• হকি

হকি ওয়ার্ল্ড লীগ ও বিশ্বকাপ বাছাই প্রক্রিয়া

পোস্টটি ৩৬০৫ বার পঠিত হয়েছে
'আউটফিল্ড’ একটি কমিউনিটি ব্লগ। এখানে প্রকাশিত সব লেখা-মন্তব্য-ছবি-ভিডিও প্যাভিলিয়ন পাঠকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিজ উদ্যোগে করে থাকেন; তাই এসবের সম্পূর্ণ স্বত্ব এবং দায়দায়িত্ব লেখক ও মন্তব্য প্রকাশকারীর নিজের। কোনো ব্যবহারকারীর মতামত বা ছবি-ভিডিওর কপিরাইট লঙ্ঘনের জন্য প্যাভিলিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গ হলেই কেবল সেই অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।

হকি খেলা সম্পর্কে যারা পরিচিত নন তারা হয়তো ভাববেন, হকি ওয়ার্ল্ড লীগই কি হকি বিশ্বকাপ?

আসলে তেমনটা না।

হকি ওয়ার্ল্ড লীগ হল হকি বিশ্বকাপ এর বাছাই টুর্নামেন্ট।

বিশ্বকাপ হকির জন্য বাছাই প্রক্রিয়া আরও উন্নত, বিশ্বে হকির আরও প্রসার এবং হকি খেলুড়ে দেশগুলোর মধ্যে আরও প্রতিযোগিতা সৃষ্টির জন্যে আন্তর্জাতিক হকি ফেডারেশন ২০১২ সালে ওয়ার্ল্ড হকি লীগ প্রবর্তন করে।

হকি ওয়ার্ল্ড লীগ ৪ ধাপে অনুষ্ঠিত হয় –

ধাপ ১: রাউন্ড ১

ধাপ ২: রাউন্ড ২

ধাপ ৩: সেমি ফাইনালস্‌

ধাপ ৪: ফাইনাল

বিশ্বকাপ হকিতে ১৬ প্রতিযোগী বাছাইয়ের জন্য বিশ্বজুড়ে নানান জায়গায় হকি ওয়ার্ল্ড লীগ অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে।

হকি ওয়ার্ল্ড লীগে ফেডারেশনগুলোর অন্তর্ভুক্তি

সর্বপ্রথম আন্তর্জাতিক হকি ফেডারেশন কর্তৃক জাতীয় হকি ফেডারেশনগুলো থেকে হকি ওয়ার্ল্ড লীগে অংশগ্রহণের জন্য আবেদন চাওয়া হয়। উচ্চতর র‍্যাঙ্কিং এর কারনে ১-১১ র‍্যাঙ্কিং-এ  থাকা দলগুলো সরাসরি ধাপ ৩ অর্থাৎ হকি ওয়ার্ল্ড লীগের সেমি ফাইনালে খেলার সুযোগ পায়। অন্যদিকে ১২-২০ র‍্যাঙ্কিং-এ থাকা দলগুলো সরাসরি রাউন্ড-২ খেলার সুযোগ পায়। অন্য দলগুলোকে যথারীতি রাউন্ড-১ খেলে পরের ধাপগুলোতে যেতে হয়।

গৃহীত আবেদনের প্রেক্ষিতে আন্তর্জাতিক হকি ফেডারেশন স্বাগতিক দেশ এবং অন্যান্য প্রতিযোগী নির্ধারণের মাধ্যমে বিভিন্ন দেশে হকি ওয়ার্ল্ড লীগ রাউন্ড-১ ইভেন্ট আয়োজন করে।

হকি ওয়ার্ল্ড লীগ রাউন্ড-১ সাধারণত ৩ থেকে ৮ দল নিয়ে একটি ইভেন্ট হয়ে থাকে। এরকম ইভেন্ট পৃথিবীর নানান দেশে আয়োজিত হয়। অংশগ্রহণকারী দেশের সংখ্যার ভিত্তিতে ইভেন্টের সংখ্যা কমবেশি হয়ে থাকে।

রাউন্ড-২ এর পথে

রাউন্ড-১ হতে কোয়ালিফাই করা দেশসমূহ, ১২-২০ র‍্যাঙ্কিং-এ থাকা দেশগুলো এবং স্বাগতিক দেশ নিয়ে রাউন্ড-২ অনুষ্ঠিত হয়। স্বাগতিক হওয়ার কারনে রাউন্ড-২ আয়োজনকারী দেশকে রাউন্ড-১ খেলতে হয় না।

প্রতি ইভেন্টে ৮টি দেশ নিয়ে তিনটি রাউন্ড-২ ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হয়। তিনটি ইভেন্ট ৩টি আলাদা দেশে অনুষ্ঠিত হয়।

সেরকমই আমাদের দেশ এ বছর ফিজি, ওমান, মালেয়শিয়া, চায়না, মিশর, শ্রীলঙ্কা, ঘানা ও নিজেরা স্বাগতিক হয়ে আয়োজন করছে হকি ওয়ার্ল্ড লীগ রাউন্ড-২। [ইভেন্ট ওয়েবসাইট]

প্রতিটি রাউন্ড-২ ইভেন্টের শীর্ষ দুই দল যাবে পরবর্তি ধাপ অর্থাৎ হকি ওয়ার্ল্ড লীগ সেমি ফাইনালস্‌ খেলতে। এছাড়াও তাদের সাথে যোগ দেবে প্রতিটি রাউন্ড-২ ইভেন্টে তৃতীয় স্থান অর্জনকারী দলগুলোর মধ্যে র‍্যাঙ্কিং-এ এগিয়ে থাকা শীর্ষ দুই দল।

তৃতীয় স্থানের ব্যাপারটি ঘোলাটে মনে হচ্ছে?

সমস্যা নেই, বুঝিয়ে দিচ্ছি...

আগেই বলেছি হকি ওয়ার্ল্ড লীগ রাউন্ড-২ মোট তিনটি ইভেন্টে অনুষ্ঠিত হয়। ধরুন এই তিনটি ইভেন্টে তৃতীয় স্থান অর্জনকারী দলগুলো হল যথাক্রমে জাপান, কোরিয়া ও চায়না। এখন এই তিনটি দলের মধ্যে র‍্যাঙ্কিং-এ যে দুইটি দল এগিয়ে থাকবে তারা অগ্রসর হবে পরবর্তি ধাপ অর্থাৎ হকি ওয়ার্ল্ড লীগ সেমি ফাইনালস্‌-এ।

তার মানে দাঁড়ায়, তিনটি রাউন্ড-২ ইভেন্টের শীর্ষ দুই দল অর্থাৎ ৬টি দল এবং পুরো রাউন্ড-২ এর তৃতীয় স্থানে থাকা দলগুলোর মধ্যে র‍্যাঙ্কিং-এ থাকা শীর্ষ দুই দল, সর্বমোট ৮ দল যাবে হকি ওয়ার্ল্ড লীগ সেমি ফাইনালস্‌ খেলতে।

দ্যা সেমিফাইনালস্‌

eventdiagram

শুরুতেই বলেছিলাম ১-১১ র‍্যাঙ্কিং-এ থাকা দলগুলো সরাসরি হকি ওয়ার্ল্ড লীগ সেমি ফাইনালে খেলে থাকে। তাদের সাথে যোগ দেবে রাউন্ড-২ হতে কোয়ালিফাই করে আসা ৮টি দেশ। এই ১৯টি দেশ এবং স্বাগতিক দেশ, সর্বমোট ২০টি দেশ নিয়ে আয়োজন করা হয় হকি ওয়ার্ল্ড লীগ সেমি ফাইনালস্‌ এর।

হকি ওয়ার্ল্ড লীগ সেমি ফাইনালস্‌ প্রতি ইভেন্টে ১০টি দল নিয়ে দুইটি ইভেন্টে অনুষ্ঠিত হয়। এবার হকি ওয়ার্ল্ড লীগ সেমি ফাইনালস্‌ এর পুরুষদের ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হবে ইংল্যান্ডে (১৫-২৫ জুন ২০১৭) এবং সাউথ আফ্রিকায় (৮-২৩ জুলাই ২০১৭)।

নারীদের ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হবে বেলিজিয়ামে (২১ জুন-২ জুলাই ২০১৭) এবং সাউথ আফ্রিকায় (৮-২৩ জুলাই ২০১৭)

এবং ফাইনাল...

হকি ওয়ার্ল্ড লীগ ফাইনাল শুধুমাত্র একটি ইভেন্টে অনুষ্ঠিত হয়। সেমি ফাইনালস্‌ হতে কোয়ালিফাই করা ৭টি বা ৮টি দল এবং স্বাগতিক দেশ নিয়ে হকি ওয়ার্ল্ড লীগ ফাইনাল আয়োজিত হয়।

এ বছর হকি ওয়ার্ল্ড লীগ ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে এর পুরুষদের ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হবে ভারতে (২-১০ ডিসেম্বর) এবং নারীদের ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হবে নিউজিল্যান্ডে (১৮-২৬ নভেম্বর)।

বিশ্বকাপ হকি ২০১৮ কোয়ালিফিকেশন

অবশেষে বিশ্বকাপ হকিতে খেলবে –

১। স্বাগতিক দেশ

২। ৫ মহাদেশীয় প্রতিযোগীতায় চ্যাম্পিয়ন দেশ

৩। হকি ওয়ার্ল্ড লীগ সেমি ফাইনালে খেলা দেশগুলোর মধ্যে শীর্ষ ১০ দেশ।

যদি স্বাগতিক দেশ মহাদেশীয় প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় তাহলে হকি ওয়ার্ল্ড লীগ সেমি ফাইনালে খেলা দেশগুলোর মধ্যে শীর্ষ ১১ র‍্যাঙ্কিং-এ থাকা দলগুলো বিশ্বকাপ হকিতে অংশগ্রহন করবে।

আন্তর্জাতিক হকি ফেডারেশনে অধীনে পাঁচটি মহাদেশীয় ফেডারেশন আছে যারা মহাদেশীয় প্রতিযোগিতাগুলো আয়োজন করে থাকে। মহাদেশীয় ফেডারেশনগুলো হল –

  • আফ্রিকান হকি ফেডারেশন
  • এশিয়ান হকি ফেডারেশন
  • ইউরোপিয়ান হকি ফেডারেশন
  • প্যান-আমেরিকান হকি ফেডারেশন
  • ওশেনিয়া হকি ফেডারেশন

বাংলাদেশ এবং বিশ্বকাপ হকি স্বপ্ন

কঠিন… কিন্ত অসম্ভব নয়। রাউন্ড-২ এর বাঁধা পার করতে পারলেই সেমি ফাইনালস্‌। আর সেমি ফাইনালে শীর্ষ দশ দেশগুলোর মধ্যে থাকতে পারলেই বাংলাদেশ হকির বিশ্বকাপ স্বপ্ন পূরণ!

সেমি ফাইনালস্‌ এবং বিশ্বকাপে যেতে পারলে বাংলাদেশের র‍্যাঙ্কিং তো বাড়বেই সেই সাথে বাড়বে অন্যান্য টুর্নামেন্ট যেমন চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ও চ্যাম্পিয়ন্স চ্যালেঞ্জ খেলার সুযোগ।

বিশ্বকাপ হকি এবং বাংলাদেশের মাঝে ছোট্ট একটু পথ। কিন্ত এই পথটাই অনেক কঠিন।