X
GO11IPL2020
  • ফুটবল

অভিজ্ঞ রিয়াল নাকি অনভিজ্ঞ সিটি?

পোস্টটি ৯৫৩ বার পঠিত হয়েছে
'আউটফিল্ড’ একটি কমিউনিটি ব্লগ। এখানে প্রকাশিত সব লেখা-মন্তব্য-ছবি-ভিডিও প্যাভিলিয়ন পাঠকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিজ উদ্যোগে করে থাকেন; তাই এসবের সম্পূর্ণ স্বত্ব এবং দায়দায়িত্ব লেখক ও মন্তব্য প্রকাশকারীর নিজের। কোনো ব্যবহারকারীর মতামত বা ছবি-ভিডিওর কপিরাইট লঙ্ঘনের জন্য প্যাভিলিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গ হলেই কেবল সেই অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।

স্বাগতিক সিটির আক্রমণভাগে Kevin de Bruyne, Aguero, David Silva সাথে মাঝমাঠে Fernandinho & Fernando চাইবে যতটা পারা যায় খেলা নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে। বিশেষ করে দুই F এর দায়িত্ব থাকবে যতটা সম্ভব প্রেসিং করে নিজেদের হেফাজতে বল রাখা যায়। আর ইতিহাদে রিয়ালের আক্রমণের দায়িত্বে থাকবে BBC, মাঝমাঠে মদ্রিচ ও ক্যাসেমিরর সাথে ক্রুসকে দেখার সম্ভাবনাই সবচেয়ে বেশি, যাদের কাজ হবে কিনা বলের নিয়ন্ত্রন রেখে সামনের তিন রথীর সাথে পিছনের চার মিলিয়ে সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়া এবং নিজেদের নিয়ন্ত্রণে খেলা রাখা।সব মিলিয়ে কেমন হতে যাচ্ছে প্রথম সেমিফাইনাল?

রিয়াল হয়তোবা নামবে জিদানের সবচেয়ে পছন্দের এবং বর্তমান সময়ে রিয়ালের সবচেয়ে কার্যকরী ৪-৩-৩ কম্বিনেশানে। অনুরুপ সমন্বয়ই হয়তবা দেখা যাবে প্যালেগ্রিনির দলে।

Manchester City Projected XI: Hart, Sagna, Otamendi, Kompany, Clichy, Fernando, Fernandinho, Navas, Slva, De Bruyne, Agüero.

Real Madrid Projected XI: Keylor Navas, Carvajal, Pepe, Ramos, Marcelo, Casemiro, Kroos, Modric, Bale, Ronaldo, Benzema.

 ronaldo-aguero-man-city-real-madrid_3449081

আজকের মুল খেলা মনে হয় মাঝমাঠই নিয়ন্ত্রন করবে। যার মাঝমাঠ যত বেশি সফলভাবে নিজেদের দায়িত্ব পালনে সক্ষম হবে ততই তাদের পক্ষে ফল আসার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে। সেক্ষেত্রে কিছু প্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখার মত হবে যেমন Kevin de Bruyne v Casemiro কিংবা Fernando v Luka Modric। সিটির তুরুপের নতুন তাস Kevin de Bruyne এর ভয়ঙ্কর গতিকে আটকাতে রামোস, পেপের সাথে সবচেয়ে দায়িত্বশীল থাকতে হবে ক্যাসেমিরোকে। সিলভা ও এগুয়েরো সমন্বিত কাউন্টার এটাক মাঝমাঠ পেরোলেই যেকোনো কিছু হতে পারে বলে কিছুটা হাইলাইন নিয়ে হয়তবা দেখা যাবে রিয়ালকে খেলতে। অপরদিকে বিবিসিকে আটকানোর সবচেয়ে ভাল উপায় বোধকরি তাদেরকে সঠিক সময়ে সঠিক বল দেওয়াটা আটকানোর মাধ্যমেই শুধুমাত্র সম্ভব। এজন্য সিটির দুই F এর দায়িত্ব থাকবে যতটা সম্ভব প্রেস করে মদ্রিচ ও ক্রুসের স্বাভাবিক খেলা নষ্ট করা। যদিও সিটি অধিনায়ক কোম্পানি থাকবেন শেষ লাইনে ওটামান্দিকে নিয়ে যেকোনো বিপদ মোকাবেলার জন্য।

ইঞ্জুরির পাশাপাশি আজ রিয়ালের জন্য একটা চিন্তার কারণ হয়ে থাকতে পারে মারসেলোর উপরে উঠার প্রবণতা। সেক্ষেত্রে বল হারালে বিপজ্জনক প্রতিআক্রমণে ডিফেন্স গুড়িয়ে দেওয়ার ক্ষমতা রাখা সিটিকে সামলাতে বেশ বেগ পেতে হবে রামোস এবং পেপেকে। সিটি কোচ পেলেগ্রিনি অবশ্যই চাইবেন রিয়ালের এই দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে তাদেরকে ঘায়েল করতে। আর রিয়ালের আক্রমণত্রয়ীর ক্ষমতা নিয়ে নতুন করে বলার কিছুই নেই। সর্বদা প্রস্তুত থাকতে হবে কোম্পানিদের, যেকোনো ভুল শেষ করে দিতে পারে স্বপ্ন। তবে দুইদলের কোচই আজ তার ডিফেন্স নিয়ে চিন্তায় থাকবে নিজেদের সাম্প্রতিক বাজে ডিফেন্সিভ পারফরমেন্সের জন্য।

রিয়াল অধিনায়কের বড় ম্যাচে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়ার যে ক্ষমতাটা রয়েছে তা আজ মাঠে প্রত্যেক রিয়াল সমর্থকই দেখতে চাইবেন। সেই বায়ার্নকে ৪-০ তে হারানো কিংবা বুরুসিয়ার কাছে ৪-১ তে হেরেও ২য় লেগের চেষ্টাটা অথবা এই মৌসুমের শেষ এল ক্লাসিকো বা ঘরের মাঠে উলফসবারগের বিরুদ্ধে দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন- সব সময়ই সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন ক্যাপ্টেন। আজকের ম্যাচে তাই রামোসের পারফর্মেন্স অনেকটাই ম্যাচের গতিপ্রকৃতি নির্ধারক হতে পারে।

অভিজ্ঞতার দিক থেকে যোজন যোজন এগিয়ে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের এই দলেই রয়েছে একাধিক ইউসিএলজয়ী খেলোয়াড় যেখানে আজকেই প্রথমবারের মত সেমিফাইনাল খেলতে মাঠে নামছে সিটি। কাগজে কলমে শক্তিশালী রিয়াল মাদ্রিদ নিজেদের সেরাটা দিলে তাদেরকে আটকে রাখাটা কঠিনই হবে সিটিজেনদের জন্য। বিশেষ করে জিদান তার প্রত্যাবর্তনের পর থেকে নতুন করে ভাবতে শিখিয়েছে মাদ্রিদ প্লেয়ার ও ফ্যানদেরকে। তবুও টানা ৬বারের মত সেমিতে খেলা রিয়াল কিন্তু প্রথমবার প্রতিপক্ষের মাঠে খেলে আসলে ফাইনালের দর্শন পায়নায় সাম্প্রতিক সময়ে। সব মিলিয়ে ফুটবলপ্রেমিদের জন্য হয়তবা আজ একটি গোলময় চ্যাম্পিয়ন্স লীগ রজনীই অপেক্ষা করছে।