• আইপিএল ২০২০
  • " />

     

    বেঞ্চ থেকে একাদশে এসে আইপিএলে চমকে দিতে পারেন যে পাঁচ ক্রিকেটার

    ম্যাক্সওয়েলদের মতো পরীক্ষিত পারফর্মাররা এবার আইপিএলে এখন পর্যন্ত যেমন ফ্লপ, তেমনি নরকিয়ার মতো কেউ কেউ চমকেও দিয়েছেন। এর বাইরেও এবারের আইপিএলে এখনও সেভাবে সুযোগ না পাওয়াদের মধ্যে কেউ আছেন, যারা চমকে দিতে পারেন সামনে। সেরকম পাঁচজনকে বেছে নিয়েছে ইএসপিএনক্রিকইনফো।

     

    ইশান পড়েল, কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব

     

    ২০১৮ অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ দিয়ে প্রথম নজরে এসেছিলেন এই পেসার। ১৪০ এর ওপর টানা বল করে যেতে পারেন, বাংলার হয়ে সৈয়দ মুশতাক আলী ও রঞ্জি ট্রফিতেও আলো ছড়িয়েছেন। রঞ্জিতে গত মৌসুমে ২৩ উইকেট নিয়ে বাংলাকে ফাইনালে নিয়ে যাওয়ার পেছনে ছিল তার বড় অবদান। ডেথ বোলিং নিয়ে এবার ভুগছে পাঞ্জাব, মুজিব উর রেহমান ও তরুণ আর্শদীপ সিংয়ের ওপর এবার বেশি নির্ভর করতে হচ্ছে তাদের। সেক্ষেত্রে তরুণ পড়েল হতে পারেন বিকল্প।

     

     

    টম ব্যান্টন, কেকেআর

    ওপেনিং নিয়ে এবার সুনীল নারাইন ফাটকা কাজে লাগেনি কেকেআরের। শেষ পর্যন্ত ফ্লপ নারাইনকে সরিয়ে সেখানে উঠে এসেছেন রাহুল ত্রিপাঠি। তবে সেখানে বিকল্প হতে পারতেন টম ব্যান্টন। আরসিবির বিপক্ষে একটা ম্যাচে অবশ্য সুযোগ পেয়েছেন, তবে সেখানে ব্যর্থ হলেও ব্যান্টন হতে পারেন বিকল্প। গতবছর টি-টোয়েন্টি ব্লাস্টে তোলপাড় ফেলে দিয়েছিলেন ব্যান্টন। ৫১ বলে পেয়েছিলেন সেঞ্চুরি, পাকিস্তানের বিপক্ষেও এই গ্রীষ্মে তিন ম্যাচে ১৩৭ রান করেছেন প্রায় ১৫৩ স্ট্রাইক রেটে। এবার অতটা ফর্মে না থাকা মরগান, কামিন্স বা রাসেলের বদলে কি আরেকটা সুযোগ ব্যান্টন পাবেন?

     

    মায়াংক মারকান্ডে, রাজস্থান রয়্যালস

    দুই বছর আগে মুম্বাইয়ের হয়ে আইপিএল অভিষেকে সাড়াই ফেলে দিয়েছিলেন মায়াংক মারকান্ডে। গত বছর অবশ্য তেমন কিছু করতে পারেননি এই লেগ স্পিনার। এই বছর রাজস্থানে এসেছেন, তবে এখনও সুযোগ পাননি। রাজস্থানের রিস্ট স্পিনার শ্রেয়াস গোপাল সিজনের শুরু থেকে অটোমেটিক চয়েস, তবে এই মৌসুমে সাত ম্যাচে ওভারপ্রতি নয় ইকোনমিতে সাত উইকেট নিয়ে কিছুটা বিবর্ণ। মারকান্ডে কি সুযোগ পাবেন গোপালের জায়গায়?

     

    বিরাট সিং, সানরাইজার্স হায়দরাবাদ

    মিডল অর্ডার নিয়ে এবার শুরু থেকেই ভুগছে হায়দরাবাদ। কেন উইলিয়ামসন ছাড়া কেউ তেমন সুবিধা করতে পারছেন না। স্থানীয়দের মধ্যে অভিষেক শর্মা, প্রিয়ায়ম গার্গ, আব্দুস সামাদ বা বিজয় শংকর কেউই তেমন আস্থার প্রতিদান দিতে পারছেন না। সেক্ষেত্রে ২২ বছর বয়সী বিরাট সিং হতে পারেন ওয়াইল্ড কার্ড। গত মৌসুমে মুশতাক আলী ট্রফিতে ১৪২ স্ট্রাইক রেটে সর্বোচ্চ রান স্কোরার ছিলেন এই ব্যাটসম্যান।  

     

    জেসন হোল্ডার, সানরাইজার্স হায়দরাবাদ

     

    ইনজুরড মিচেল মার্শের বদলে শেষ মুহূর্তে এসেছিলেন দলে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো ম্যাচ খেলার সুযোগ পাননি ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক। রশিদ খান, ডেভিড ওয়ার্নার অটোমেটিক চয়েস। বেইরস্টো আর উইলিয়ামসনের জায়গায় দলে আসাও কঠিন। তবে বোলিংয়ে ডেপথ যোগ করার জন্য আর ব্যাটিংয়ে ফিনিশার রোলে ভেবে দেখা যেতে পারে এই অলরাউন্ডারকে। সেক্ষেত্রে উইলিয়ামসন বা বেইরস্টোর জায়গায় দলে আসতে পারেন তিনি।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন