• ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইংল্যান্ড সফর ২০২০
  • " />

     

    পোপ-বাটলারে হতাশ উইন্ডিজ

    ৩য় টেস্ট, ওল্ড ট্রাফোর্ড
    ১ম দিন, স্টাম্পস
    ইংল্যান্ড ২৫৮/৪* (পোপ ৯১*, বাটলার ৫৬*, বার্নস ৫৭, রোচ ২/৫৬, চেজ ১/২৪)


    ওলি পোপ ও জস বাটলারের ১৩৬ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ওল্ড ট্রাফোর্ডে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে প্রথম দিন হতাশ করেছে ইংল্যান্ড। ১২২ রানে ৪ উইকেট পড়ে যাওয়ার পর এ দুজন মিলে ইংল্যান্ডকে টেনে নিয়েছেন ২৫৮ রান পর্যন্ত, আলোকস্বল্পতায় দিনের খেলা আগেভাগেই শেষ হয়ে যাওয়ার আগে। এর আগে ররি বার্নস করেছেন ফিফটি।

    টসে জিতে ফিল্ডিং নিয়েছিলেন উইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার, প্রথম ওভারেই সাফল্য এনেছিলেন কেমার রোচ। তার ভেতরের দিকে ঢোকা বল মিস করে এলবিডব্লিউ হয়েছিলেন আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান ডম সিবলি, শুরুতে বেশ মুভমেন্ট পাচ্ছিলেন উইন্ডিজ পেসাররা। স্টোকস শুধু ব্যাটিং করতে পারেন বলে বাড়তি পেসার খেলাচ্ছে ইংল্যান্ড, একাদশের বাইরে চলে যাওয়া জ্যাক ক্রলির জায়গায় তিনে উঠে এলেন জো রুট। তার রান-আউটে প্রথম সেশনেই চাপে পড়লো ইংল্যান্ড। 

    অন্যপ্রান্তে লড়াই করে যাওয়া বার্নসের সঙ্গে অবিচ্ছিন্ন থেকে লাঞ্চে গেলেন বেন স্টোকস, তবে আরেকবার ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ঠিক ছিটকে দিতে পারলেন না তিনি। বার্নসের সঙ্গে তার জুটিতে উঠলো ৪৫ রান, রোচের আরেকটি দারুণ ডেলিভারিতে স্টোকস হলেন বোল্ড। বার্নস ফিফটির পরপরই ফিরলেন রাহকিম কর্নওয়ালের দারুণ এক ক্যাচে। চেজের বলটা শরীরঘেঁষা ছিল, কাট করতে চেয়েছিলেন বার্নস। তবে দ্রুতগতির বলটা আটকে ফেললেন কর্নওয়াল প্রথম স্লিপ থেকে ডানদিকে, ১৩ ওভারের ব্যবধানে আরেকটি উইকেট পেলো উইন্ডিজ। 

    পোপের সঙ্গে যোগ দিলেন বাটলার। ইংল্যান্ডের টেস্ট দলে বাটলারে অবস্থান নিয়ে কম কথা হয়নি, তবে নির্বাচকরাও তাকে নিয়ে এখন পর্যন্ত বলা যায় থেকেছেন একগুঁয়েই। এই টেস্টের আগে রুটও বলেছিলেন, বাটলারের ভূমিকা এখনও তাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণই। বাটলার অবশ্য স্বভাববিরুদ্ধ চুপ মেরে থাকলেন শুরুর দিকে, প্রথম বাউন্ডারির আগে ৩১ বলে তার রান ছিল ৩। 

    ৬০-৬৪, এই ৫ ওভারে এলো ৭টি বাউন্ডারি, তবে বাটলার মারলেন শুধু এর প্রথমটি। পোপ এদিন ছিলেন দারুণ, পায়ের কাজ করেছেন বেশ ভালভাবে। ক্যারিয়ারের চতুর্থ ফিফটি পূর্ণ করেছেন, দ্বিতীয় সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ৯ রান দূরে দাঁড়িয়ে এই ডানহাতি। এখন পর্যন্ত মেরেছেন ১১টি চার, খেলেছেন ১৪২ বল। 

    বাটলার অবশ্য খেলেছেন হুটহাট শট, সময় নিয়ে নিয়ে। মাঝে এ টেস্ট দিয়েই একাদশে ফেরা কর্নওয়ালকে এক ওভারেই মেরেছেন দুটি ছয়। ১০৪ বলে পূর্ণ করেছেন ফিফটি, টেস্টে গত সেপ্টেম্বরের পর যা তার প্রথম। রোচ ছাড়া উইন্ডিজ বোলাররা তেমন ছোবল মারতে পারেননি সেভাবে এদিন, কর্নওয়ালও ছিলেন নির্বিষই। 

    ৮৩তম ওভারে গিয়ে দ্বিতীয় নতুন বল নিয়েছে উইন্ডিজ, তবে সেটিও আর ঠিক কাজে লাগানো হয়নি তাদের। ৮৬তম ওভারের ২ বল বাকি থাকতেই আলোকস্বল্পতায় বন্ধ হয়ে গেছে খেলা। তবে তার আগে হোল্ডারের টসে সিদ্ধান্ত প্রশ্নবিদ্ধ হলো আরেকবার। টানা দ্বিতীয় ম্যাচে টসে জিতে বোলিং নিলেন তিনি, তবে ঠিক সে সিদ্ধান্তের প্রতি সুবিচার করতে পারলেন না তারা। 

    এদিনও রোচকে ছাপিয়ে গিয়ে তাই সামনে এলেন পোপ, সঙ্গে বাটলার। 
     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন