• ফুটবল

রশিদী ইকেকিনি নাইজেরিয়ান ফুটবল সম্রাট

পোস্টটি ৩১২৬ বার পঠিত হয়েছে
'আউটফিল্ড’ একটি কমিউনিটি ব্লগ। এখানে প্রকাশিত সব লেখা-মন্তব্য-ছবি-ভিডিও প্যাভিলিয়ন পাঠকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিজ উদ্যোগে করে থাকেন; তাই এসবের সম্পূর্ণ স্বত্ব এবং দায়দায়িত্ব লেখক ও মন্তব্য প্রকাশকারীর নিজের। কোনো ব্যবহারকারীর মতামত বা ছবি-ভিডিওর কপিরাইট লঙ্ঘনের জন্য প্যাভিলিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গ হলেই কেবল সেই অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।

FB_IMG_1498742972414

আফ্রিকা মহাদেশের অন্যতম সেরা দল নাইজেরিয়া।নুওয়ানকো কনু, সেগুন ওডগ্বামী, স্টিফেন কেশি, ইমানুয়েল আমুনেক, ফিন্ডি জর্জ, মুদা আইন, পিটার রুফাইয়ের মত খেলোয়াররা নাইজেরিয়ার হয়ে মাঠ মাতিয়েছেন কিন্তু এই নাইজেরিয়ার আজকের পর্যায়ে আসার মূল কারিগর যে রশিদী ইকেকিনি তা পুরো ফুটবল বিশ্বের কাছে অজানা। আসুন আজ জেনে নেই কে এই রশিদী ইকেকিনি →

রশিদী ইকেকিনি দুর্দান্ত শর্ট, জাদুকারী ছন্দ, নিখুঁত পাস আর অমায়িক ব্যবহারে মুদ্ধ করেছিলেন পুরো বিশ্ববাসীকে। নাইজেরিয়ার ফুটবল ইতিহাসে নক্ষত্রের মত
স্মরনীয় হয়ে আছেন, থাকবেন। যার হাত ধরে প্রথম বারের মত ফুটবল বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতা লাভ করে আফ্রিকা মহাদেশের অন্যতম এই সেরা দলটি।

নাইজেরিয়ান ফুটবল ইতিহাসের সর্বকালের সেরা স্টাইকার বলা হয় এই রশিদী ইকেকিনিকে। যিনি নাইজেরিয়ান ফুটবলকে ম্যাপে রাখার জন্য এত কঠোর পরিশ্রম করেছেন। তিনি কখনও জাতীয় দলে কল আপস প্রত্যাখ্যান করেননি এমনকি,কখনও জাতীয় দলের খেলোয়াড়ের সাথে বৈষম্য তৈরি করেননি। একজন নেতার মত পুরো নাইজেরিয়া দলকে আলগিয়ে রাখতেন তিনি।

ইকেকিনির হাত ধরে নাইজেরিয়া প্রথম বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা লাভ করে। যা ইকেকিনির একক প্রচেস্টায় সফল হয়েছিল। তার পা থেকেই এসেছিল নাইজেরিয়ার ইতিহাসের প্রথম বিশ্বকাপ গোল। তিনি নাইজেরিয়ার হয়ে একটি ন্যাশনাল কাপ জিতেছেন, তাছাড়া তিনি নাইজেরিয়ার হয়ে ন্যাশনাল কাপে তিনটি রুপ্য এবং একটি ব্রোঞ্জ জিতেন। ইকেকিনি নাইজেরিয়ান লীগে তিনবার সর্বোচ্চ গোলদাতা হন । তিনি ১৯৮৪/৮৫ সালে ন্যাশনাল কাপে নাইজেরিয়ার হয়ে গোল করেন। ১৯৯০/ ৯২/৯৪ সালে ন্যাশনাল কাপে সর্বোচ্চ গোলদাতা হন। কিন্তু দেশের জন্য এতটুকু করার পর প্রাপ্য সম্মানটুকু পাননি এই নাইজেরিয়ান গ্রেট। ২০১২ সালে হতাশ আর তুচ্ছ হয় না ফেরার দেশে চলে যান তিনি। যদিও এনএফএফ এবং তার প্রাক্তন সহকর্মীরা এই মহান নাইজেরিয়ানকে আর স্মরণ করে না। এমনকি সময়ের সাথে সাথে পুরো ফুটবল বিশ্ব যুগান্তকারী ইকেকিনিকে ভুলে গেছে।