• স্প্যানিশ সুপার কাপ
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    মেসির 'অভূতপূর্ব' লাল কার্ডে ফাইনালে হেরে গেল বার্সা

    ক্লাব ক্যারিয়ারে কখনোই এই অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হননি লিওনেল মেসি। আর্জেন্টিনা ক্যারিয়ারে প্রথম ম্যাচেই লাল কার্ড পেয়ে কাঁদতে কাঁদতে মাঠ ছেড়েছিলেন, সর্বশেষ কোপা আমেরিকায় লাল কার্ডটাও ছিল বিতর্কিত। দুইটি লাল কার্ডই হয়তো মেসির প্রাপ্য ছিল না, কিন্তু কালকেরটা নিয়ে মেসি নিজেও হয়তো বেশি অভিযোগ করবেন না। রেফারির চোখ এড়িয়ে গেলেও বিলবাওয়ের  ভিয়াব্রিকে হাত দিয়ে মুখে মারার জন্য ভিএআরের হস্তক্ষেপে পরে লাল কার্ড দেখানো হয়েছে মেসিকে। বার্সাও বিলবাওয়ের কাছে স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনাল হেরে গেছে, মিস করেছে মৌসুমের প্রথম শিরোপা জয়ের সুযোগ।

    রিয়ালকে হারিয়ে ফাইনালে উঠে এসেছিল বিলবাও, কাল দেখিয়েছে কেন তারা ফাইনালের যোগ্য দাবিদার। আঁতোইন গ্রিজমানের গোলে শুরুতে তারা এগিয়ে গেলেও কিছুক্ষণ পর সমতা ফেরান অস্কার ডে মার্কোস। গ্রিজমান পরে আরও একবার এগিয়ে দেন ৭৭ মিনিটে, কিন্তু ম্যাচ শেষের কিছুক্ষণ আগে ভিয়াব্রি গোল শোধ করে খেলাটা নেন অতিরিক্ত সময়ে। তার আগে অবশ্য রাউল গার্সিয়ার গোল ভিএআরে বাতিল হয়েছে, মেসি নিজেও গোল পাচ্ছিলেন না। ৯৩ মিনিটে ইনাকি উইলিয়ামসের দারুণ গোলে এবার এগিয়ে যায় বিলবাও, কিন্তু বার্সা আর সুযোগ পাচ্ছিল না সেভাবে। শেষ দিকে হতাশ মেসি লাল কার্ড দেখে বার্সার ব্যর্থতার ষোলকলা পূর্ণ করেন।

    এই হারে গত ১০ ম্যাচ অপরাজিত যাত্রাটা ভেস্তে গেল বার্সার। ১৯৮৫ সালের পর আবার সুপার কাপ জিতল বিলবাও, তাদের ইতিহাসে মাত্র দ্বিতীয় বার। আর ১৯৬০ সালের পর একই প্রতিযোগিতায় হারাল রিয়াল ও বার্সাকে।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন