• ফুটবল

Benjamin Sesko - The New Haaland in European Football

পোস্টটি ৩২১ বার পঠিত হয়েছে
'আউটফিল্ড’ একটি কমিউনিটি ব্লগ। এখানে প্রকাশিত সব লেখা-মন্তব্য-ছবি-ভিডিও প্যাভিলিয়ন পাঠকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিজ উদ্যোগে করে থাকেন; তাই এসবের সম্পূর্ণ স্বত্ব এবং দায়দায়িত্ব লেখক ও মন্তব্য প্রকাশকারীর নিজের। কোনো ব্যবহারকারীর মতামত বা ছবি-ভিডিওর কপিরাইট লঙ্ঘনের জন্য প্যাভিলিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গ হলেই কেবল সেই অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।

রেডবুল প্রজেক্ট সম্প্রতি বেশ কিছু ভালো মানের প্লেয়ার প্রডিউস করেছে। তাদের এই প্রজেক্টের প্রথম এবং সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন ছিলো আর্লিং হাল্যান্ড। ২০১৯-২০ মৌসুমে মূলত চ্যাম্পিয়নস লিগে দুর্দান্ত পারফর্ম করে সবার নজরে আসে হাল্যান্ড। এরপর থেকে একে একে সেখান থেকে বেশকিছু হেভি পোটেনশিয়াল প্লেয়ার বের হয়েছে যাদের মধ্যে - Karim Adameyi, Patson Daka, Rasmus Kristensen, Minamino প্রমুখ অন্যতম। এখনো তাদের দলে বেশ কিছু ভালো ইয়াং প্লেয়ার আছে যাদের টপ টায়ার ফুটবলে ভালো করার অনেক সম্ভাবনা রয়েছে। এদের মধ্য থেকে আজকে কথা বলবো এমন একজনকে নিয়ে যাকে 'মিনি হাল্যান্ড' / "হাল্যান্ড ২.০" এমনকি তার সতীর্থরা তাকে হাল্যান্ড এর চেয়ে ভালো বলে আখ্যায়িত করেছে!! তার নাম বেঞ্জামিন শেশকো (Banjamin Sesko)

 

কে এই বেঞ্জামিন শেশকো? কেনোই বা তাকে মিনি হাল্যান্ড কিংবা তার চেয়ে ভালো বলা হয়েছে? আজকে আমরা সেটাই জানার চেষ্টা করবো।01eeab75704796668a3cbe7eadece3be978b7aba

 

বেঞ্জামিন শেশকোর জন্ম স্লোভেনিয়াতে, ২০০৩ সালের মে মাসে ( এই হিসেবে তার বর্তমান বয়স ১৯ বছর)। তার ফুটবলের হাতেখড়ি হয়েছে স্লোভেনিয়ার লোকাল ক্লাব Radece এ, মাত্র ১০ বছর বয়সে। শুরু থেকেই খেলতেন ফরওয়ার্ড পজিশনে। সেখান থেকে তিনি যোগ দেন কয়েকটি লোকাল ক্লাবের ইয়ুথ একাডেমীতে যাদের নাম যথাক্রমে Rudar Trbovje, Krsko এবং Domzale।

 

শেশকো প্রথম সবার নজরে আসেন ২০১৭/১৮ মৌসুমে, যখন তিনি Krsko অনূর্ধ্ব ১৫ এর হয়ে খেলেন। সেই মৌসুমে তিনি ২৩ ম্যাচে রেকর্ড ৫৯ গোল স্কোর করেন। সেবার অধিকাংশ ম্যাচে ৩/৪/৫ গোল করেন এমনকি Rudar Velenje নামে একটি ক্লাবের বিপক্ষে ৭ গোল পর্যন্ত করেন। সেই ম্যাচে তার দল জিতেছিল ১০-১ গোলের মার্জিনে! 

Krsko বয়সভিত্তিক দলে এক সিজন খেলবার পর তিনি যোগ দেন আরেক ক্লাব Bomzale তে। সেখানেও ইয়ুথ লেভেলে তার ধারাবাহিকতা বজায়। সেই মৌসুমে সেস্কো ২৩ ম্যাচে ২১ গোল করেন।

 

রেডবুল স্কাউটিং নেটওয়ার্কের প্রথম নজরে আসা: 

 

বয়সভিত্তিক দলে ধারাবাহিকভাবে গোল করার বদৌলতে জায়গা পেয়ে যান নিজ দেশ স্লোভেনিয়ার বয়সভিত্তিক দলে। সেখানে অনূর্ধ্ব ১৫,১৬ এবং ১৭ তে খেলেন এবং সেই ধারাবাহিকতা বজায় রাখেন। তখন থেকেই এই হিডেন জেমের প্রতি নজর পড়ে রেডবুল প্রজেক্টের বিখ্যাত স্কাউটিং নেটওয়ার্কিং এর। তাদের চোখ যে খাঁটি জহুরিদের মতো সেটা আরো একবার প্রমাণ করে শেশকো কে স্কাউট করে দলে ভেড়ানোর মাধ্যমে। ২০১৯ সালে আর্লিং হাল্যান্ডের পাশাপাশি ২.২ মিলিয়ন ইউরোতে বেঞ্জামিন সেস্কোকেও দলে ভেড়ায় রেডবুল সালজবার্গ। 

Jesse Marsch এর সেই সালজবার্গ দলে ফ্রন্ট লাইনে ছিলেন হাল্যান্ড, প্যাটসন ডাকা, মিনামিনোরা যারা শেশকো থেকে সিনিয়র এবং বেশি ম্যাচিওর। স্বাভাবিক ভাবে থাকে গেম টাইম দিয়ে ইমপ্রুভ করবার জন্যে পাঠানো হয় রেডবুল গ্রুপের ফিডার ক্লাব / সিস্টার ক্লাব FC Leifering এ। যারা অস্ট্রিয়ান লীগের সেকেন্ড ডিভিশনে খেলে। benjamin-sesko-fbl-eur-c1-bayern-munich-salzburg-min

 

*একটি ইন্টারেস্টিং ফ্যাক্ট হচ্ছে, এই FC Leifering এ রেডবুল প্রজেক্টের সিংহভাগ তরুণ প্লেয়াররা খেলেছে। ফিডার ক্লাবের অর্থই হচ্ছে একটি টপটায়ারের ক্লাবের সাথে চুক্তি করে তাদের ইয়াং প্লেয়ারদের সেই মূল দলে খেলার সুযোগ করে দিয়ে গেম টাইম নিশ্চিত করা। যাতে প্লেয়াররা দ্রুত উন্নতি করে এবং টপ টায়ার ফুটবলের জন্যে উঠতি বয়সেই প্রস্তুত হয়ে যায়। এই ফিডিং ক্লাবের সবচেয়ে বড় ফয়দা তুলেছে রেডবুল ফুটবল প্রজেক্ট। যার মাধ্যমে তারা একসাথে অনেকগুলো ইয়াং পোটেনশিয়াল প্লেয়ার পেতে সক্ষম হয়েছে। 

 

এই FC Leifering এই প্রথম কোনো মূল দলে খেলার সুযোগ পান তিনি। ওই লোন স্পেলে তার সাথে ছিলো Karim Adameyi - যাকে সেইম প্রসেসের মাধ্যেমে এখানে ফার্স্ট টিম ফুটবলের গেমটাইমের জন্যে পাঠানো হয়। শেশকোর লোন স্পেলের প্রথম মৌসুম ছিলো খুবই ভয়াবহ - যা তার আগের ধারাবাহিকতার একদম বিপরীত। অভিষেক ম্যাচেই সিরিয়াস ফাউল করে দেখেন লাল কার্ড। সাসপেনশন থেকে ফিরে গোল করে রাজকীয় প্রত্যাবর্তনের আভাস দিলেও সেটা আর হয়ে উঠেনি। গোটা মৌসুমে ১৫ ম্যাচ খেলে সেই এক গোল করতে সক্ষম হোন তিনি - যা তার নাচ্যারাল ক্যালিভারের একদম বিপরীত দৃশ্য।

images (2)

তবে লোন স্পেলের পরের মৌসুমে আর কাউকে হতাশ করেননি তিনি। সেবার ২৯ ম্যাচে ২১ গোল করে খারাপ সময় থেকে কামব্যাক করেন। একটি অসাধারণ মৌসুম/ লোন স্পেল শেষে গত মৌসুমে ফিরে আসেন রেডবুল সালজবার্গে। অস্ট্রিয়ান টপ টায়ার ফুটবলে মূল দলে অভিষেক হয় গত মৌসুমেই। Karim Adameyi এর সাথে জুটি বেঁধে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে গোল করেছেন ১১টি, এসিস্ট করেছেন ৭টি। অভিষেক হয়েছে চ্যাম্পিয়নস লিগেও। সেস্কোর পোটেনশিয়াল, অ্যাবিলিটি সবকিছু ঢেকে যায় Adameyi এর দুর্দান্ত মৌসুমের জন্যে। ২৩ গোল করে এই জার্মান সুপাস্টার হয়েছেন সালজবার্গের টপ স্কোরার। নতুন মৌসুমে যোগ দিয়েছেন জার্মান ক্লাব বরুশিয়া ডর্টমুন্ডে। সম্প্রতি নতুন মৌসুমের প্রথম ম্যাচে গোল দিয়ে একটি দারুণ মৌসুমের পূর্বাভাস দিচ্ছেন এই স্লোবেনিয়ান।

 

প্লেয়িং স্টাইল ( যে কারণে তাকে নেক্সট হাল্যান্ড ভাবা হয়):

 

বেঞ্জামিন শেশকো তার ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই ফরওয়ার্ড পজিশনে খেলে আসছেন। সেস্কোর একটি বড় অ্যাডভান্টেজ হচ্ছে তার হাইট। ৬ ফুট ৪ ইঞ্চি লম্বা এই স্লোভেনিয়ান বক্সে টার্গেট ম্যান হিসেবে দারুন কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে।রাইট ফুটেড প্লেয়ার হলেও বক্সে দুই পায়ে সমানতালে স্কোর করতে সক্ষম। তবে তিনি ট্র্যাডিশনাল টার্গেট ম্যানদের মতো নন! বরং তার চেয়ে বেশি কিছু। হাইট বেশি হওয়া সত্ত্বেও পায়ে দারুন গতি রয়েছে তার।

শেশকোর অন্যতম বড় গুণ হলো - নিজের স্পিড কে কাজে লাগিয়ে প্রতিপক্ষের ডিফেন্স লাইনে নিজের বিচরণ আরো প্রসারিত করতে পারেন অর্থাৎ ডিফেন্স লাইনের যেকোনো স্পেস কাভার করে বল নিয়ে মুভ করতে পারেন। যার কারণে সালজবার্গের ৪-২-২-২ ফর্মেশনে অনেক সময় উইংয়ের দিকেও দেখা যায় তাকে।Sesko-wide

এখন পর্যন্ত তার সর্বোচ্চ স্পিড ৩৬.১ কি. মি/ প্রতি ঘন্টা, FC Leifering এ খেলার সময় একটি ম্যাচে।

 

অ্যাজিলিটি ও অ্যাক্সিলারেশন ভালো হবার পাশাপাশি ফিজিক্যাল স্ট্রেন্থ, স্ট্যামিনা, বডি ফিটনেস সবকিছু ডিসেন্ট লেভেলের। যদি কোনো প্রতিপক্ষ হাই লাইন ডিফেন্স নিয়ে খেলে তাহলে কাউন্টার অ্যাটাকে শেশকোর স্পিড এবং ফিজিক্যাল স্ট্রেন্থ বেশ ভালোভাবেই ভোগাবে তাদের।Sesko-running-behind 

যেহেতু সালজবার্গের প্লেয়িং স্টাইলে প্রেসিং একটি অর্থবহ ভূমিকা পালন করে তাই অফ দ্যা বল সেস্কোর মুভমেন্ট খুবই চতুর প্রকৃতির। প্রতিপক্ষের ডিফেন্স লাইনকে প্রেশার দেওয়া কিংবা তাদের পাসিং লেন কাট করে বল নিজের পজেশনে নেওয়া - সব কিছুর সমন্বয়ে যেনো একজন কমপ্লিট ফরোয়ার্ড প্যাকেজ এই স্লোভেনিয়ান। 

 

তাহলে এইসব কিছু এক করে তার স্ট্রেন্থ সম্পর্কে একটি স্বচ্ছ ধারণা পাওয়া যায়। সেগুলো হচ্ছে-

১. শেস্কোর ডিসেন্ট লেভেলের স্পিড।

২. অফ এন্ড অন দ্যা বলের মুভমেন্ট

৩. ফাইনাল থার্ডে পজিশনিং সেন্স এবং,

৪. এরিয়েল থ্রেট।

red-bull-salzburg-benjamin-sesko-champions-league-1024x685.jpg

প্রতিটি প্লেয়ারের যেমন কিছু ভালো গুন বা স্ট্রেন্থ থাকে একই ভাবে কিছু দূর্বলতা থাকে - এটা চিরন্তন সত্য। শেস্কো যেহেতু উঠতি বয়সী একজন ফুটবলার এবং তার সামনে একটি উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করছে তাতে কোনো সন্দেহ নাই। তবে তার কিছু দূর্বলতাও রয়েছে। তাদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে - অনেক সময় তার শট অন টার্গেট অ্যাকুরেসি বিলো এভারেজ থাকে ( তবে এটাও সত্য,বক্সের ভেতর সে দুই পায়ে গোল করতে সক্ষম)। 

আরেকটি ড্রব্যাক হচ্ছে - বল ক্যারি করার সময় যে স্পিড প্রডিউস করে রান নিয়ে থাকে, অনেক সময় ফাইনাল থার্ড এরিয়ার এসে পজিশন লুজ করে ফেলেন এবং হোল্ড আপ প্লেয়িং এর টাইমে হার্ড ট্যাকেলে বল হারিয়ে ফেলেন। এই দুইটি লক্ষণীয় দূর্বলতা বাদে একজন কমপ্লিট মডার্ন ফরওয়ার্ড হবার জন্যে যা যা দরকার শুনই রয়েছে তার মধ্যে।

 

প্লেয়িং পজিশন, দৈহিক গঠন ( বিশেষ করে হাইট), অ্যাক্সিলারেশন এবং বক্সে ক্লিনিকাল ফিনিশারের রোল প্লে করা - এই সকল দিকগুলো ল্যান্ডের সাথে মিল থাকায় শেশকোকে 'মিনি হাল্যান্ড' বা 'হাল্যান্ড ২.০' হিসেবে বিবেচনা করা হয়।1235345623-850x560

 

যে গুণটির কারণে তাকে হাল্যান্ডের চেয়ে বেটার বলে আখ্যায়িত করা হয় সেটি হচ্ছে - শেশকো একজন "মাল্টি ফাংশনাল ফিনিশার"। যিনি একজন টার্গেটম্যান ফরোয়ার্ডের রোল প্লে করার পাশাপাশি এক্সট্রা ওয়ার্ক রেট প্রদান করতে সক্ষম।দলের প্রয়োজনে পজিশনিং প্রেস বা বিল্ড আপ করার সময় ডিপ লাইনে নেমে আসেন। এর মাধ্যমে যেমন নিজের স্পিডকে কাজে লাগিয়ে বল প্রগ্রেস করতে পারেন, একইভাবে সতীর্থদের জন্যে স্পেস ক্রিয়েট করে প্লে মেকিংয়ের রোল পালন করতে পারেন। অন্যদিকে হাল্যান্ড অধিকাংশ সময় ফাইনাল থার্ডের আশেপাশে থাকে এবং সুযোগ পেলে প্রেস করে বল রিকোভার করে এবং গোলের জন্যে শট চালানোর চেষ্টা করে।

Sesko-receives 

এই জন্যে তার জাতীয় দলের সতীর্থ ব্যাসানোভিচ তাকে আদর্শ টিম প্লেয়ার হিসেবে আখ্যায়িত করে হাল্যান্ডের থেকে আলাদা ধরনের প্লেয়ার বলেছেন।

 

বায়ার্ন মিউনিখ, লিভারপুল সহ বেশ কয়েকটি ক্লাব তাকে দলে ভেড়ানোর জন্যে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। কিছুদিন আগে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড নিয়ে রিউমার বেশ ভালোভাবেই শুনা যাচ্ছে। এমনকি ইউনাইটেডের প্রতিনিধিরা সেস্কোর এজেন্টের সাথে যোগাযোগ শুরু করেছে। তবে সর্বশেষ আপডেট অনুযায়ী রেডবুল মালিকানার জার্মান ক্লাব রেডবুল লাইপজিগ এর সাথে চুক্তি সইয়ের দ্বারপ্রান্তে তিনি, ট্রান্সফার ফি প্রায় ২৪ মিলিয়ন ইউরো।20220809_164615

চুক্তি অনুযায়ী এই সিজন সালজবার্গেই থাকবেন শেস্কো, লাইপজিগে যোগ দিবেন সামনের মৌসুমের শুরুতে।