• দক্ষিণ আফ্রিকা-শ্রীলঙ্কা
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    খেলা বন্ধের কারণ যখন মৌমাছি!

    শ্রীলংকার ইনিংসের ২৫ তম ওভারের খেলা চলছে। আচমকাই এক দঙ্গল মৌমাছির আক্রমণে মাটিতে শুয়ে পড়লেন মাঠে উপস্থিত সবাই। খানিক বিরতি দিয়ে আবার আক্রমণ, পরের ওভারে আবার...। অবস্থা বেগতিক দেখে একসময় মাঠ ছেড়েই চলে যেতে হল সব খেলোয়াড় আর আম্পায়ারদ্বয়কে। এরপর দফায় দফায় চললো মৌমাছি তাড়ানোর প্রয়াস। তবে শ্রীলংকার ব্যাটসম্যানরা যতো সহজে উইকেটে বিলিয়ে আসছিলেন, মৌমাছির পালকে ততো সহজে মাঠছাড়া করা গেলো না। আর তাতে সোয়া এক ঘন্টার মতো সময় বন্ধ থাকলো খেলা।

     

     

    জোহানেসবার্গের ওয়ান্ডারার্স স্টেডিয়ামে চলমান দক্ষিণ আফ্রিকা ও শ্রীলংকার মধ্যকার তৃতীয় একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে ঘটে এমন ঘটনা। প্রথমে মাঠের প্রধান গ্রাউন্ডসম্যান লাঠি হাতে মৌমাছি তাড়ানোর বৃথা চেষ্টা করলেন। এরপর অগ্নি নির্বাপক যন্ত্র দিয়েও চললো মাঠ ফাঁকা করার চেষ্টা। তাতে কাজ হল বটে, কিন্তু খেলোয়াড়রা আবার মাঠে প্রবেশ করতে না করতেই ফের মাঠে ফেরে মৌমাছির ঝাঁক।

     

    শেষ পর্যন্ত পেশাদার ‘বী-কিপার’ এনে তাড়ানো হয় মৌমাছিদের। সোয়া এক ঘন্টা বন্ধ থাকার পর শুরু হয় খেলা। তবে মাঠ পুরোপুরি মৌমাছি মুক্ত করা যায় নি। সময়ে সময়ে উইকেটের আশেপাশে উড়তে দেখা যাচ্ছে বিচ্ছিন্নভাবে।

     

    মাঠের খেলায় অবশ্য মৌমাছির পালের মতো প্রতিরোধ গড়তে পারেন নি শ্রীলংকার ব্যাটসম্যানরা। ৩৯.২ ওভারে ১৬৩ রানেই গুটিয়ে গেছে সফরকারীদের ইনিংস। পরে দক্ষিণ আফ্রিকা পেয়েছে সাত উইকেটের সহজ জয়। ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে সিরিজ জয়ও নিশ্চিত করে ফেলেছে। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন