• শ্রীলংকার পাকিস্তান সফর
  • " />

     

    পাকিস্তানে টেস্ট খেলা নিয়ে এখনো সংশয়ে শ্রীলংকা

    অনেক সংশয় থাকলেও শেষ পর্যন্ত পাকিস্তান সফরে এসেছিল শ্রীলংকা। ওয়ানডে-টি-টোয়েন্টি সিরিজের ম্যাচগুলো নির্বিঘ্নেই আয়োজন করেছে পাকিস্তান। এমন সফরের পরেও অবশ্য ডিসেম্বরে টেস্ট সিরিজ খেলতে যাওয়া নিয়ে ভরসা পাচ্ছে না শ্রীলংকা। দলের ম্যানেজার অশন্তা ডি মেল বলছেন, টেস্ট সিরিজ খেলতে লম্বা সময়ের জন্য পাকিস্তানে অবস্থান করা নিয়ে এখনো ভাবছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড। 

    পাকিস্তানের সিরিজ শেষে লংকান কোচ রুমেশ রত্নায়েকে ও ওপেনিং ব্যাটসম্যান গুনাথিলাকা জানিয়েছিলেন, পাকিস্তান এখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য পুরোপুরি নিরাপদ। রত্নায়েকে আশা করছেন, আগামী সিরিজে দলের সিনিয়র ক্রিকেটাররাও আসবেন পাকিস্তানে। 

    ডি মেল অবশ্য দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে যাওয়া নিয়ে এখনো শতভাগ নিশ্চিত নয়, ‘টেস্টে সিরিজের ক্ষেত্রে আপনাকে ১৫ দিনের বেশি সময় ধরে সেখানে থাকতে হবে। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে এটা ছয়-সাত দিনের ব্যাপার হয়। তাছাড়া আমরা প্রস্তুতি ম্যাচ ছাড়া টেস্ট সিরিজ খেলতে যেতে পারব না। এই সিরিজে তো আমরা প্রস্তুতি ম্যাচ খেলিনি, সরাসরি সিরিজ খেলতে নেমে পড়েছিলাম।’ 

    বিমানবন্দরে নামার পর থেকেই কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনী ঘিরে রেখেছিল শ্রীলংকা দলকে। অতিরিক্ত নিরাপত্তা দলের মনোযোগ নষ্ট করে বলেই মানছেন ডি মেল, ‘রাস্তা বন্ধ করতেই প্রায় আধ ঘণ্টা লাগে, এরপর আমরা স্টেডিয়ামে যেতে পারি, হোটেলে ফিরতে পারি। এটা সহ্য করা সহজ ব্যাপার না। পাকিস্তান আমাদের সাহায্য করে বলে আমরা তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা দেখিয়ে খেলতে এসেছিলাম। কিছুটা সহ্য করা যায়, কিন্তু কতক্ষণ সহ্য করতে পারবেন আপনি?’ 

    শ্রীলংকার এই পাকিস্তান সফর অন্য দেশগুলোকে পাকিস্তানে খেলতে যাওয়ার ব্যাপারে আগ্রহী করবে, বিশ্বাস ডি মেলের, ‘পাকিস্তান চাইছে অন্য দেশও তাদের এখানে খেলতে আসুক। আমরা এটা সম্ভব করার জন্য সামান্য চেষ্টা করেছি মাত্র। আইসিসির কর্মকর্তারাও খেলা দেখেছেন মাঠে বসে। ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া হয়তো আমাদের মতো ওয়ানডে-টি-টোয়েন্টি খেলতে আসবে। তবে আর্থিক ব্যাপারটা পিসিবিকে খুব বেশি ভোগাচ্ছে।’ 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন