• আইপিএল ২০২০
  • " />

     

    বিসিবির কাছ থেকে আইপিএলে খেলার অনুমতি পাননি মোস্তাফিজ

    মোস্তাফিজুর রহমানকে আইপিএলে খেলার অনুমতি দেয়নি বিসিবি। আইপিএলের ড্রাফটে নয় বরং বদলি হিসেবে আইপিএলে খেলার সুযোগ এসেছিল তার সামনে। প্রথমবার গত মার্চে যখন প্রস্তাব এসেছিল, করোনা নিয়ে আতঙ্কে থাকায় তখন তিনি নিজেই ফির‍িয়ে দিয়েছিলেন সেই প্রস্তাব। আর দ্বিতীয়বার প্রস্তাব এসেছিল কলকাতা নাইট রাইডার্সের পক্ষ থেকে, ইংল্যান্ড পেসার হ্যারি গারনির বদলি হিসেবে তাকে চাইছিল তারা।
     


    তবে একই সময়ে বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কা সফরে যাচ্ছে ৩ টেস্টের সিরিজ খেলতে। অক্টোবর এবং নভেম্বর জুড়ে এই সিরিজে বাংলাদেশ দলের পেস বিভাগের পরিকল্পনার গুরুত্বপূর্ণ অংশ তিনি। তাই মোস্তাফিজকে আইপিএল খেলার অনাপত্তিপত্র দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে বিসিবি। খবরটি ক্রিকবাজকে নিশ্চিত করেছেন বিসিবি পরিচালক আকরাম খান, “আইপিএল থেকে একটি প্রস্তাব এসেছিল। তবে যেহেতু আমাদের সফর আছে সামনে, তাই আমরা তাকে অনাপত্তিপত্র দেইনি। মোস্তাফিজ আমাদের গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার আর সামনের সিরিজটিও গুরুত্বপূর্ণ।”

    আইপিএলে এর আগে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের হয়ে দুই মৌসুম খেলেছিলেন মোস্তাফিজ। নিজের প্রথম মৌসুমে দলকে শিরোপাও এনে দিয়েছিলেন। ২০১৮ সালে মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের হয়ে খেলে চোট নিয়ে দেশে ফেরেন মোস্তাফিজ। তখন বিসিবি সভাপতি তাকে আর বিদেশী লিগে খেলতে অনুমতি দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছিলেন। তবে এবার নিজের ফর্ম ফিরে পেতে আইপিএলের নিলামে নিবন্ধিত হতে তাকে অনুমতি দিয়েছিল বিসিবি, যদিও শেষ পর্যন্ত অবিক্রিত ছিলেন তিনি। 

    গত মার্চের পর থেকে আর দেশের হয়ে টেস্ট খেলতে নামেননি মোস্তাফিজ। ২০১৯ বিশ্বকাপে ২০ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। এরপর থেকে শুধু ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টিই খেলেছেন এই বাঁহাতি পেসার।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন