• দক্ষিণ আফ্রিকা-শ্রীলঙ্কা
  • " />

     

    নিজের ইচ্ছামতো টেস্ট খেলতে পারবেন না এবি ডি ভিলিয়ার্স

    তাঁর অবসরের গুঞ্জনটা বেশ কয়েকদিন ধরেই শোনা যাচ্ছিল। তবে গতকাল এবি ডি ভিলিয়ার্স স্পষ্টভাবেই জানিয়েছেন, তিনি এখনই টেস্ট ছাড়ার কথা ভাবছেন না। একই সাথে এটাও বলেছেন, আগামী মার্চে অনুষ্ঠিত নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ থেকে নিজেকে দূরেই রাখছেন আপাতত। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী হারুন লরগাত অবশ্য মনে করেন, নিজের ইচ্ছেমত ম্যাচ খেলা কিংবা বিশ্রাম নেওয়ার ‘স্বাধীনতা’ ভবিষ্যতে নাও পেতে পারেন  ডি ভিলিয়ার্স!

     

    কনুইয়ের ইনজুরি থেকে ফিরে শ্রীলংকার বিপক্ষে আগামী ২৫ জানুয়ারি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মাঠে নামবেন এবি। তবে সুস্থ হলেও এখনই টেস্টে ফিরতে চান না তিনি। তাই কিউইদের বিপক্ষে সিরিজে তাঁকে দলে না নেওয়ার জন্য নির্বাচকদের অনুরোধ জানিয়েছেন। হারুন মনে করেন, একবার খেলা শুরু করলে এভাবে স্বেচ্ছায় টেস্ট থেকে বিশ্রাম নেওয়াটা কঠিন হবে এবির জন্য, “যখন সে খেলায় ফিরবে, তখন থেকে বিশ্রামের কোনো সুযোগ পাবে না। তাঁকে নিয়মিতই খেলে যেতে হবে। এই ব্যাপারে তাঁর সাথে আগেও আলোচনা হয়েছে, সামনেও হবে।”

     

    ২০১৯ বিশ্বকাপটাই তাঁর মূল লক্ষ্য বলে জানিয়েছেন এবি। হারুন জানিয়েছেন, ওয়ানডেতে ডি ভিলিয়ার্স অধিনায়ক বলেই সেখানে তাঁর দায়িত্বটা টেস্টের চেয়ে বেশি, “ওয়ানডেতে সে অধিনায়ক বলে ব্যাপারটা টেস্টের চেয়ে ভিন্ন। টেস্টে আমাদের নির্ভরযোগ্য একটা দল আছে, টি-টোয়েন্টিতেও। সেখানে এবিকে ছাড়াই আমরা ভালো করছি। তাঁর অনুপস্থিতিতে নতুনরা নিজেদের জায়গা করে নিচ্ছে দলে। সে বিশ্বকাপের কথা বলেছে, এজন্যই সে সব ওয়ানডে খেলবে বলে আমার ধারণা।”

     

    এবিকে ছাড়াই গত কয়েকটি সিরিজে দারুণ খেলেছে প্রোটিয়ারা। দলের অন্যতম নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান ডি ভিলিয়ার্সকে টেস্ট দলে ফিরে আসতে তাই কিছুটা বেগ পেতে হবে বলেই মনে করেন হারুন, “যদি নির্বাচকরা ভাবেন গত সিরিজগুলোতে জয়ী দলে কোনো পরিবর্তন আনবেন না, তাহলে এবির দলে ফেরাটা কঠিন হবে। সে নিজেও এই ব্যাপারে ভালোমতোই জানে। পুরো ব্যাপারটাই নির্বাচকদের হাতে।”


     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন