে বৈষম্য দূর করতে এগিয়ে এল ক্রীড়াসামগ্রী প্রতিষ্ঠান অ্যাডিডাস। এই বছর থেকে পুরুষ এবং মহিলা বিশ্বকাপজয়ীদের সমান বোনাসই দেবে তারা। এই বছরের জুন থেকে অনুষ্ঠিতব্য প্রমীলা বিশ্বকাপ থেকেই চালু হবে অ্যাডিডাসের এই নিয়ম।

    গতকাল শুক্রবার নিজেদের অফিশিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টে জানানো এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে অ্যাডিডাস, 'প্রমীলা ফুটবল এবং ফুটবলারদের ক্ষমতায়নের আমরা প্রচন্ডভাবে বিশ্বাসী। আমরা চাই তারা যেন কখনোই কর্মক্ষেত্রে কোনও ধরণের বৈষ্যমের শিকার না হয়। সে কথা মাথায় রেখেই আমাদের এই সিদ্ধান্ত। ২০১৯ সালের জুন থেকে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া প্রমীলা বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়নরা গত বছরের পুরুষ বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের সমান বোনাস পাবে। শুধু এবার না, এই নিয়ম বজায় থাকবে আজীবন।' 

     

     

    অ্যাডিডাসের আনুষ্ঠানিক ঘোষণার পর স্বাভাবিকভাবেই প্রশংসায় ভেসেছে কোম্পানিটি। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্র ফুটবল ফেডারেশনের বিরুদ্ধে অ্যালেক্স মরগানদের আনা অভিযোগের পর এই সিদ্ধান্ত বেশ সময়োপযোগী ছিল বলেই মনে করছেন ফুটবল বিশ্লেষকরা। বেতন থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরণের সুযোগ সুবিধার দিক দিয়েও বেশ অবহেলিতই ছিল তারা। গতবারের বিশ্বকাপ জেতার পর ফেডারেশন থেকে কোনও ধরণের বোনাসও পাননি তারা। দীর্ঘদিন চুপ থাকলেও এবার অধিকার আদায়ে সরব হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের মহিলা ফুটবলাররা।

     

     

    ফেডারেশনের প্রতি ক্ষোভটা যে কেবল আর্থিক দিক থেকে নয়, সেটাও জানিয়েছেন দলের স্ট্রাইকার মেগান রাপিনো, 'আমরা কোনও অংশেই ছেলেদের চেয়ে কম কষ্ট করছি না। সাফল্যের মুখও দেখছি। কিন্তু সুযোগ সুবিধা যেমন অন্য দেশে খেলতে গেলে ফেডারেশন থেকে সুযোগ সুবিধা, দেশে ফিরলে অভ্যর্থনা জানিয়ে বরণ করে নেওয়া- এসবের কিছুই পাইনি আমরা। তবে ব্রাজিল বিশ্বকাপের (২০১৪) পর ছেলেরা রীতিমত বীরের মর্যাদাই পেয়েছিল। আর আমরা বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। আমি কোনোভাবেই তাদের ছোট করছি না। শুধু চাই আমাদেরও যেন সমান সম্মান দেখানো হোক। অনেকদিন চুপ ছিলাম। এখন আর দমে যেতে চাই না।'