• ক্রিকেট

মুশফিক বললেন, সাকিবকে বাদ দাও!

পোস্টটি ৩৭২ বার পঠিত হয়েছে
'আউটফিল্ড’ একটি কমিউনিটি ব্লগ। এখানে প্রকাশিত সব লেখা-মন্তব্য-ছবি-ভিডিও প্যাভিলিয়ন পাঠকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিজ উদ্যোগে করে থাকেন; তাই এসবের সম্পূর্ণ স্বত্ব এবং দায়দায়িত্ব লেখক ও মন্তব্য প্রকাশকারীর নিজের। কোনো ব্যবহারকারীর মতামত বা ছবি-ভিডিওর কপিরাইট লঙ্ঘনের জন্য প্যাভিলিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গ হলেই কেবল সেই অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।

না মুশফিক লাস্ট ম্যাচে শূন্য করাতে লিখছি না ‌।

 

 

তবে একটা পর্যবেক্ষণ শেয়ার করছি।

সাকিব দলে থাকাবস্থায় মুশফিককে কোনদিন টি২০ তে পারফর্ম করতে দেখেছেন?

মুশফিকের সিগনিফিক্যান্ট পারফরম্যান্সগুলো,


>41* vs West Indies,2011 , সাকিব গোল্ডেন ডাক মারেন।

>37 vs Nederlands,2012, সাকিব ৩ এ নেমে ১২ বলে ১১ করে আউট।

সাকিব অনুপস্থিত থাকা ম্যাচগুলোতে,

>39(29) vs Srilanka,Palekelle,2013

SL 198,BD 181

>50(29) Vs New Zealand,Dhaka,2013

Nz 204, BD 189

>66(44) vs Srilanka ,2018, BD 193,SL 194

>NIDAHAS TROPHY,

72* vs Both India, Srilanka

>60 vs India ,2019


দেরাদুনে, মুশফিক ৪ এ নেমে ৪৬, সাকিব ৫ এ নামে। অর্থাৎ ,মুশফিক সাকিবের আগে।আর সাকিবের পারফরম্যান্স খারাপ হলো।

মুশফিক বিপিএলেও সাকিবের থেকে সবসময়ই ব্যাটসম্যান হিসেবে কনসিস্টেন্ট ছিলেন।ভালো স্ট্রাইকরেটও বজায় রেখেছেন। কিন্তু দুইজন কখনো একই দলে খেলেননি।

সাকিব দলে থাকাবস্থায় , মুশফিকের পারফরম্যান্স তো তাহলে প্রায় শূন্য!

তার মানে এই নয় মুশফিকের জন্য সাকিব কুফা। তবে এইটুকু বোঝা যায় যে সাকিব না থাকলে সাকিবের রোলটাতেই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মুশফিক খেলেন।একই দায়িত্ব পালন করতে পারা দুইজন খেলোয়াড় হয় একে অপরের প্রতিযোগী হয়ে থাকবেন। কিন্তু সাকিব দলে আসলে মুশফিক যেহেতু নিজের পারা সেরা খেলাটাই দিতে পারেন না তার মানে,দলকে এমন সিচুয়েশন ক্রিয়েট করতে হবে যাতে মুশফিক সাকিব ইনিংস গঠনের ভিন্ন জায়গায় নিজেদের স্কিল ইম্প্লিমেন্ট করতে পারেন । দুইজনের কাছ থেকেই সেরাটা বের হবে তাতে হয়তো। ওপেনিং আর ৩ নম্বর টি২০ তে তেমন পার্থক্য রাখে না ।অন্তত বাংলাদেশ দলে।সাকিবকে ওপেনে পাঠিয়ে।লিটনকে ৩ এ নামিয়ে দিলে ।আর মুশফিককে ৪ এ খেলানো হলে ভালো হয়(২০১৯ বিপিএলে মুশফিক ৪ এ খেলে)।আর এরপর আফিফ ।এমনকি দরকার পড়লে কোনদিন লেফট হ্যান্ড ,রাইট হ্যান্ড কম্বিনেশনের জন্য এটা ব্যবহৃত হতেই পারে।

অথবা মুশফিককে নাইই খেলানো ‌। কারণ সাকিব থাকলে মুশফিকের এভারেজ তো ১৫ ও হয় কিনা সন্দেহ।

নাকি এখন মুশফিক কনসিস্টেন্ট না হতে পারলে মুশফিকের বলা উচিত সাকিবকে বাদ দাও!

হয়তো যেমন কিপিং না করতে পারলে তার ব্যাটিং করতে ইচ্ছে করে না(হা হা) ,তেমনই ব্যাটে রান পাওয়ার জন্য কোনদিন তো বলেও বসতে পারেন,সাকিবকে বাদ দাও!