• ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    এবার জেতাতে পারলেন সুপার ওভারে সুপার ব্রাথওয়েট

    বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওই ম্যাচের কথা নিশ্চয় মনে আছে আপনার। ব্যাট হাতে অবিশ্বাস্য এক ইনিংসে কার্লোস ব্রাথওয়েট প্রায় জিতিতেই দিচ্ছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। শেষ পর্যন্ত পারেননি, তবে কাল পেরেছেন ঠিকই। ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের হয়ে সুপার ওভারে ব্যাট ও বল করে একাই জিতিয়ে দিয়েছেন দলকে।

    ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের সঙ্গে কাজটা এমনিতেই কঠিন ছিল অনেক। এই টুর্নামেন্টের অপরাজিত দল ছিল নাইট রাইডার্স, প্যাট্রিয়টসের সঙ্গে শুরুতে আজ ব্যাট করে বড় কিছুর আভাস দিচ্ছিল। দারুণ ফর্মে থাকা লেন্ডল সিমন্স পেয়েছেন নিজের টানা তৃতীয় ফিফটি, মাত্র ২৪ বলে ছুঁয়েছেন ফিফটি, সেঞ্চুরিও প্রায় পেয়ে গিয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত ৪৫ বলে ৯০ রানের বিস্ফোরক এক ইনিংস খেলে ফেরেন, এর মধ্যে নয়টি চারের সঙ্গে মেরেছেন ছয়টি ছয়। শেষ দিকে ডোয়াইন ব্রাভো- জিমি নিশমের ক্যামিওতে শেষ পর্যন্ত ২১৬ রানে পৌঁছেছে রাইডার্স।

    শুরুট অবশ্য দারুণ হয়েছিল প্যাট্রিয়টস।৬ ওভারের মধ্যেই তারা তুলে ফেলে ৬৭ রান, এর মধ্যে নিশমের এক ওভার থেকে ৩১ রান নিয়েছেন লুইস। কিন্তু ৪৫ রান করে ফিরে যান লুইস, তার আগে পরে ফিরে গেছেন লরি ইভান্স ও মোহাম্মদ হাফিজও। ৮০ রানে ৪ উইকেট নেই প্যাট্রিয়টসের। এরপর ব্রাথওয়েট নামলেন, দারুণ কিছু শটে ৩০ বলে ৬৪ রানও করে ফেললেন। কিন্তু ম্যাচের ৪ ওভার বাকি থাকতে আউট হয়ে গেলেন।

     

     

    এরপর দায়িত্বটা নিজের কাঁধে নিয়েছেন রায়াদ এমরিত। নিশমের শেষ ওভারে দরকার ছিল ১৯ রান, শেষ বলে চার মেরে সেটি নিয়ে নিয়েছেন এমরিত। সুপার ওভারে আলী খানের প্রথম বলে ব্রাথওয়েট ছয় মারলেন, পরের তিন বলে হলো ২ রান। শেষ দুই বলে চার-ছয় মেরে ১৮ রান নিলেন ব্রাথওয়েট।

    সেই রান রক্ষার দায়িত্বও নিতে হলো তাকে। প্রতিপক্ষ ব্রাভো, সিমন্স, পোলার্ড- কাজটা সহজ ছিল না। কিন্তু ব্রাথওয়েট দ্বিতীয় বলে আউট করলেন ব্রাভোকে, পরের ৪ বলে দিলেন মাত্র ৫ রান। সুপার ওভারে একাই জিতিয়ে দিলেন দলকে।