• ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইংল্যান্ড সফর ২০২০
  • " />

     

    ইংল্যান্ডের অধিনায়ক বেন স্টোকস

    আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ইংল্যান্ডকে প্রথমবারের মতো নেতৃত্ব দিতে যাচ্ছেন বেন স্টোকস। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে দ্বিতীয় সন্তানের জন্মের জন্য পরিবারের সঙ্গে থাকবেন নিয়মিত অধিনায়ক জো রুট, তার জায়গায় অধিনায়কত্ব করবেন তার সহকারী স্টোকস। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে এটি নিশ্চিত করেছে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড, ইসিবি। 

    এ সপ্তাহের শেষের দিকে জন্ম নেওয়ার সম্ভাবনা আছে রুটের দ্বিতীয় সন্তানের। বুধবার এজিয়েস বোউলের অনুশীলন ক্যাম্প ছেড়ে যাবেন রুট। এরপর হাসপাতাল ছাড়ার পর নিজ বাসায় ৭ দিনের সেলফ-আইসোলেশনে থাকতে হবে রুটকে। ৮ জুলাই থেকে সাউথাম্পটনে শুরু প্রথম টেস্টে তাই থাকছেন না তিনি। স্টোকসের সহকারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন জস বাটলার। ১৩ জুলাই ওল্ড ট্রাফোর্ডে দ্বিতীয় টেস্ট শুরুর আগে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন রুট। 
     

    আরও পড়ুন- 'বিগ বেন' স্টোকস ও তার দায়মোচনের প্রহর


    রুটের অনুপস্থিতিতি তাই স্টোকসকে দিচ্ছে প্রায় অনন্য এক অভিজ্ঞতা। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কেন, লিস্ট ‘এ’ বা প্রথম শ্রেণিতেও এর আগে অধিনায়কত্ব করেননি এই অলরাউন্ডার। তার নেতৃত্ব দেওয়ার অফিশিয়াল অভিজ্ঞতা বলতে ডারহামের একাডেমিতে কয়েক ম্যাচ দায়িত্ব পালন। তবে ড্রেসিং রুমে স্টোকস বেশ দায়িত্বশীল ব্যক্তিত্ব বেশ অনেকদিন ধরেই। 

    ২০১৬ সালেই তাকে দেওয়া হয়েছিল সহ-অধিনায়কত্ব। তবে এরপরই ব্রিস্টল-কান্ডে জড়িয়ে পড়েছিলেন তিনি, দল থেকে বাদ পড়ার সঙ্গে হারিয়েছিলেন সে দায়িত্বও। ২০১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালের পর সেটি ফিরে পেয়েছিলেন তিনি। 
     


    ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে রুটের অনুপস্থিতিতে ইংল্যান্ডকে নেতৃত্ব দেবেন স্টোকস/ইসিবি


    “২০১৬ সাল থেকে দলে সিনিয়র ক্রিকেট আমি, অ্যালেস্টার কুক থেকে শুরু করে রুটের কাছ থেকে বিভিন্ন পরিস্থিতিতে শিখেছি”, বলেছেন স্টোকস। 

    “একটা সময় আমরা অনেক অভিজ্ঞ ক্রিকেটার পেয়েছি। আমার ধারণা অধিনায়কত্বের দিক দিয়ে খোলাখুলি একজন হবো আমি। আমার দেখানো পথই একমাত্র, এমন চাই না আমি। ১১ জন মাঠে থাকে, বাকি ১০ জনের কাছ থেকে মত কেন নেব না?”, অধিনায়কত্বের ব্যাপারে বলেছিলেন তিনি। 
     

    আরও পড়ুন- বেন স্টোকসের হেডিংলি-রূপকথা


    অধিনায়কত্বের ক্ষেত্রে সবসময়ই ইতিবাচক থাকতে চান তিনি, “আমি সবসময়ই আমার আচরণ ও নিবেদন দিয়ে উদাহরণ তৈরি করতে চাই। অধিনায়ক হওয়ার বাড়তি দায়িত্বের সঙ্গে চাপও আসে-- কঠিন সময়ে সিদ্ধান নেওয়ার। তবে এসব আমাকে খুব একটা বদলাবে না। বল বা ব্যাট হাতে আমি ইতিবাচক প্রভাবই রাখতএ চাই। যেটিই করি না কেন, ইতিবাচক দিকেই এগুবো আমি।” 

    অধিনায়ক হওয়ার লক্ষ্য কখনোই ছিল না, স্টোকস জানিয়েছেন সেটিও, “অ্যালেস্টার কুকের সবসময়ই অধিনায়ক হওয়ার কথা ছিল অ্যান্ড্রিউ স্ট্রাউসের পর। রুটের হওয়ার কথা ছিল কুকের পর। আমি এমন কেউ নই, যাকে ইংল্যান্ডের পরবর্তী অধিনায়ক ভাবা হবে। 

    “তবে এটা অনেক বড় একটা সম্মান। একবারের জন্য হলেও আপনি বলতে পারবেন, ‘হ্যাঁ, আমি ইংল্যান্ডকে নেতৃত্ব দিয়েছি। এই সুযোগের দিকে তাকিয়ে আছি তাই। তবে আমি জানি, শুধুমাত্র জো-র ব্যক্তিগত কারণেই এক ম্যাচের জন্য আমাকে এগিয়ে আসতে হচ্ছে।” 
     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন