• ক্রিকেট

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ধন্যবাদ...

পোস্টটি ৬৬৪ বার পঠিত হয়েছে
'আউটফিল্ড’ একটি কমিউনিটি ব্লগ। এখানে প্রকাশিত সব লেখা-মন্তব্য-ছবি-ভিডিও প্যাভিলিয়ন পাঠকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিজ উদ্যোগে করে থাকেন; তাই এসবের সম্পূর্ণ স্বত্ব এবং দায়দায়িত্ব লেখক ও মন্তব্য প্রকাশকারীর নিজের। কোনো ব্যবহারকারীর মতামত বা ছবি-ভিডিওর কপিরাইট লঙ্ঘনের জন্য প্যাভিলিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গ হলেই কেবল সেই অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।

ধন্যবাদ, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ আমাদের জিততে দেয়নি, এর ফলস্বরুপ তাদের গালমন্দের বদলে ধন্যবাদ দেয়ার কারণে আপনি আমার দেশপ্রেম নিয়ে প্রশ্ন তুলতেই পারেন। আবার হয়তো নাও। ওয়েস্ট ইন্ডিজ যে ক্রিকেট খেলেছে তাতে একটা ধন্যবাদ তাদের প্রাপ্যই। আসলে সেটা প্রাপ্য মুল ক্রিকেটারদের ছাড়া এই খর্বশক্তির দলেরই। ধন্যবাদ তাঁরা আরও বিভিন্ন কারণেই পেতে পারেন। তাঁরা চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিল টেস্টে আমরা কতটা দুর্বল! আর এ দুর্বলতার পেছনে অনেক কিছুর উপরেই দায় বর্তানো হতে পারে।

এ বাংলায় ফেসবুক আন্দোলন ছাড়া বেশিরভাগ জিনিষই সম্পন্ন হয় না। ক্রিকেটও এর বাইরে নয়। তবে একটা বিষয় ফেসবুকে আসলেও ঠিক তা নিয়ে তেমন আলোচনাও হচ্ছে না, কাজও হচ্ছে না। যদিও এমন অনেক বিষয়েই ফেসবুক আন্দোলন সত্ত্বেও তা চুড়ান্তরুপে কাজ সম্পন্ন হয় না। বাংলাদেশ হারায় আজ আবার ফেসবুকে বাংলাদেশের ক্রিকেটের মান নিয়ে উঠবে নানান প্রশ্ন। তাই ধন্যবাদ ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আলোচনায় বেশিরভাগ অংশ জুড়েই থাকবে ফার্স্ট ক্লাস ক্রিকেট। ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে আজকের টেস্টের মতো ঘরোয়া ক্রিকেটে এমন টেস্ট বোধহয় খুব কমই খেলেছেন আমাদের ক্রিকেটাররা। ফার্স্ট ক্লাস ক্রিকেট নিয়ে তুচ্ছ জ্ঞানের জন্যে বলা গেল না ‘খেলেনইনি’!

বাংলাদেশ ক্রিকেটের উন্নতির আলোচনায় সবসময়ই একটা কথা উঠে আসে। সেটি হচ্ছে ফার্স্ট ক্লাসে প্রতিদ্বন্দ্বিতা বাড়ানো। সেটা কখন হবে? যখন ফার্স্ট ক্লাসের দলে জায়গা পাওয়ার জন্যও যথেষ্ট লড়াই করতে হবে। বাইরের ক্রিকেটারদের জন্যে দলে থাকা ক্রিকেটাররাও যখন জায়গা হারানোর ভয়ে থাকবেন। ফার্স্ট ক্লাসের দলে আসেন কিভাবে একজন ক্রিকেটার? মুলত জেলা দ্বিতীয় বিভাগ, প্রথম বিভাগ লীগ খেলে এরপর জেলা দল হয়ে বিভাগীয় দল। এখন একজন ক্রিকেটার শুধুই কি একাডেমিতে প্র্যাকটিস করতে থাকবে, এরপর বিভাগীয় দলের নির্বাচকেরা তাকে একাডেমি থেকেই খুজে বের করে সরাসরি নামিয়ে দেবেন ঘরোয়া ক্রিকেটে। না, তার জন্য তো তাকে প্রমাণ করতে হবে। সেটা নিশ্চয়ই প্রথম বিভাগ লীগে। প্রথম বিভাগই যখন অনিয়মিত সেখানে দ্বিতীয় বিভাগের কথা নাহয় বাদই দিলাম। নোয়াখালীতে তো গেল দশক ধরে প্রথম বিভাগ লীগই হচ্ছে না, ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আক্ষেপের এমন কথাই শুনিয়েছেন এক ক্রিকেটার।

ফেসবুক লাইভে এসে জাতীয় পর্যায়ের আরেক ক্রিকেটার অনুরোধ জানান লীগ আয়োজনের জন্যে। সিলেটের ক্রিকেটাররা বারবার অনুরোধ জানায় সিলেট প্রথম বিভাগ লীগ আয়োজনের জন্য। তারা কথা শুনে, কথা দেয়, কথা রাখে না! করোনার কারণে স্থগিত হওয়া লীগ বারবার পুনঃআয়োজনের জন্য তারিখ নির্ধারণ করে তারা আবার আয়োজন করে না। যে করোনার দোহাই দিয়ে তারা লীগ আয়োজন করেন না, সে করোনার তোয়াক্কা না করেই তারা আবার খোলামেলা ঘুরে বেড়ান। সব দোষ করোনার!

এই করোনাতেই আবার বিভিন্ন জেলায় কোয়াবের ব্যবস্থাপনায় লীগ আয়োজন করেছেন স্থানীয় ক্রিকেটাররা মিলে। আশার আলো হিসেবে সিলেটেও শুরু হতে যাচ্ছে এরকম একটা লীগ। করার কথা জেলা ক্রীড়া সংস্থার, করছে ক্রিকেটার্স এসোসিয়েশন। সিলেট বিভাগের আরেক জেলার ক্রিকেটার নিজ জেলার ক্রিকেটের অবস্থা দেখে আক্ষেপে পুড়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন।

ধন্যবাদ ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। এমন হারে আবার বাংলাদেশের ক্রিকেটের উন্নতির জায়গা নিয়ে হবে আলোচনা। আলোচনায় যদি কাজ হয় তবেই ভালো!

সবশেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলকে ধন্যবাদ বাংলার মাটিতে টেস্ট ক্রিকেটের সৌন্দর্য ফুটিয়ে তোলার জন্য। চার টেস্টের পর পঞ্চম দিনে বাংলাদেশের টেস্টকে নিয়ে যাওয়ার জন্য। আমরা আফসোস করি তাদের এ দল নিয়ে। আমাদের মতে খর্বশক্তির এ দলই আমাদের মুল দলকে দেখিয়ে দেয় টেস্ট ক্রিকেট কিভাবে খেলতে হয়। চারদিন শেষে সবাই যখন তাদের হার দেখতে উতলা, তখন তাঁরা দেখায় এত সহজে হারার পাত্র তাঁরা নয়। এটাই কি টেস্ট ক্রিকেটের মুলমন্ত্র না! তাঁরা হার মানে না, আকড়ে ধরে, তাই তাঁরা জিতে মাঠ ছাড়ে।

কাইল মেয়ার্সকে বিশেষ করে ধন্যবাদ। এত সুন্দর এক ইনিংসের স্বাক্ষী বানানোর জন্য। স্বীকৃত ক্রিকেটে এর আগে দ্বিশতকের দেখা না পাওয়া মেয়ার্স আজ গড়লেন ইতিহাস। এশিয়াতে সবচে বেশি রান তাড়ায় করলেন চতুর্থ ইনিংসে এশিয়াতে সবচে বেশি রানের রেকর্ড। ধুড়ুম-ধাড়াক্কা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের প্রতীক ওয়েস্ট ইন্ডিজের এক এলাকায় জন্ম নিয়েও টেস্ট ক্রিকেটের প্রতি মেয়ার্সের ভালোবাসার খাতিরে তাকে ধন্যবাদ জানাতেই হয়।

কেন জানি আজ ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বারবার ধন্যবাদ দিতে ইচ্ছে করছে!