• ফুটবল

আইসল্যান্ডের রূপকথা!

পোস্টটি ১৬৫৩ বার পঠিত হয়েছে
'আউটফিল্ড’ একটি কমিউনিটি ব্লগ। এখানে প্রকাশিত সব লেখা-মন্তব্য-ছবি-ভিডিও প্যাভিলিয়ন পাঠকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিজ উদ্যোগে করে থাকেন; তাই এসবের সম্পূর্ণ স্বত্ব এবং দায়দায়িত্ব লেখক ও মন্তব্য প্রকাশকারীর নিজের। কোনো ব্যবহারকারীর মতামত বা ছবি-ভিডিওর কপিরাইট লঙ্ঘনের জন্য প্যাভিলিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গ হলেই কেবল সেই অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।

আজকে সবাই ব্যস্ত মেসি-রোনালদোর বন্দনায়। তবে এর মধ্যে আমরা এড়িয়ে যাচ্ছি এক সত্যিকারের রূপকথার গল্পের! এটা আইসল্যান্ডের অবিশ্বাস্য রূপকথার গল্প। ২৪ বারের চেষ্টায় এবারই প্রথম কোন বড় টুর্নামেন্টের চূড়ান্ত পর্বে খেলতে এসেছে তারা। প্রথম ম্যাচে ১-১ গোলে ড্র করে রুখে দিয়েছিলো পর্তুগালকে। দ্বিতীয় ম্যাচে পুসকাসের দেশ হাঙ্গেরি ড্র করতে বাধ্য হলো তাদের অদম্য মনোভাবের সামনে। এটি ছিল ট্রেলার মাত্র। "অদম্য" শব্দটি আগে ব্যবহার করে ফেলেছি। কিন্তু গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে আজ তারা যা করলো তার সাথে "অদম্য", "দুর্বিনীত", "দুর্নিবার"- শব্দকোষের কোন শব্দই হয়তো তাদের জন্য যথেষ্ট নয়। শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত হাল না ছাড়া, জয়ের তীব্র স্পৃহা, নিজেদের প্রমাণ করার জন্য শেষ বিন্দু দিয়ে চেষ্টা; সব দিয়ে আইসল্যান্ড লিখলো ইউরো ইতিহাসের এই অবিশ্বাস্য রূপকথাটি! ম্যাচের ৯৩ মিনিট পর্যন্ত যে খেলা ১-১ গোলে ড্র, সেখানে ইনজুরি সময়েরও পরে এসে কাউন্টার অ্যাটাকে গোল দিয়ে ২-১ গোলে জিতে পর্তুগালকে টপকে গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে উঠে গেলো শীর্ষ ১৬ তে!

২৩ বারের চেষ্টায় ব্যর্থ যে দল কখনো এমন টুর্নামেন্টে খেলেনি, দেশের মোট জনসংখ্যার প্রতি ৫ জনে একজন "উয়েফা এ" লাইন্সেন্সধারী কোচের দেশ যারা মাত্রই "নব্বইয়ের দশকের" শেষে ফুটবলকে ঢেলে সাজিয়েছে তারা নিজেরা হয়তো কখনো এমন অবিশ্বাস্য রূপকথা লিখবার কথা চিন্তা করেনি। মাত্র "তিন লক্ষ ত্রিশ হাজার" মানুষের দেশের আইসল্যান্ড হোক বাংলাদেশের মতো "১৮ কোটি" মানুষের দেশের ক্রীড়া উন্নয়নের রোল মডেল!

আর মাত্রই তো "শীর্ষ ১৬", এখান থেকে পরের ম্যাচে জয় আসুক বা না আসুক, আইসল্যান্ড আসলে সারা বিশ্বের মানুষের হৃদয় জিতে গেছে! তবে আশা ছাড়ছি না। পিকচার আভি বাকি হ্যায়! 

3500