• ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯
  • " />

     

    • ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯

    আইপিএলেই নির্ভর করছে রাহানে-আইয়ারের বিশ্বকাপ

    বিরাট কোহলি সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন, আইপিএলে ভালো খেলার সাথে বিশ্বকাপ স্কোয়াডে সুযোগ পাওয়ার কোন সম্পর্ক নেই। তবে চারজন ক্রিকেটারের ক্ষেত্রে অবস্থাটা ভিন্ন। অজিংকা রাহানে, আমবাতি রাইডু, শ্রেয়াস আইয়ার ও লোকেশ রাহুল; চারজনের মাঝে কে শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপে যাবেন, সেটা অনেকটাই নির্ভর করছে আইপিএলের ওপর। বিসিসিআইয়ের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, আইপিএলে এই চারজনের যে ভালো করবেন, তিনিই বিশ্বকাপে সুযোগ পাবেন।

    বিশ্বকাপের আগে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ ছাড়া আর ওয়ানডে খেলবে না ভারত। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের পর কোহলি বলেছিলেন, তাদের বিশ্বকাপ স্কোয়াড অনেকটাই নিশ্চিত। তবে চার নম্বরে কে খেলবেন, সেটা নিয়ে গত কয়েক মাসে বেশ কয়েকবার পরীক্ষা নিরীক্ষা চালিয়েছেন কোহলি।

    চার নম্বরে ব্যাট করার লড়াইটা হবে রাহানে, রাইডু, আইয়ার ও রাহুলের মাঝেই। বিসিসিআইয়ের এক কর্মকর্তা ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে জানিয়েছেন, এই চারজনের আইপিএল পারফরম্যান্সই নির্ধারণ করবে কে বিশ্বকাপে যাচ্ছেন, ‘অনেক পরীক্ষা নিরীক্ষার পরেও বিশ্বকাপে চার নম্বরে কে ব্যাট করবে সেটা চূড়ান্ত হয়নি। এছাড়াও আরও দুই একটি পজিশন নিয়ে ভাবা হচ্ছে। চূড়ান্ত দল ঘোষণা করা হবে ২০ এপ্রিল, এর আগে আইপিএলের এক মাস হয়ে যাবে। এজন্যই আইপিএলটা সবার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।’

    দলের প্রয়োজনে নিজেই চার নম্বরে ব্যাটিং করবেন, এমনটাও আভাস দিয়েছিলেন কোহলি। তবে বিশ্বকাপে তাঁকে দেখা যাবে তিন নম্বরেই। ভারত তাই চার নম্বরে একজন স্থিতিশীল ব্যাটসম্যানকেই চাইছে, ‘চার নম্বরে ব্যাটিং করার জন্য আমাদের নজরে চারজন আছেন। কোহলি চার নম্বরে ব্যাটিংয়ের কথা বলেছিলেন, কিন্তু সেটা হয়ত বিশেষ পরিস্থিতিতে হবে। পুরো টুর্নামেন্টের জন্য আমাদের এমন একজনকে লাগবে, যে সব ম্যাচেই এই পজিশনে ব্যাট করবে।’

    আইপিএলে ভালো খেলে বিশ্বকাপে সুযোগ পাওয়ার ‘চ্যালেঞ্জ’ নিয়েই মাঠে নামবেন রাজস্থান রয়্যালসের অধিনায়ক রাহানে, ‘ আমার ধারণা আইপিএলে ভালো খেললে এমনিতেই বিশ্বকাপে সুযোগ পাবো। তবে বিশ্বকাপের কথা বারবার মনে করে চাপ নিতে চাই না। যে জিনিসটা আমার হাতে নেই, সেটা নিয়ে বেশি ভেবে কী হবে? প্রথমে আইপিএলে ভালো করাই আমার লক্ষ্য।’

     

     

    শেষ পর্যন্ত আইপিএল কার কপাল খুলে দেয়, সেটার জন্য অপেক্ষা করতে হবে আরও এক মাস।