• " />

     

    সাঙ্গাকারার পাঁচে পাঁচ

    খেলার মাত্র ৫০ মিনিট গড়িয়েছে। এর মাঝেই ৩১ রানে ৫ উইকেট নেই সারের। প্রথম ইনিংসে এসেক্সের বিপক্ষে অল্পতেই অলআউট হওয়া তখন সময়ের ব্যাপার বলেই মনে হচ্ছিল। কিন্তু একজন মানুষ যে তখনো ক্রিজে রয়েছেন! বাকিদের যাওয়া আসার মিছিলে একাই ‘ঢাল’ হয়ে দাঁড়িয়েছেন কুমার সাঙ্গাকারা। প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে টানা পঞ্চম সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে নাম লিখিয়েছেন ইতিহাসের পাতায়।

     

    আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছেড়েছেন ২০১৫ সালে। কিছুদিন আগে ঘোষণা দিয়েছেন, এই মৌসুম শেষে বিদায় জানাবেন প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটকেও। আগের ৪ ম্যাচে ১৩৬, ১০৫, ১১৪ ও ১১৬ রানের ইনিংস খেলা সাঙ্গাকারা কালও খেলেছেন অবিচল ভাবেই। ৩৭১ মিনিট ক্রিজে থেকে দিনশেষে অপরাজিত আছেন ১৭৭ রানে। এটি তাঁর ক্যারিয়ারের ৯৯ তম সেঞ্চুরি, এর মাঝে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটেই তিন অংক ছুঁয়েছেন  ৬১ বার।

     

    প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে টানা পাঁচ ম্যাচে সেঞ্চুরি করার রেকর্ড আছে স্যার এভারটন উইকস, ব্রায়ান লারা, মাইক হাসি ও পার্থিব প্যাটেলের। ১৯৫৫-৫৬ মৌসুমে উইকস, ১৯৯৩-৯৪ মৌসুমে লারা, ২০০৩-০৪ মৌসুমে হাসি, ২০০৭-০৮ মৌসুমে প্যাটেল এই কীর্তি করেন। গতকাল সেঞ্চুরির ফলে এই চারজনের পাশে বসলেন সাঙ্গাকারা। 

     

    সাঙ্গাকারার সামনে আছেন মাত্র তিনজন। টানা ছয় ম্যাচে সেঞ্চুরি করে সবার ওপরে রয়েছেন স্যার ডন ব্র্যাডম্যান( ১৯৩৮-৩৯ মৌসুম করেছেন এই রেকর্ড) , চার্লস বারগেস ফ্রাই ( ১৯০১-০২ মৌসুম) ও মাইক প্রোকটর(১৯৭০-৭১ মৌসুম) ।

     

    টানা সেঞ্চুরি করা কিন্তু সাঙ্গাকারার পুরনো ‘অভ্যাস’। ২০১৫ বিশ্বকাপেও টানা ৪ ম্যাচে সেঞ্চুরি করে রেকর্ড গড়েছিলেন। সাঙ্গাকারা কি পারবেন পরের ম্যাচে সেঞ্চুরি করে ব্র্যাডম্যানকে ছুঁতে? নিজের ক্যারিয়ারের শততম সেঞ্চুরি তুলে নেওয়ার দিনে অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তির পাশে বসার চেয়ে সুখকর আর কী হতে পারে! 

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন