• ফুটবল

চ্যাম্পিয়নস লিগের রাজা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো

পোস্টটি ১৭৮১ বার পঠিত হয়েছে

১২৪ গোল, ৪৪ এ্যাসিস্ট ও ৮ হ্যাট্রিক ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর। রেকর্ড - ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, এ যেন একটি মুদ্রার দুটি পাশ।  চ্যাম্পিয়নস লিগের সর্বোচ্চ গোলের (১২৪ গোল) মালিক এই পর্তুগিজ তারকা। দাপুটে ক্যারিয়ার তাকে নিয়ে গিয়েছে চ্যাম্পিয়নস লিগের রাজার সিংহাসনে। ভেঙেছেন পুরাতন অনেক রেকর্ড এবং যোগ করেছেন নতুন রেকর্ড ইতিহাস। 

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, রিয়াল মাদ্রিদ ও ১০০ মিলিয়ন ট্রান্সফার ফি তে আসা বর্তমান ক্লাব জুভেন্টাসে। কোথায় তিনি হেরে যাওয়ার সাক্ষর রাখেনি। লড়াই করেছেন সম্পূর্ণ না করা পর্যন্ত সকল প্রতিযোগিতায়। গত মঙ্গলবার এথলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে হ্যাট্রিক করে জুভেন্টাস কে নিয়ে গিয়েছেন চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে। যোগ করেছেন আরো একটি নতুন ইতিহাস। সর্বোচ্চ আট হ্যাট্রিক করে একই সারিতে রয়েছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মেসির সাথে।

1552498109768

ছবি সূত্র : মার্কা  

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো কেন চ্যাম্পিয়নস লিগের রাজা তা তুলে ধরবো আপনাদের সামনে হার না মানা যোদ্ধার কয়েকটি অবিশ্বাস্য রেকর্ড দেখিয়ে। 

১. সর্বকালের সেরা গোল স্কোরার (১২৪ গোল)

চ্যাম্পিয়নস লিগে ১৬০ ম্যাচে ১২৪ গোল করে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো সর্বোচ্চ গোলের মালিক। প্রতি ম্যাচে ০.৭৪ গোল অনুপাত, যা তাকে সর্বকালের সেরা গোল স্কোরার করে তোলে। ১৬ গোল ব্যবধানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে বার্সেলোনা তারকা লিওনেল মেসি। নকআউট পর্বে সর্বোচ্চ ৬৩ গোলের মাইলফলক এই পর্তুগিজ তারকার। 

 ২.  সর্বোচ্চ এ্যাসিস্ট (৪৪) 

নিজে যেমন গোল করেন তেমনি সতীর্থদের দিয়ে গোল করাতে রয়েছে অসাধারণ কৌশল। ৪৪ গোলে সহায়তা করে চ্যাম্পিয়নস লিগের ইতিহাসে সর্বাধিক এ্যাসিস্ট করার রেকর্ড রয়েছে এই সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ তারকার। 

৩. হ্যাট্রিক শীর্ষে ( ৮ হ্যাট্রিকে সমান সারিতে মেসি) 

মেসি সর্বোচ্চ হ্যাট্রিকের খেতাব তুলে রাখলেও সেখানে ভাগ বসিয়ে নেয় ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। জুভেন্টাসের হয়ে এথলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে তুলে হ্যাট্রিক। ২০১৬-১৭ মৌসুমে বায়ার্ন মিউনিখ ও এথলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে সংক্ষিপ্ত সময় মা৷ ১৪ দিনের ভিতরে ব্যাক-টু-ব্যাক হ্যাট্রিক করার রেকর্ড গড়েছেন। ২০১৫-১৬ মৌসুমে ৩ টি হ্যাট্রিক করেন যা ছিলো একক মৌসুমে সর্বোচ্চ হ্যাট্রিকের রেকর্ড। 

৪. প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে তিনটি চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে গোল 

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে ২০০৮ সালে প্রথম চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে গোল করেছিলো। এরপর ২০১৫-১৬ মৌসুমে এথলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে এবং ২০১৬-১৭ মৌসুমে জুভেন্টাসের বিপক্ষে গোল করে তিনটি চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে গোল করা একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে রেকর্ড গড়েন। শেষ দুটি ফাইনালে গোল করেছিলো রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে।        

৫. চ্যাম্পিয়নস লিগের ৬টি গ্রুপ পর্যায়ে গোল 

চ্যাম্পিয়নস লিগের প্রত্যেক গ্রুপ পর্যায়ে গোল করার রেকর্ড গড়েছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। ২০১৭-১৮ মৌসুমে দুই লেগ মিলিয়ে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে মোট তিনটি গোল এবং টটেনহ্যামের সাথে গোল করে সবগুলো গ্রুপ পর্যায়ে গোল করেন।     

৬. একটি ক্লাবের হয়ে ১০০ গোল স্পর্শ করা প্রথম খেলোয়াড়

ক্লাব ইতিহাসে রিয়াল মাদ্রিদে ৯ বছরে এক অনন্য ক্যারিয়ার জুড়ে ছিলো ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর। সবচেয়ে বেশি রেকর্ড গড়েছেন এই ক্লাবের জার্সি পরিধান করে। গত মৌসুমে ১৫ গোলের সাথে  একই ক্লাবের হয়ে সর্বপ্রথম ১০০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন।    

৭. চ্যাম্পিয়নস লিগে এক মৌসুমে সর্বোচ্চ গোল (১৭ গোল)

রিয়াল মাদ্রিদের দশম চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা জেতার পেছনে সবচেয়ে বেশি অবদান রাখে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তার খেলার অসাধারণ নৈপু লস ব্লানকোসরা চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা নিজেদের ঘরে তুলে। সে মৌসুমে সর্বোচ্চ ১৭ গোল করে এক মৌসুমে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড গড়েন এই বিশ্বেসেরা ফুটবলার। 

৮. পাঁচটি চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা জয়ী প্রথম খেলোয়াড়       

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো তার ক্যারিয়ারে চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপার প্রথম স্বাদ গ্রহন করে রেড ডেভিলদের হয়ে। পরবর্তী চারটি শিরোপা অর্জন করেন রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে। ১৯৯২ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে ইউরোপীয় কাপের নাম করনের পরে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো প্রথম খেলোয়াড় পঞ্চমবারের মতো চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা অর্জনকারী। এছাড়া অন্যতম একটি রেকর্ড রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে হ্যাট্রিক শিরোপা জিতে।                 

1552427293914

রিয়াল মাদ্রিদে ৫ম চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা  (ছবি সুত্র : ইন্টারনেট)

৩৪ বছর বয়স, একজন তরুন খেলোয়াড়দের মতো এখনও খেলছেন পুরো মাঠ জুড়ে। পতিপক্ষ দলের কোচের নকশা তৈরি করতে হয় একজন রাজাকে থামানোর জন্য। কিন্তু একজন চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত থাকা রাজা তো রাজার বেশেই রাজ্য পরিচালনা করে। কত খেলোয়াড় আসবে যাবে, হয়তো ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো নামটা একজন এই যুগের বিশ্ব সেরাদের একজন হিসেবে শ্রদ্ধা-ভালোবাসা-ভক্তি নিয়ে  স্বর্নাকারে আজীবন তার নাম লিখা থাকবে। 

'প্যাভিলিয়ন ব্লগ’ একটি কমিউনিটি ব্লগ। প্যাভিলিয়ন ব্লগে প্রকাশিত লেখা, মন্তব্য, ছবি এবং ভিডিওর সম্পূর্ণ স্বত্ব এবং দায়দায়িত্ব লেখক এবং মন্তব্য প্রকাশকারীর নিজের। কোনো ব্যবহারকারীর মতামত বা ছবি-ভিডিওর কপিরাইট লঙ্ঘনের জন্য প্যাভিলিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গ হলেই কেবল সেই অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।