• হকি

এশিয়ান চ্যাম্পিয়নস ট্রফি হকি ২০২১ স্থগিত

পোস্টটি ৪২১ বার পঠিত হয়েছে
'আউটফিল্ড’ একটি কমিউনিটি ব্লগ। এখানে প্রকাশিত সব লেখা-মন্তব্য-ছবি-ভিডিও প্যাভিলিয়ন পাঠকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিজ উদ্যোগে করে থাকেন; তাই এসবের সম্পূর্ণ স্বত্ব এবং দায়দায়িত্ব লেখক ও মন্তব্য প্রকাশকারীর নিজের। কোনো ব্যবহারকারীর মতামত বা ছবি-ভিডিওর কপিরাইট লঙ্ঘনের জন্য প্যাভিলিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গ হলেই কেবল সেই অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।

টানা তৃতীয়বারের মত পেছালো এশিয়ান চ্যাম্পিয়নস ট্রফি হকি। অংশগ্রহণকারী দলগুলোর সাথে আলোচনা করে এশিয়ান চ্যাম্পিয়নস ট্রফি হকি ২০২১ স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এশিয়ান হকি ফেডারেশন। সেই সাথে স্থগিত হচ্ছে কোরিয়ায় নারীদের আসরও। 

মার্চের ১১ থেকে ১৯ তারিখে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা এশিয়ান চ্যাম্পিয়নস ট্রফি হকি। কিন্তু করোনা ও সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় তা পেছানো হয়েছে অক্টোবর মাসে।

দেশের থেমে যাওয়া হকিকে চাঙ্গা করতে সবাই তাকিয়ে ছিল এই আসরের দিকে। ধারণা করা হচ্ছিল এশিয়ান চ্যাম্পিয়নস ট্রফি হকি ও জুনিয়র এশিয়া কাপের মাধ্যমে আবার জেগে উঠবে দেশের হকি। কিন্তু সেই আশায় গুড়ে বালি। করোনা মহামারির ছোবলে আবারও পেছালো এশিয়ান চ্যাম্পিয়নস ট্রফি হকি। 

বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সহ-সভাপতি রশিদ শিকদার বলেন, 'এশিয়ান চ্যাম্পিয়নস ট্রফি হকি পেছালেও নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ীই হবে জুনিয়র এশিয়া কাপ হকি।'

জুনিয়র এশিয়া কাপ হকি একই সাথে জুনিয়র ওয়ার্ল্ড কাপ কোয়ালিফায়িইং রাউন্ড হিসেবেও বিবেচিত হবে। এখন পর্যন্ত জুনের ৪ তারিখ থেকে ঢাকায় জুনিয়র এশিয়া কাপ হকি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। তাই দেশের হকি নিয়ে কিঞ্চিৎ আশার আলো এখনো উজ্জ্বল। 

জাতীয় দলের চলমান প্রস্তুতি ক্যাম্প বন্ধ হবার ঘোষণা এখনো আসেনি ফেডারেশন থেকে। কিন্তু জাতীয় দলের কোচ মাহবুব হারুন মনে করছেন, 'বাংলাদেশের হকি অঙ্গনে খেলোয়াড়দের জন্য এটি একটি ধাক্কার ব্যাপার। এই বিরতিতে যদি লীগ শুরু করা যায় তাহলে খেলোয়াড়রা খেলার মধ্যে থাকবে।'

চলমান করোনা পরিস্থিতির কারণে এশিয়ান হকি ফেডারেশন এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয় বলে এক বিবৃতিতে জানানো হয়। আগামী অক্টোবরে এই আসর অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাব্য তারিখ হিসেবে জানানো হয়েছে। 

এশিয়ান হকি ফেডারেশনের সভাপতি দাতো ফুমিও ওগুরা বলেছেন,

"এশিয়ান চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আসর স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া কঠিন ছিল। কিন্তু অংশগ্রহণকারী দলগুলো, স্বাগতিক দেশ, ও এফআইএইচ এর সাথে আলোচনা করে আমাদের এই কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে। খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা, সুস্বাস্থ্য, ও কল্যাণের প্রশ্ন আমাদের কাছে সবার আগে। সেই সাথে আমরা সবার জন্য সমান সুযোগ নিশ্চিত করতে চাই। সদস্য দেশগুলোর সার্বিক পরিস্থিতি এবং অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর উপর প্রতিকূল পরিস্থিতির প্রভাব এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলেছে। আমরা চলমান করোনা পরিস্থিতিতে সবার সুস্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা কামনা করছি এবং মাঠে হকি ফেরাতে সর্বাত্মক চেষ্টা করছি।"

এশিয়ান চ্যাম্পিয়নস ট্রফি হকি ২০২১ এ স্বাগতিক বাংলাদেশের সাথে অংশ নেওয়ার কথা ছিল ভারত, পাকিস্তান, কোরিয়া, মালেয়শিয়া, ও জাপান এর।

Image credit: Asian Hockey Federation.