• ওয়েস্ট ইন্ডিজ-ভারত সিরিজ
  • " />

     

    • ওয়েস্ট ইন্ডিজ-ভারত সিরিজ

    ব্যাটে-বলে উজ্জ্বল পান্ডিয়াতেই সিরিজ ভারতের

    স্কোর

    ভারত ২০ ওভারে ১৬৭/৫ ( রোহিত ৬৭, পান্ডিয়া ২০*; কটরেল ২/২৫, থমাস ২/২৭)

    ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৫.৩ ৯৮/৪ (পাওয়েল ৫৪, পুরান ১৯; পান্ডিয়া ২/২৩)

    ভারত বৃষ্টি আইনে ২২ রানে জয়ী

     

    ২৭ বলে দরকার ৭০ রান। কাজটা কঠিন হলেও কাইরন পোলার্ড ও শিমরন হেটমেয়ার একটা শেষ চেষ্টা অবশ্যই করতেন। বেরসিক বৃষ্টি সেটা হতে দিলো না। ফ্লোরিডায় সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ক্রুনাল পান্ডিয়ার অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে বৃষ্টি আইনে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ২২ রানে হারিয়েছে ভারত। এই জয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করলো বিরাট কোহলির দল। 

    ভারতের দেওয়া ১৬৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা একদম ভালো হয়নি ওয়েস্ট ইন্ডিজের। তিন ওভারের মাঝেই ৮ রানে পড়ে দুই উইকেট। দুই ওপেনার ফেরার পর দলের হাল ধরেছিলেন নিকোলাস পুরান ও রোভমান পাওয়েল। পুরান খানিকটা ধীরে সুস্থে খেললেও পাওয়েল ছিলেন মারমুখী মুডে। 

    ছয়টি চার ও তিনটি ছয়ে পাওয়েল করেন হাফ সেঞ্চুরি। পুরানকে সাথে নিয়ে গড়া ৭৬ রানের জুটি কোহলির কপালে বেশ চিন্তার ভাজ ফেলেছিল। ১৪ তম ওভারে বোলিংয়ে এসে জোড়া আঘাত হানেন পান্ডিয়া। তিন বলের ব্যবধানে পুরান ও পাওয়েলকে ফিরিয়ে ভারতকে স্বস্তির ব্রেকথ্রু এনে দেন তিনি।

    পাওয়েল-পুরান ফেরার পর শ্লথ হয়ে যায় রানের গতি। সাথে যোগ হয় বৃষ্টি। ১৬ তম ওভারে নামা বৃষ্টি আর কমেনি। বৃষ্টি আইনে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ভারতই। 

    গত ম্যাচের মতো কালও টসে জিতেছিল ভারত। এবার অবশ্য ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন কোহলি। রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ান দারুণ সূচনা এনে দেন দলকে। ধাওয়ান ২৩ রানে ফিরলেও ছয়টি চার ও তিনটি ছয়ে রোহিত করেছেন ৬৭ রান। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে এখন সবচেয়ে বেশি ছয়ে মালিক রোহিতই(১০৭), পেছনে ফেলেছেন ক্রিস গেইলকে(১০৫)। রোহিত ফেরার পর কিছুটা কমে আসে রানের গতি। ১৭ রানের মাঝে আরও দুই উইকেট হারায় ভারত। 

    শেষের দিকে পান্ডিয়ার ২০ রানের ঝড়ো ইনিংসের সুবাদে ১৫০ পার করে ভারত। অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের জন্য ম্যাচসেরা হয়েছেন পান্ডিয়াই। এই হারে টি-টোয়েন্টিতে ৫৭ ম্যাচ হারল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বাংলাদেশ ও শ্রীলংকার সাথে যৌথভাবে সবচেয়ে বেশিবার টি-টোয়েন্টি ম্যাচ হারার রেকর্ড এখন ক্যারিবিয়ানদের।