• অন্যান্য

ফুটবল কিংবা অলিম্পিক - যুক্তরাজ্য, গ্রেট ব্রিটেন, ইংল্যান্ড বিভ্রান্তি

পোস্টটি ৮১১ বার পঠিত হয়েছে
'আউটফিল্ড’ একটি কমিউনিটি ব্লগ। এখানে প্রকাশিত সব লেখা-মন্তব্য-ছবি-ভিডিও প্যাভিলিয়ন পাঠকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিজ উদ্যোগে করে থাকেন; তাই এসবের সম্পূর্ণ স্বত্ব এবং দায়দায়িত্ব লেখক ও মন্তব্য প্রকাশকারীর নিজের। কোনো ব্যবহারকারীর মতামত বা ছবি-ভিডিওর কপিরাইট লঙ্ঘনের জন্য প্যাভিলিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গ হলেই কেবল সেই অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।

ইংল্যান্ড, ব্রিটেন কিংবা যুক্তরাজ্য - নাম তিনটি নিয়ে প্রায়ই জটের সম্মুখীন হই আমরা অনেকেই। ক্রিকেট কিংবা ফুটবলে ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড বা আয়ারল্যান্ড দেখা গেলেও অলিম্পিকের দিকে তাকালে দেখা যায় 'গ্রেট ব্রিটেন'র নাম, আবার জাতিসংঘের অন্তর্ভুক্ত দেশের তালিকায় এদের কারোরই নাম নেই, সেখানে রয়েছে 'যুক্তরাজ্য'র নাম!

এমন কিছু জট থেকে আমাদের মনে জাগা প্রশ্নের উত্তর সংক্ষিপ্ত আকারে দেওয়ার চেস্টা করছি, এই লেখায়!


★ প্রথমেই গ্রেট ব্রিটেন সম্পর্কে ধারণা নেওয়া যাক। উত্তর আটলান্টিক মহাসাগরের একটি দ্বীপ বা ভূখণ্ডের নাম গ্রেট ব্রিটেন, যা ইউরোপের সবচেয়ে বড় দ্বীপ। গ্রেট ব্রিটেন কেবল একটি বৃহৎ দ্বীপই নয় বরং এটি একটি বিশাল দ্বীপপুঞ্জও বটে। গ্রেট ব্রিটেনের মুল দ্বীপ কে কেন্দ্র করে এর আশেপাশে প্রায় ১০০০ টি ছোট বড় দ্বীপ রয়েছে। গ্রেট ব্রিটেনে ৩ টি রাজ্য বা দেশের অবস্থান - ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড, ওয়েলস। ভৌগোলিক এবং রাজনৈতিক ভাবে এই তিনটি দেশকে একসাথে বোঝাতে "গ্রেট ব্রিটেন" বলা হয়।


★ এবার আসা যাক, যুক্তরাজ্য'র ব্যাপারে। গ্রেট ব্রিটেন দ্বীপ সহ বাইরের আরো কিছু অঞ্চল ও দ্বীপ নিয়ে যুক্তরাজ্য গঠিত। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো উত্তর আয়ারল্যান্ড।

গত ৫০০ বছরের বিভিন্ন পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে আজকের এই যুক্তরাষ্ট্র, যে পরিবর্তনের পিছনে আছে যুদ্ধ-বিগ্রহ, সংগ্রাম, রক্তপাতের ইতিহাস। ইংল্যান্ড ও ওয়েলস একত্র হয় ১৫৩৬ সালে, ১৭০৭ সালে এতে যুক্ত হয় স্কটল্যান্ড। তখন এই তিনটি মিলে গঠিত হয় ’The Kingdom of Great Britain’।

প্রায় ১০০ বছর পর এর সাথে যুক্ত হয় আয়ারল্যান্ড দ্বীপ। তখন এর নাম পাল্টে হয় 'The United Kingdom of Great Britain and Ireland'! ইউরোপের তৃতীয় ও বিশ্বের ২০ তম বৃহৎ দ্বীপ হলো এই আয়ারল্যান্ড।

১৯২১ সালে আয়ারল্যান্ড দ্বীপটি বিভক্ত হয়ে যায়, দক্ষিণের অধিকাংশ মানুষ গ্রেট ব্রিটেন থেকে সরে আসতে চাওয়ার কারণে; যার একটি হলো "রিপাবলিক অফ আয়ারল্যান্ড", যারা নিজেদের সার্বভৌমত্ব প্রতিষ্ঠা করতে সমর্থ হয়। অন্যটি হলো " নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড", যারা ব্রিটেনের সাথেই রয়ে যায়। তখন এর নাম আবার পাল্টে হয় 'The United Kingdom of Great Britain and Northern Ireland'!

আলাদা আলাদা জাতীয় পতাকা, নিজস্ব স্বায়ত্তশাসন, নিজস্ব রাজধানী, স্বয়ংসম্পুর্ণ প্রশাসন থাকলেও কেবল নিজস্ব সার্বভৌমত্ব না থাকার কারণে ওয়েলস, স্কটল্যান্ড, নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড নয় বরং বিশ্বের বুকে সার্বভৌম দেশটি হলো যুক্তরাজ্য। তবে স্বায়ত্তশাসন থাকার পরেও এই তিনটি দেশের সার্বভৌমত্ব না থাকার কারণ হলো রাজতন্ত্র; এই তিনটি দেশ রাণীকে গোটা রাজ্যের প্রধাণ মেনে তাদের নিজস্ব স্বায়ত্তশাসন ও স্বাধীন প্রশাসনের অধিকার পেয়েছে!


ভৌগোলিক এবং রাজনৈতিক দিক থেকে আপাতত বের হওয়া যাক। উপরের আলোচনা থেকে এ ব্যাপারটি স্পষ্ট নিশ্চয়ই যে - গ্রেট ব্রিটেন হচ্ছে একটি দ্বীপ, যার মাঝে রয়েছে ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড, ওয়েলস। আর যুক্তরাজ্য হচ্ছে এই গ্রেট ব্রিটেন এবং নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড। অন্যদিকে আয়ারল্যান্ড আলাদা একটি সার্বভৌম দেশ।


এখন তবে গ্রেট ব্রিটেন কিংবা যুক্তরাজ্যর খেলাধুলার দিকে নজর দেয়া যাক!

★ ফুটবল - আপনি জানেন কি, ফুটবলের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ কবে এবং কাদের ভিতরে অনুষ্ঠিত হয়েছিলো?? ১৮৭২ সালের ইংল্যান্ড বনাম স্কটল্যান্ডের ম্যাচটি ছিল ফুটবল বিশ্বের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ! সুতরাং বলা যায়, দুইটি দেশের মাঝে প্রতিযোগিতামুলক ম্যাচ খেলার রীতিটি মুলত ব্রিটেন থেকেই উৎপত্তি হয়। ১৮৭২ থেকে ১৯০০ সালের মাঝে গ্রেট ব্রিটেনের ৪ টি দেশের মাঝে বেশকিছু প্রতিযোগিতামুলক ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। বিংশ শতাব্দীর শুরুর দিকে অন্যান্য দেশ বা রাষ্ট্র নিজেদের মাঝে প্রতিযোগিতামুলক ম্যাচ খেলতে আরম্ভ করে। সুতরাং, ১৯০৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া ফিফা ব্রিটেনের ৪ টি দেশ কে আলাদা আলাদাভাবে ফুটবল খেলার স্বাধীনতা দেয়। একারনেই গ্রেট ব্রিটেন কিংবা যুক্তরাজ্যর অন্তর্ভুক্ত দেশগুলো ফুটবলে আলাদা আলাদাভাবে অংশ নিয়ে থাকে! এছাড়া এখনো ব্রিটিশরা যেসব জায়গায় শাষণ করে, তাদের'ও নিজস্ব ফুটবল দল রয়েছে যেমন জার্সি, বার্মুডা, এঙ্গোলিয়া, ব্রিটিশ ভার্জিন আইসল্যান্ড, জিব্রাল্টার ইত্যাদি। যাদের কোন কোন দল কেবল উয়েফা স্বীকৃত, তবে অধিকাংশই উয়েফা কর্তৃক স্বীকৃত নয়!


★ অলিম্পিক - অলিম্পিক টুর্নামেন্ট পরিচালিত হয়, ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিক কমিটি দ্বারা, যা প্রতিষ্ঠিত হয় ১৮৯৪ সালে, যেখানে অফিশিয়ালি "যুক্তরাজ্য" নামে নিজেদের নাম লেখায় তখনকার যুক্তরাজ্য রাজ পরিবার। এবং যুক্তরাজ্য নামে অংশ নিয়েই ১৯০৮, ১৯১২ অলিম্পিকে স্বর্ণ'ও জিতে নেয় যুক্তরাজ্য। কিন্তু বিপত্তি বাঁধে অলিম্পিক ফুটবলে, যেখানে স্কটল্যান্ড, ওয়েলস কিংবা নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড আলাদাভাবে প্রতিযোগিতা করে! ১৯৭০'র পরে অলিম্পিকে যুক্তরাজ্য অংশ নেয়নি! ২০১২ সালে যুক্তরাজ্য স্বাগতিক হওয়ার কারণে ওয়েলস, স্কটল্যান্ড, নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড নিজেদের খেলোয়াড়দের একত্রে অংশ নেওয়ার অনুমতি দেয়! যদিও পরের আসরে তারা সেই অনাপত্তিপত্র স্থগিত করে, যার ফলে অলিম্পিক ফুটবলে যুক্তরাজ্যের কোন অংশগ্রহণ ছিলোনা ১৬ এর আসরে, এমনকি আগামী বছরের টোকিও অলিম্পিকেও অংশ নিবেনা যুক্তরাজ্যর ফুটবল দল।

তবে একটা প্রশ্ন কি মনে জাগে যে অলিম্পিকে তো 'যুক্তরাজ্য' অংশ নিচ্ছে তবে দলের নাম "যুক্তরাজ্য" না হয়ে "গ্রেট ব্রিটেন" হলো কেনো!? এক্ষেত্রে সবার জানা জরুরি যে অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারী দলটির পুরো নাম হচ্ছে "গ্রেট ব্রিটেন এন্ড নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড অলিম্পিক টিম", যাকে সংক্ষেপে "টিম গ্রেট ব্রিটেইন" ডাকা হয়!

এই নাম পরিবর্তন করে ইউনাইটেড কিংডম অলিম্পিক টিম করার প্রস্তাবনা আসলেও ব্রিটিশ অলিম্পিক এসোসিয়েশন তা নাকচ করে দেয়, কেনোনা যুক্তরাষ্ট্র বলতে ব্রিটিশদের শাষণ করা অঙ্গরাজ্য'ও বোঝায়, যারা কিনা অলিম্পিক দলের অন্তর্ভুক্ত নয়।

এখন বাকী রইলো, ক্রিকেট, ক্রিকেটে স্কটল্যান্ড আলাদা হলেও ইংল্যান্ড কিংবা ওয়েলস আলাদা ক্রিকেট দল থাকার পরেও এসোসিয়েশন একটি কেনো, তার আলোচনা অন্য এক পোস্টে করা যাবে। আর হ্যা, জাতিসংঘে "গ্রেট ব্রিটেন" নয়, বরং "যুক্তরাজ্য" হিসেবে তালিকাভুক্ত রয়েছে এই অঞ্চলটি।

ধন্যবাদ!