• ইংল্যান্ডের নিউজিল্যান্ড সফর
  • " />
    X

     

    ব্রডের কথা মনে রাখলেন বার্নস-রুট

    হ্যামিল্টন টেস্ট

    তৃতীয় দিন শেষে

    নিউজিল্যান্ড ৩৭৫

    ইংল্যান্ড ৯৯.৪ ওভারে ২৬৯/৫


    স্টুয়ার্ট ব্রড কাল এসে সংবাদ সম্মেলনে এসে বলে গিয়েছিলেন, ব্যাটসম্যানদের কাছ থেকে বড় ইনিংস চান। সতীর্থের কথাটা নিশ্চয় মনে গেঁথে গিয়েছিল ররি বার্নস এবং জো রুটের। হ্যামিল্টন টেস্টের তৃতীয় দিনে দুজনেই পেলেন সেঞ্চুরি, এরপর অবশ্য দ্রুত কয়েকটা উইকেট নিয়ে ফেরার চেষ্টা করেছে নিউজিল্যান্ড। ইংল্যান্ড এখনো ১০৬ রানে পিছিয়ে, হাতে আছে ৫ উইকেট।  তবে বৃষ্টি বাগড়া দেওয়ায় খেলা আগেভাগেই পন্ড হয়ে গেছে। কালও সেটা হলে ড্র-ই হতে পারে এই টেস্টের সম্ভাব্য ফল।

     কাল শেষ বিকেলে ব্যাট করতে নেমেই দুই উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল ইংল্যান্ড। বার্নস নিজেও দুবার আউট হতে পারতেন, বেঁচে গেছেন কপালগুণে। আজ সকালে অবশ্য রুটের সঙ্গে মিলে কোনো বিপদ হতে দেননি।  হ্যামিল্টনের উইকেট আরও বেশি ব্যাটিং বান্ধব হচ্ছিল আজ, সকালের সেশনে আর কোনো উইকেট হারাতে দেননি দুজন। বার্নস ফিফটি পেয়েছিলেন আগেই, রুট ফিফটি পাওয়ার ঠিক পরেই দুজন লাঞ্চে গেলেন। ওই সেশনে ইংল্যান্ড তুলেছে ১০৩ রান।

    বার্নস অবশ্য রান আউট হতে পারতেন একবার, নিউজিল্যান্ড ফিল্ডারদের জন্য বেঁচে গেছেন। ৪৭ রানে রুটকেও একবার আউট দিয়েছিলেন আম্পায়ার, সঙ্গে সঙ্গে রিভিউ নিয়েই ভুলটা শোধরাতে হয়েছে রুটকে। বার্নস এরপর পেয়ে গেছেন সেঞ্চুরি, তবে এর পর পরেই একটা ডাবলস নিতে গিয়ে রান আউট হয়ে গেছেন। ভেঙেছে রুটের সঙ্গে ১৭৭ রানের জুটি। টিভি ক্যামেরায় বেশ অনেকক্ষণ ধরে দেখার পর আউট দিয়েছেন থার্ড আম্পায়ার। বেন স্টোকস টেকেননি বেশিক্ষণ, ২৬ রান করে সাউদির দুর্দান্ত একটা ডেলিভারিতে ক্যাচ দিয়েছেন স্লিপে। এরপরেই রুট পেয়ে গেছেন সেঞ্চুরি। এই সিরিজের প্রথম ম্যাচে রান পাননি, এবার পেলেন টেস্ট ক্রিকেটের ১৭তম সেঞ্চুরি। ইংল্যান্ড এর একটু পরেই অবশ্য হারিয়ে ফেলেছে উইকেটকিপার জ্যাক ক্রলিকে। ওয়াগনারের বলে ক্যাচ দিয়েছেন উইকেটের পেছনে। এরপরেই হ্যামিল্টনের আকাশ ঘনিয়ে এসেছে বৃষ্টি, অলি পোপকে নিয়ে দিন শেষ করেছেন রুট।